This Article is From Feb 02, 2019

সিবিআই-এর নতুন অধিকর্তা হলেন মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন ডিজি ঋষিকুমার শুক্লা

১৯৮৩-এর ব্যাচের আইপিএস এবং মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন ডিজি ঋষিকুমার শুক্লা হলেন সিবিআই-এর নতুন অধিকর্তা। শনিরবার সরকারের পক্ষ থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে এই কথা জানানো হয়।

সিবিআই-এর নতুন অধিকর্তা হলেন মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন ডিজি ঋষিকুমার শুক্লা

ঋষিকুমার শুক্লা হলেন সিবিআই-এর নতুন অধিকর্তা।

নিউ দিল্লি:

১৯৮৩-এর ব্যাচের আইপিএস এবং মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন ডিজি ঋষিকুমার শুক্লা হলেন সিবিআই-এর নতুন অধিকর্তা। শনিরবার সরকারের পক্ষ থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে এই কথা জানানো হয়। উচ্চপদস্থ কমিটি যে ৩০'টি বাছাই নামকে তালিকায় রেখেছিল, তার মধ্যে থেকে সবার আগে উঠে এল তাঁর নাম।

ওই কমিটির সদস্যরা হলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ এবং বিরোধী নেতা কংগ্রেসের মল্লিকার্জুন খার্গে। আগামী দু'বছর সিবিআই-এর অধিকর্তা পদে থাকবেন ঋষিকুমার শুক্লা।

প্রাক্তন সিবিআই অধিকর্তা অলোক বর্মাকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা বিতর্ক এবং তারপর সিবিআই অধিকর্তার পদ থেকে তাঁকে সরিয়ে দেওয়া- সব মিলিয়ে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার প্রধানের পদটি বেশ কয়েকমাস ধরেই ছিল আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে। গুজরাটের আইপিএস ক্যাডারের অফিসার রাকেশ আস্থানার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ করায় অলোক বর্মাকে বিপাকে ফেলা হয়েছিল বলেও মনে করে ওয়াকিবহালমহল। অলোক বর্মা দুর্নীতির অভিযোগ দায়ের করেন রাকেশ আস্থানার বিরুদ্ধে। এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে পুলিশের কাছে আস্থানার বিরুদ্ধে অর্থ জালিয়াতির মামলা করে অলোক বর্মার টিম।

তারপরই সিবিআইয়ের ওই দুই কর্তাকেই গত বছরের অক্টোবর মাসে ছুটিতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। তাঁদের জায়গায় অস্থায়ী অধিকর্তার দায়িত্বে আসেন এম নাগেশ্বর রাও।

শুক্রবার, সিবিআই অধিকর্তার পদের নামঘোষণা নিয়ে বিলম্বের জন্য সুপ্রিম কোর্ট তীব্র তিরস্কার করেছিল কেন্দ্রীয় সরকারকে। শীর্ষ আদালতের বক্তব্য ছিল, এত গুরুত্বপূর্ণ একটি পদের ক্ষেত্রে বেশিদিন অস্থায়ীভাবে কাউকে রাখাটা একেবারেই ঠিক নয়। তারপরই তড়িঘড়ি সিদ্ধান্ত নিয়ে নিল কমিটি।