Govardhan Puja 2019: জানেন, কী কারণে কড়ে আঙুলে বিশাল পর্বত তুলে নিয়েছিলেন কৃষ্ণ?

Govardhan Puja 2019: পুরাণ অনুযায়ী শ্রীকৃষ্ণ সমগ্র গোবর্ধন পর্বতটি তাঁর বাম হাতের কড়ে আঙুলের উপরে তুলে ধরেন এবং ব্রজের মানুষজন সাতদিন ধরে ওই পাহাড়ের নিচে আশ্রয় নেন

Govardhan Puja 2019: জানেন, কী কারণে কড়ে আঙুলে বিশাল পর্বত তুলে নিয়েছিলেন কৃষ্ণ?

Govardhan Puja: পুরাণ অনুযায়ী শ্রীকৃষ্ণ সমগ্র গোবর্ধন পর্বতটি তাঁর বাম হাতের কড়ে আঙুলের উপরে তুলে ধরেন

নয়াদিল্লি:

রবিবার সারা দেশে উদযাপিত হয়েছে আলোর উৎসব দীপাবলি। আর দীপাবলির ঠিক একদিন পরেই উত্তর ভারতের বহু জায়গায় আজ গোবর্ধন পুজোর (Govardhan Puja) আয়োজন করা হয়েছে। কথিত আছে, ইন্দ্রের প্রকোপ থেকে ব্রজের মানুষদের বাঁচাতে প্রবল বৃষ্টিপাতের সময় সাত দিন ধরে উত্তর প্রদেশের গোকুল শহরের (Gokul city) গোবর্ধন পর্বত নিজের কড়ে আঙুলে তুলে ধরেছিলেন কৃষ্ণ। কৃষ্ণকে ধন্যবাদ জানিয়েই এই গোবর্ধন পুজোর আয়োজন করেন ভক্তরা। হিন্দু পুরাণ কাহিনি অনুসারে, যখন কৃষ্ণ যুবক ছিলেন, তিনি একবার তাঁর পিতা নন্দ মহারাজকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন কেন তিনি এবং ব্রজের মানুষজন ভগবান ইন্দ্রের উপাসনা করেন। তাঁর পিতা তাঁকে বলেন যে, তাঁরা ভগবান ইন্দ্রকে সন্তুষ্ট করার চেষ্টা করেন যাতে তিনি ব্রজের মানুষদের উপর তাঁর অনুগ্রহ বর্ষণ করেন এবং যখনই প্রয়োজন পড়েন বৃষ্টি দিয়ে আশীর্বাদ করেন। কৌতূহলী কৃষ্ণ অবশ্য এই উত্তরে সন্তুষ্ট হননি এবং ব্রজের মানুষদের তিনি বোঝান ভগবানকে ভয় না করে নিজেদের কাজে আরও মনোনিবেশ করতে, ফলের জন্য উদ্বিগ্ন না হওয়ার বিষয়েও মানুষদের দৃঢ় প্রত্যয়ী করেন তিনি। মানুষজন তাতে রাজিও হন। 

জানেন, ১৯৪৭ থেকে বন্ধ থাকার পর কেন দীপাবলিতে সেজে উঠল পাকিস্তানের এই মন্দির?

কৃষ্ণকে বিশ্বাস করে সকলেই ইন্দ্রদেবের উপাসনা বন্ধ করে দেন। এতে বেজায় চটে যান ইন্দ্র এবং তিনি রেগে গিয়ে ডেকে পাঠান সমাবর্তক মেঘেদের, তাঁদের আদেশ দেন প্রবল বৃষ্টি ও বজ্রবিদ্যুৎ সহ ঝড়ে বৃন্দাবনকে একেবারে ধ্বংস করে দিতে। তুমুল প্রলয়ের মুখে পড়ে উদ্বিগ্ন মানুষজন সাহায্যের আর্জি নিয়ে যান শ্রীকৃষ্ণের কাছে।

পুরাণ অনুযায়ী শ্রীকৃষ্ণ তখন সমগ্র গোবর্ধন পর্বতটি তাঁর বাম হাতের কড়ে আঙুলের উপরে তুলে ধরেন এবং ব্রজের মানুষজন ক্ষুধা ও তৃষ্ণায় আক্রান্ত না হয়েই সাতদিন ধরে ওই পাহাড়ের নিচে আশ্রয় নেন। সেই থেকে গোবর্ধন পুজোর দিন শ্রীকৃষ্ণের ভক্তরা পুজো করে থাকেন। গোবর্ধন ধীরে ধীরে শ্রীকৃষ্ণের ভক্তদের জন্য ব্রজের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ তীর্থস্থানও হয়ে ওঠে। 

কালীপুজোয় গত বছরের তুলনায় এ বছর বায়ুদূষণের মাত্রা কমেছে কলকাতায়

এখানে রইল গোবর্ধন পুজো সম্পর্কিত বিবরণ (Govardhan Puja)

গোবর্ধন পূজা সায়নকাল সময়; বিকেল ৩:৩৬ থেকে বিকেল ৫:৫১

সময়কাল; ২ ঘন্টা ১৪ মিনিট

সোমবারের দ্যূত ক্রীড়া; ২৮ অক্টোবর, ২০১৯

প্রতিপাদ তিথি শুরু হচ্ছে; ২৮ অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ৯:০৮ মিনিট

প্রতিপাদ তিথি শেষ হচ্ছে; ২৯ অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ৬:১৩ মিনিট

Click for more trending news


Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com