‘‘গর্ভাবস্থায় কেমন পোশাক পরবেন মহিলারা’’: লখনউ বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু নতুন কোর্স

এই কোর্স থেকে কর্মসংস্থানও হবে। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রের খবর, পুরুষ ছাত্ররাও ‘গর্ভ সংস্কার’ বিষয়টি অধ্যয়ন করতে পারবেন।

‘‘গর্ভাবস্থায় কেমন পোশাক পরবেন মহিলারা’’: লখনউ বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু নতুন কোর্স

লখনউ বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা স্বাগাত জানাচ্ছে এই নতুন কোর্সকে।

হাইলাইটস

  • বিষয়টিকে অন্তর্ভুক্ত করতে চলেছে লখনউ বিশ্ববিদ্যালয়
  • ভারতের প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হবে বিষয়টি
  • উত্তরপ্রদেশের রাজ্যপাল আনন্দিবেন পটেল এই কোর্সের আইডিয়া দিয়েছিলেন
লখনউ:

ভারতের প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে ‘গর্ভ সংস্কার' (Garbh Sanskar) নামের এক বিষয়কে সার্টিফিকেট ও ডিপ্লোমা কোর্সের জন্য অন্তর্ভুক্ত করতে চলেছে লখনউ বিশ্ববিদ্যালয় (Lucknow University)। নতুন শিক্ষাবর্ষ থেকেই বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত হতে চলেছে। এই নতুন বিষয়টিতে মাতৃত্ব বিষয়ে শিক্ষা দেওয়া হবে। এর মধ্যে গর্ভাবস্থায় কোনও মহিলা কী খাবেন ও কী ধরনের পোশাক পরবেন সে সম্পর্কেও শিক্ষা দেওয়া হবে। পাশাপাশি সেই সময় কেমন ব্যবহার করতে হবে, কেমন ধরনের সুর শুনতে হবে এবং নিজেকে কেমন করে ফিট রাখতে হবে, শেখানো হবে তাও।

এই কোর্স থেকে কর্মসংস্থানও হবে। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রের খবর, পুরুষ ছাত্ররাও ‘গর্ভ সংস্কার' বিষয়টি অধ্যয়ন করতে পারবেন।

লখনউ বিশ্ববিদ্যালয়ের মুখপাত্র দুর্গেশ শ্রীবাস্তব সংবাদ সংস্থা এএনআইকে জানিয়েছেন, ‘‘রাজ্যপাল আনন্দিবেন পটেল, যিনি রাজ্যের সব বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্যও বটে, তিনি প্রশাসনের কাছে প্রস্তাব দিয়েছিলেন মেয়েদের মা হিসেবে কী ভূমিকা সে সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দেওয়ার। তাই এই পদক্ষেপ করা হয়েছে।''

গত বছর বিশ্ববিদ্যালয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়ে আনন্দীবেন বল‌েছিলেন, ‘মহাভারত'-এর অভিমন্যু তাঁর মায়ের গর্ভে থাকার সময়ই অস্ত্রশিক্ষা করে ফেলেছিলেন। তিনি জানিয়েছিলেন, জার্মানিতে এক প্রতিষ্ঠানে এই বিষয়টি শেখানো হয়।

দুর্গেশ শ্রীবাস্তব বলেন, ‘‘প্রশিক্ষণ সূচির একটি গাইডলাইন তৈরি করা হয়েছে, যার দ্বারা পড়ুয়ারা ১৬টি মূল্যবোধ বিষয়ে শিখবেন।''

তিনি আরও বলেন, একজন গর্ভবতী মহিলাকে পরিবার পরিকল্পনা ও পুষ্টিমূল্য সম্পর্কে শেখানো হবে। সেই সঙ্গে নানা রকম ওয়ার্কশপও করানো হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের এক পড়ুয়া সঞ্জীব জানাচ্ছেন, ‘‘কোর্সটি খুবই ভাল এবং আমরা এটাকে স্বাগত জানাই। এটা স্পর্শকাতর বিষয়। যদি পড়ুয়ারা মাতৃত্বের প্রশিক্ষণ নেন, তাহলে তা কোনও দম্পতিকে স্বাস্থ্যবান শিশুর জন্ম দিতে সাহায্য করবে— যার অর্থ দেশের ভবিষ্যৎ স্বাস্থ্যকর হবে।''

সিনিয়র গাইনোকলজিস্ট ড. মধু গুপ্তা জানাচ্ছেন, ‘‘আমাদের দেশের সংস্কৃতি ও মূল্যবোধ খুবই সমৃদ্ধ। জ্ঞাতসারে বা অজ্ঞাতসারে কোনও মহিলার চিন্তাভাবনা তাঁর শিশুতে প্রতিফলিত হয়। তাই গর্ভাবস্থায় মহিলাদের ক্রিয়াকলাপ, খাদ্য ও মানসিক শান্তির বিষয়ে খেয়াল রাখতে হয়। এই প্রশিক্ষণ মহিলা ও শিশুদের পক্ষে কল্যাণের হবে।''

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com