This Article is From May 06, 2020

দু’দিনের কাজ একদিনে সারলেন অমিতাভ বচ্চন, শুরু হ্যামস্ট্রিংয়ের যন্ত্রণা

মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে শুরু হয়েছিল শ্যুটিং। আর তা শেষ হয় গভীর রাতে। সেবিষয়ে বিস্তারিত তাঁর ব্লগে লিখে জানিয়েছেন অমিতাভ বচ্চন।

দু’দিনের কাজ একদিনে সারলেন অমিতাভ বচ্চন, শুরু হ্যামস্ট্রিংয়ের যন্ত্রণা

অমিতাভ বচ্চন এই ছবিটি শেয়ার করেছেন।

হাইলাইটস

  • কেবিসির শ্যুটিং শুরু করেছেন অমিতাভ বচ্চন
  • শ্যুটিং থেকে ফিরে হ্যামস্ট্রিংয়ের যন্ত্রণার কথা লিখেছেন বিগ বি
  • বুধবার মধ্যরাতে তিনি শ্যুটিং থেকে ফেরেন
নয়াদিল্লি:

বয়স পেরিয়ে গিয়েছে পঁচাত্তর। তবুও অমিতাভ বচ্চনের (Amitabh Bachchan) কাজের উৎসাহে কোনও খামতি নেই। আর তার জোরেই দু'দিনের কাজ একদিনে করে ফেলেছেন ‘শাহেনশাহ'। কিন্তু এর ফলে হ্যামস্ট্রিংয়ে ব্যথা শুরু হয়েছে বর্ষীয়ান অভিনেতার। বুধবার রাত দু'টোয় টুইট করে সেখবর জানিয়েছেন তিনি নিজেই। জানিয়েছেন, তখনই তিনি কাজ থেকে ফিরেছেন। নিজের অফিসিয়াল ব্লগে তিনি একথা জানান। অমিতাভ বচ্চন জানিয়েছেন, তিনি ‘কৌন বনেগা ক্রোড়পতি'-র (KBC) শ্যুটিং করছিলেন। পাশাপাশি কোভিড-১৯ যোদ্ধাদের প্রশংসাসূচক কয়েকটি ভিডিও-ও শ্যুট করেছেন তিনি।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে শুরু হয়েছিল শ্যুটিং। আর তা শেষ হয় গভীর রাতে। সেবিষয়ে বিস্তারিত তাঁর ব্লগে লিখে জানিয়েছেন তিনি। জানিয়েছেন, দীর্ঘ সময় শ্যুটিং করলেও প্রয়োজনীয় সাবধানতা অবলম্বন করেছিলেন তিনি। তিনি লেখেন, ‘‘যা দু'দিনে করার কথা ছিল, তা শেষ করা গেল একদিনেই। সন্ধ্যা ৬টায় শুরু করে এই একটু আগে শেষ হল।''

পাক ক্রিকেটার আব্দুল রজ্জাকের সঙ্গে বিয়ে করতে চলেছেন বাহুবলীর অভিনেত্রী?

এর একদিন আগেই ৪ ও ৫ মে তাঁর ব্লগ পোস্টে অমিতাভ লেখেন, তিনি ‘যন্ত্রণা'য় ভুগছেন। এবং সেটা হ্যামস্ট্রিংয়ের। তিনি জানিয়েছিলেন, হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটের কারণে তাঁর কাজও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। সেই পোস্টেই তিনি জানান, কী করে কেবিসির ১০ থেকে ১২টা ভিডিও শ্যুট করা বাকি রয়েছে। সেই সঙ্গে সেগুলির অডিও রেকর্ডিংও।

আটার প্যাকেটের ভিতর লুকিয়ে অর্থ সাহায্য করার বিষয়ে কী বললেন আমির খান?

‘কৌন বনেগা ক্রোড়পতি' অনুষ্ঠানের রেজিস্ট্রেশন শুরু হচ্ছে ৯ মে থেকে ২২ মে পর্যন্ত। এরপর ডিজিটা‌ল স্ক্রিনিং ও ইন্টারভিউয়ের পর চূড়ান্ত প্রতিযোগীর তালিকা তৈরি হবে।

সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে সোনি এন্টারটেনমেন্ট টেলিভিশন-এর বাণিজ্য বিভাগের কর্ণধার অমিত রায়সিংহানি জানিয়েছেন, ‘‘এই প্রথম কেবিসির ইতিহাসে সম্পূর্ণ স্ক্রিনিং ও নির্বাচন ডিজিটাল পদ্ধতিতে হল।''