This Article is From Jul 25, 2018

চাপে পড়ে দেশে ফেরার ইচ্ছাপ্রকাশ করলেন বিজয় মালিয়া

কোটিপতি বিজনেস টাইকুন বিজয় মালিয়া দেশে ফিরে এসে দেশের আইনের মুখোমুখি হওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করলেন বলে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট সূত্রে জানা গিয়েছে।

চাপে পড়ে দেশে ফেরার ইচ্ছাপ্রকাশ করলেন বিজয় মালিয়া

তাঁর দেশে ফিরে আসার প্রস্তাবটির ব্যাপারে স্বয়ং মালিয়া এখনও পর্যন্ত কিছুই জানাননি।

হাইলাইটস

  • কোটি টাকার ঋণ শোধ না করার দায়ে অভিযুক্ত হন বিজয় মালিয়া
  • তাঁর বিরুদ্ধে নেওয়া ব্যবস্থার মুখোমুখি হতে চাইছেন বলে খবর
  • ব্রিটেনের আদালতে তাঁর বিরুদ্ধে প্রত্যর্পণ নিয়ে মামলাটি চলছে।
নিউ দিল্লি:

অবশেষে সুর নরম হল। কোটিপতি বিজনেস টাইকুন বিজয় মালিয়া দেশে ফিরে এসে দেশের আইনের মুখোমুখি হওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করলেন বলে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট সূত্রে জানা গিয়েছে। অর্থ প্রতারণা মামলার তদন্ত চালানো ইডি’র আধিকারিকদের ইঙ্গিত অনুযায়ী, সরকারের পক্ষ থেকে নতুন আইন তৈরি করে বিজয় মালিয়ার সমস্ত সম্পত্তিকে বাজেয়াপ্ত করার সিদ্ধান্তের ফলেই এই সুর বদল।

এই প্রাক্তন মদ ব্যবসায়ী এই দেশের প্রথম মানুষ হিসাবে মুম্বাই আদালতে মামলার মুখোমুখি হবেন। এই নতুন আইন অনুযায়ী, কোনও অভিযুক্ত দেশ ছেড়ে পালিয়ে গেলে তার সমস্ত সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে নেওয়া যাবে। গত মাসেই এই আইনের আওতায় বিজয় মালিয়কে নিয়ে এসে তাঁকে ‘পলাতক’ বলে ঘোষণা করার অনুরোধ করেছিল ইডি আদালতের কাছে।

যদিও, বিজয় মালিয়ার দেশে ফিরে আসার প্রস্তাবটির ব্যাপারে স্বয়ং মালিয়া এখনও পর্যন্ত কিছুই জানাননি।

এর আগে ভারতের হাতে মালিয়াকে তুলে দেওয়ার জন্য ব্রিটেনের কাছে যে অনুরোধ করা হয়েছিল কূটনৈতিক স্তরে, তার প্রবল বিরোধিতা করেছিলেন বাষট্টি বছর বয়সী এই কোটিপতি ব্যবসায়ী।

ভারতের কাছে মালিয়ার প্রত্যর্পণ সংক্রান্ত একটি মামলাও চলছে লন্ডনের আদালতে।

2005 সালে শুরু করা কিংফিশার এয়ারলাইন্সের জন্য 9000 কোটি টাকা ঋণ নেওয়া বিজয় মালিয়া ব্যাঙ্কের ঋণ শোধ না করে 2016 সালেই দেশ থেকে ফেরার হয়ে যান। কিংফিশার এয়ারলাইন্স বন্ধ হয়ে গিয়েছিল মাত্র সাত বছরের মধ্যেই।