‘‘রাজনীতি থেকে আমরা দূরেই থাকি’’: সমালোচনার জবাবে জেনারেল বিপিন রাওয়াত

সাংবাদিকদের করা প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘‘আমরা রাজনীতি থেকে নিজেদের সরিয়ে রাখি। ক্ষমতাশীল সরকারের নির্দেশ পালন করি।’’

বিপিন রাওয়াত এদিন জানালেন, ‘‘আমরা রাজনীতি থেকে নিজেদের সরিয়ে রাখি।’’

New Delhi:

কয়েক দিন আগেই তাঁর বিরুদ্ধে রাজনৈতিক মন্তব্য করার অভিযোগ এনেছিল বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি। বুধবার জেনারেল বিপিন রাওয়াত (General Bipin Rawat) জানালেন, সেনাবাহিনী রাজনীতি থেকে দূরে থাকতেই পছন্দ করে। মঙ্গলবার প্রতিরক্ষা বাহিনীর প্রধান (CDS) পদে দায়িত্ব নেওয়া বিপিন রাওয়াত এদিন জানালেন, ‘‘আমরা রাজনীতি থেকে নিজেদের সরিয়ে রাখি। ক্ষমতাশীল সরকারের নির্দেশ পালন করি।'' স্বাধীনতা দিবসের দিনে ভাষণে দেশের প্রথম প্রতিরক্ষাবাহিনীর প্রধান পদটির ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এই পদে থাকাকালীন বিপিন রাওয়াত নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়ে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন এবং সেনাবাহিনী, নৌসেনাবাহিনী ও বায়ুসেনা বাহিনীর প্রধানরা তাঁকে কাজের ব্যাপারে রিপোর্ট করবেন।

এদিন সাংবাদিকদের করা প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘‘আমরা রাজনীতি থেকে নিজেদের সরিয়ে রাখি। ক্ষমতাশীল সরকারের নির্দেশ পালন করি।''

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে সহিংস প্রতিবাদ ও ভাঙচুরের ঘটনার সমালোচনা করার সময় বিপিনের মন্তব্যকে ‘রাজনৈতিক' বলে দাবি করে বিরোধী দলগুলি।

গত সপ্তাহে তিনি বলেন, ‘‘নেতৃত্ব দেওয়া হল সকলকে এগিয়ে ন‌িয়ে যাওয়া। যখন আপনি এগোবেন সকলে অনুসরণ করবে। কিন্তু নেতা তারাই যারা মানুষকে সঠিক পথে এগিয়ে নিয়ে যায়। তারা নেতা নয়, যারা মানুষকে ভুল পথে চালিত করে। যেমনটা আমরা বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের বিপুল সংখ্যক পড়ুয়াদের ক্ষেত্রে লক্ষ করলাম। আমাদের শহর ও শহরতলিতে বিপুল বিক্ষোভ ও হিংসা ছড়াতে দেখলাম জনতাকে। এটা নেতৃত্ব নয়।'' 

Newsbeep

হায়দরাবাদের সাংসদ ও এআইএমআইএম-এর প্রধান আসাদুদ্দিন ওয়াইসি এই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে বিপিন রাওয়াতের সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, নেতৃত্ব দেওয়ার অর্থ নিজের দফতরের সীমাবদ্ধতা জানা। কোনও প্রতিষ্ঠানে প্রধান হিসেবে তার গুরুত্ব ও অবস্থানও তাঁর জানা উচিত বলে জানান ওয়াইসি।

সমালোচনা করেন পি চিদাম্বরমও। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী বলেন,  ‘‘এটা সেনাদের কাজ নয়। রাজনীতিবিদরা কী করবেন সেটা আপনারা ঠিক করবেন না। ঠিক যেমন ভাবে, আপনারা কীভাবে যুদ্ধ করবেন, সেটা বলা আমাদের কাজ নয়। আপনারা বাহিনীর কৌশল অনুসরণ করে যুদ্ধ করেন। আমরা ঠিক তেমন ভাবেই আমাদের কৌশল মেনে রাজনীতি করি।''