অভিনন্দনকে ছাড়তে কীভাবে পাকিস্তানের উপর চাপ সৃষ্টি করেছে আমেরিকা এবং সৌদি আরব?

আজ দেশ ফিরছেন বায়ু সেনার  উইং কমান্ডার  অভিনন্দন বর্তমান। গতকাল পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এই ঘোষণা করতেই স্বস্তির নিশ্বাস ফেলে  আসমুদ্র হিমাচল

অভিনন্দনকে ছাড়তে কীভাবে পাকিস্তানের উপর চাপ সৃষ্টি করেছে আমেরিকা এবং সৌদি আরব?

ভারত সরকারের তরফে এই খবরের ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করা হয়নি                    

হাইলাইটস

  • অজিত দোভালের সঙ্গে কথা বলেছে মাইক পম্পেও
  • আমেরিকা থেকে শুরু করে সৌদি আরব পাকিস্তানের উপর চাপ সৃষ্টি করে
  • ইমরান জানান আজ দেশে ফিরবেন উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান
নিউ দিল্লি:

আজ দেশ ফিরছেন বায়ু সেনার  উইং কমান্ডার  অভিনন্দন বর্তমান। গতকাল পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এই ঘোষণা করতেই স্বস্তির নিশ্বাস ফেলে  আসমুদ্র হিমাচল। পাকিস্তান এমন পদক্ষেপ নিচ্ছে  কেন তা নিয়ে আলোচনা শুরু  হয়েছে। আর সেটাই স্বাভাবিক। এনডিটিভি জানতে পেরেছে  অভিনন্দন বর্তমানকে যাতে ছেড়ে দেওয়া হয়  তার জন্য  ইসলামাবাদের উপর চাপ তৈরি করেছিল আমেরিকা এবং সৌদি আরব। এই অধ্যায়ের শুরু থেকেই ভারতের লক্ষ্য ছিল  আন্তর্জাতিক স্তরে পাকিস্তানকে  চাপে ফেলা। দিল্লি সেই কাজটাই করেছে। তারই ফলশ্রুতিতে পাকিস্তানের উপর চাপ  দিয়েছে আমেরিকা এবং সৌদি আরব। তবে ভারত সরকারের তরফে এই খবরের ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করা হয়নি।

 তবে আমেরিকার  ভূমিকা যে ছিল সেটা  নিয়ে সন্দেহের তেমন কোনও অবকাশ নেই। পাকিস্তানের সংসদে দাঁড়িয়ে  বৃহস্পতিবার বিকেলে অভিনন্দনের মুক্তির কথা ঘোষণা করেন পাকিস্তানকে বাইশ গজে বিশ্বকাপ দেওয়া ইমরান। তার কয়েক ঘণ্টা আগে গোটা  বিশ্বের সংবাদ  মাধ্যমের সামনে  মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন ভারত এবং পাকিস্তানের থেকে ভাল খবর আসছে। উত্তর কোরিয়ার একনায়ক কিম জং  উনের সঙ্গে বৈঠকের পর ট্রাম্প আরও জানান আমেরিকা  চায় ভারত  এবং পাকিস্তানের মধ্যে থাকা  বিবাদ মিটে যাক।

এসবের মধ্যেই শোনা  যায়  আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তা  উপদেষ্টা মাইক পম্পেওর সঙ্গে  টেলিফোনে  প্রায় ২৫ মিনিট কথা বলেন ভারতের জাতীয়  নিরাপত্তা  উপদেষ্টা অজিত দোভাল।  

এর পাশাপাশি আরবের ভূমিকাও বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ। আরবের  সঙ্গে  ভারতের  সম্পর্ক খুবই ভাল হয়েছে। সে দেশের রাজপুত্র টুইট করে  বলেন, ভারত এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে  কথা হয়েছে। সাম্প্রতিক পরিস্থিতি যাতে  সবদিক বিবেচনা করে সামাল দেওয়া  হয়  সেটা  দেখতে আর্জি জানিয়েছি। এরই মধ্যে আজ আরবে ওআইসি-র সভায়  বক্তব্য রাখবেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা  স্বারাজ। ভারতের কোনও বিদেশমন্ত্রী আগে এ ধরনের সভায় যাননি। কয়েকটি ইসলামিক রাষ্ট্রকে  নিয়ে এই সংগঠন  তৈরি হয়েছে।