This Article is From Sep 28, 2018

বাংলাদেশ থেকে পাচার হয়ে এ দেশে আসা বিদেশি পাখি আটক করল ডিআরআই

জাভা স্প্যারো, স্টার ফিঞ্চেজ, গোল্ডেন ফিঞ্চেজ, ককাটিয়েল এবং আরাক্যারি সহ মোট 38টি বিদেশি পাখি পাচার করা হচ্ছিল চারটি বড় বাক্সের মাধ্যমে।

বাংলাদেশ থেকে পাচার হয়ে এ দেশে আসা বিদেশি পাখি আটক করল ডিআরআই

জাভা স্প্যারো ইন্দোনেশিয়ার পাখি।

কলকাতা:

ডিরেক্টরেট অব রেভেনিউ ইন্টালিজেন্স (ডিআরআই)-এর কর্মীরা দমদম বিমানবন্দর থেকে এক বিদেশি পাখি পাচারকারী দলকে গ্রেফতার করল। ওই পাখিগুলিকে বাংলাদেশ থেকে ভারতে নিয়ে আসা হচ্ছিল। কার্গো বিমানে করে আসা ওই পাখিগুলিকে বৃহস্পতিবার হায়দরাবাদের পাচার করার কথা ছিল বলে জানা গিয়েছে। জাভা স্প্যারো, স্টার ফিঞ্চেজ, গোল্ডেন ফিঞ্চেজ, ককাটিয়েল এবং আরাক্যারি সহ মোট 38টি বিদেশি পাখি পাচার করা হচ্ছিল চারটি বড় বাক্সের মাধ্যমে। একটি বিবৃতি দিয়ে এই কথা জানায় ডিরেক্টরেট অব রেভেনিউ ইন্টালিজেন্স কর্তৃপক্ষ। প্রত্যেকটি পাখিতে নিরাপত্তার কারণে তুলে দেওয়া হয়েছে আলিপুর চিড়িয়াখানার হাতে। “এই প্রত্যেকটি পাখিই বিদেশি”, বলে জানান ডিআরআইয়ের এক পদস্থ কর্তা।

আরাক্যারি মূলত পাওয়া যায় দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলিতে। ফিঞ্চেজ আর ককাটিয়েল পাওয়া যায় অস্ট্রেলিয়া মহাদেশে। জাভা স্প্যারো ইন্দোনেশিয়ার পাখি।

“এই প্রত্যেকটি পাখিকেই বেআইনিভাবে এ দেশে আনা হয়েছে বলে আমরা জানতে পেরেছি”, জানায় ডিআরআই।

অন্য একটি ঘটনায় ত্রিপুরা পুলিশের সঙ্গে যুগ্মভাবে অনুসন্ধান চালিয়ে ডিআরআই ত্রিপুরার সেপাহিজালা জেলার সোনামুড়া ও কালামচেরা অঞ্চল থেকে উদ্ধার করে 1400 কিলো গাঁজা। ওই বিপুল পরিমাণ গাঁজা লুকিয়ে রাখা ছিল মাটির তলায়। প্রায় কুড়ি ঘন্টার চেষ্টায় ওই গাঁজা উদ্ধার করে পুলিশ ও ডিআরআই।

মাটির তলায় প্রায় দশ থেকে বারো ফুট নিচে প্লাস্টিকের ব্যাগে মুড়ে লুকিয়ে রাখা ছিল ওই গাঁজা। যার বাজারে মূল্য প্রায় দেড় কোটি টাকা।