সন্ত্রাসবাদীদের অর্থ সরবরাহে অভিযোগে পাক আদালতের কাঠগড়ায় হাফিজ সঈদ

সন্ত্রাসবাদে মদত দেওয়ার অভিযোগে পাকিস্তানকে কালো তালিকাভুক্ত করা হবে কিনা তা নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের আগেই ২৬/১১-র মাস্টারমাইন্ডের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ

সন্ত্রাসবাদীদের অর্থ সরবরাহে অভিযোগে পাক আদালতের কাঠগড়ায় হাফিজ সঈদ

২৬/ ১১-এর মাস্টারমাইন্ড Hafiz Saeed বর্তমানে পাকিস্তানের কোট লাখপত জেলে বন্দি রয়েছেন

হাইলাইটস

  • সন্ত্রাসবাদীদের অর্থ জোগানোর অভিযোগে অভিযুক্ত হাফিজ সঈদ
  • তাঁকে অভিযুক্ত করল পাকিস্তানেরই একটি আদালত
  • বর্তমানে পাকিস্তানের কোট লাখপত জেলে বন্দি তিনি
লাহোর:

২০০৮ সালের মুম্বই সন্ত্রাসবাদী হামলার মূল পরিকল্পনাকারী হাফিজ সঈদকে (Hafiz Saeed) সন্ত্রাসবাদীদের অর্থ সরবরাহ করার অভিযোগে অভিযুক্ত করল পাকিস্তানেরই (Pakistan) একটি আদালত। আগামী বছরেই সন্ত্রাসবাদে মদত দেওয়ার অভিযোগে পাকিস্তানকে কালো তালিকাভুক্ত করা হবে কিনা তা নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে বৈঠকে বসবে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাস তহবিল নজরদারি সংস্থা এফএটিএফ বা ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স। তার আগেই সন্ত্রাসবাদী সংগঠন জামাত-উদ-দাওয়ার (Jammat-ud-Dawah) প্রধান হাফিজ সঈদের বিরুদ্ধে হঠাৎই পদক্ষেপ করতে নড়েচড়ে বসলো পাকিস্তানের ওই আদালত। ১৭ জুলাই, পাকিস্তানের অন্তর্ভুক্ত পঞ্জাব পুলিশের সন্ত্রাসবিরোধী বিভাগ (সিটিডি) পঞ্জাব প্রদেশের বিভিন্ন শহরে "সন্ত্রাসবাদীদের অর্থ দিয়ে মদত" দেওয়ার অভিযোগে সঈদ ও তাঁর শাগরেদদের বিরুদ্ধে ২৩ টি এফআইআর দায়ের করে এবং পরে জামাত-উদ দাওয়ার প্রধান হাফিজ সঈদকে গ্রেফতার করে।

২৬/ ১১-এর মাস্টারমাইন্ড বর্তমানে পাকিস্তানের কোট লাখপত জেলে বন্দি রয়েছেন।

আল-আনফাল ট্রাস্ট, দাওয়াতুল ইরশাদ ট্রাস্ট এবং মুয়াজ বিন জাবাল ট্রাস্ট সহ বিভিন্ন অলাভজনক সংস্থার নামে অর্থ দিয়ে আসলে সন্ত্রাসবাদের জন্যেই তহবিল সংগ্রহে সাহায্য করা হয়েছে এই অভিযোগে লাহোর, গুজরানওয়ালা এবং মুলতানে মামলাগুলি নথিভুক্ত করা হয়েছে।

"পাক-মদতপুষ্ট সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠীগুলো ভারতে হামলার সুযোগ খুঁজছে": আমেরিকা

গত সপ্তাহেই ভারত বলে যে মুম্বই সন্ত্রাসবাদী হামলার মূল পরিকল্পনাকারী "নির্দ্বিধায় ঘুরে বেড়াচ্ছে" এবং "পাকিস্তানের আতিথেয়তা" উপভোগ করছে এটা বেশ ভাল করেই জানে দেশ। 

পররাষ্ট্রমন্ত্রকের মুখপাত্র রভীশ কুমার গত শুক্রবার নয়াদিল্লিতে বলেন যে ভারত ২৬/১১-র সন্ত্রাসবাদের নেপথ্যের সমস্ত প্রমাণ পাকিস্তানের সঙ্গে ভাগ করে নিয়েছে, এবার ওই হামলার দোষীদের বিরুদ্ধে "ব্যবস্থা নেওয়া" ইসলামাবাদের দায়িত্বের মধ্যে পড়ে। এরপরেই পাকিস্তানের সন্ত্রাসবিরোধী আদালত লস্কর-ই-তৈবার প্রতিষ্ঠাতা হাফিজ সঈদ এবং সহ অভিযুক্ত মালিক জাফর ইকবালের বিরুদ্ধে চার্জশিট তৈরি করে।

গ্রেফতার হওয়া চার জঙ্গি নেতার বিচারপ্রক্রিয়া শুরু করুক পাকিস্তান: আমেরিকা

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের চাপের মুখে পড়ে পাকিস্তান লস্কর-ই-তৈবা, জামাত-উদ-দাওয়ার এবং এর শাখা সংগঠন ফালাহ-ই-ইনসানিয়াৎ ফাউন্ডেশনের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে। ওই সংস্থাগুলির বিরুদ্ধে অভিযোগ তারা সন্ত্রাসবাদে মদত দিতে অর্থ সরবরাহ করেছে।

দেখুন এই খবরগুলি:

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com