স্ত্রী সহ তিন সন্তানকে হত্যা করে অপরাধ কবুল হোয়াটসঅ্যাপে

পুলিশ জানায়, যে আইটি সংস্থায় কাজ করত সে, সেখান থেকে গত জানুয়ারিতে তার চাকরি চলে যায়।

স্ত্রী সহ তিন সন্তানকে হত্যা করে অপরাধ কবুল হোয়াটসঅ্যাপে

তার বড় সন্তানটির পাঁচ বছর বয়স। ছোট দুটি যমজ। বয়স চার।

গাজিয়াবাদ:

রবিবার নিজের তিন সন্তান ও স্ত্রী'কে হত্যা করে দিল্লির এক সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার নিজের পরিবারের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে একটি ভিডিও'র মাধ্যমে অপরাধ কবুল করল। গাজিয়াবাদের বাসিন্দা ওই ব্যক্তি তার শ্যালককে জানিয়েছিল যে সে আত্মহত্যা করতে চায়। তারপর থেকে তার আর কোনও খোঁজ নেই। ওই ব্যক্তির নাম সুমিত। রবিবার ভোর তিনটে নাগাদ সে তার ৩২ বছর বয়সী স্ত্রী এবং তিন সন্তানকে হত্যা করে। তাদের ইন্দিরাপূরমের বাড়িতেই সলঘটিত হয় হত্যাকাণ্ডটি। ওই ব্যক্তির তিন সন্তানের মধ্যে বড়টির বয়স পাঁচ এবং বাকি দুই সন্তান যমজ। তাদের দুজনেরই বয়স চার বছর।

fefgjni

পুলিশ জানায়, যে আইটি সংস্থায় কাজ করত সে, সেখান থেকে গত জানুয়ারিতে তার চাকরি চলে যায়। বেঙ্গালুরুর ওই আইটি সংস্থা থেকে তার চাকরি চলে যাওয়ার পর থেকেই সে অবসাদে ভুগছিল। এছাড়া, আর্থিক দুরবস্থাও ছিল। এই সব কারণেই সে এই চরমতম পন্থা অবলম্বন করে বলে সন্দেহ পুলিশের।

ঘটনাটি জানানি হয় রবিবার সন্ধে ৬'টা নাগাদ ওই ব্যক্তি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে ভিডিও করে অপরাধ কবুল করার পর। তারপরই সে তার শ্যালককে ফোন করে জানায়, আমি আত্মহত্যা করতে চলেছি।

পুলিশ এখন তাকে খুঁজছে।

তার স্ত্রী ও তিন সন্তানের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। তদন্ত চলছে।

More News