This Article is From Jan 31, 2020

Coronavirus: ভারতেও মিলল সন্ধান, পর্যবেক্ষণে রাখা হল আক্রান্ত কেরলের পড়ুয়াকে

Coronavirus: এখনও যেহেতু এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে শরীরে প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে ওঠেনি, তাই সহজেই এই রোগে আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ।

Coronavirus: চিনে এখনও ১৭০ জনের মৃত্যু হয়েছে এই অসুখে। (ফাইল)

নয়াদিল্লি:

চিনের মারণ ভাইরাস করোনা ভাইরাসের (Coronavirus) সন্ধান এবার মিলল ভারতের কেরলে (Kerala)। সরকারের তরফে বৃহস্পতিবার একথা জানানো হয়েছে। এযাবৎ ১৭০ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন চিনে। এই পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রক সংবাদমাধ্যমে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, উহান বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠরত এক পড়ুয়ার শরীরে করোনা ভাইরাসের সন্ধান মিলেছে কেরলে। ওই রোগীকে হাসপাতালে আলাদা করে রাখা হয়েছে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। জানা গিয়েছে, তাঁর প্রতি তীক্ষ্ণ নজর রাখা হচ্ছে। রোগীর অবস্থা স্থিতিশীল। কেরলে ৪০০ জনেরও বেশি মানুষকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। বিভিন্ন বিমান বন্দরে ৩০,০০০ জনকে পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে।

দিল্লি ও মুম্বইয়ে সম্ভাব্য কেসগুলিকে আলাদা ওয়ার্ডে রেখে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

Coronavirus: মারণ করোনাভাইরাস থেকে বাঁচার উপায় কী ? জানালেন বিশিষ্ট ভাইরোলোজিস্ট ডঃ অমিতাভ নন্দী

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, ১ জানুয়ারির পরে যাঁরা চিন থেকে এসেছেন, তাঁদের মধ্যে কারও ক্ষেত্রে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ দেখা গেলে দ্রুত নিকবটবর্তী স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যোগাযোগ করতে। প্রসঙ্গত, এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণগুলি হল জ্বর, সর্দিকাশি ও শ্বাসকষ্ট।

করোনা ভাইরাস যেখান থেকে ছড়িয়েছে, সেই উহানে এখনও আটকে রয়েছেন ২৫০ থেকে ৩০০ ভারতীয়। কেন্দ্র সরকারের তরফে চেষ্টা করা হচ্ছে তাঁদের দেশে নিয়ে আসার।

এই ভাইরাস ঠিক কতটা বিপজ্জনক, তা এখনও জানা যায়নি। তবে এখনও যেহেতু এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে শরীরে প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে ওঠেনি, তাই সহজেই এই রোগে আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ। তিন মাসের মধ্যে এই রোগের প্রতিষেধক বের করার চেষ্টা করছেন বিজ্ঞানীরা।

প্রসঙ্গত, এর আগে একই ধরনের লক্ষণসম্পন্ন সার্স ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২০০২-০৩ সালে চিন ও হংকংয়ে প্রায় ৮০০ জনের মৃত্যু হয়েছিল। 

দেখুন করোনা ভাইরাস সম্পর্কে বিশেষজ্ঞের মতামত: