৩১ মার্চ পর্যন্ত এবার গোটা রাজ্যেই লক ডাউন, নবান্নে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

আগে ছিল ৫ দিনের লক ডাউন। তাও আবার রাজ্যের পুর শহরে। এবার সেই মেয়াদ বেড়ে হল ৩১ মার্চ। আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত গোটা রাজ্যেকে লক ডাউনের  আওতায় আনল নবান্ন।

৩১ মার্চ পর্যন্ত এবার গোটা রাজ্যেই লক ডাউন, নবান্নে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত গোটা রাজ্যেকে লক ডাউনের  আওতায় আনল নবান্ন।

কলকাতা:

আগে ছিল ৫ দিনের লক ডাউন। তাও আবার রাজ্যের পুর শহরে। এবার সেই মেয়াদ বেড়ে হল ৩১ মার্চ। আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত গোটা রাজ্যেকে লক ডাউনের (Statewide Lock down) আওতায় আনল নবান্ন। মঙ্গলবার এই ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Bengal CM  Mamata Banerjee)। জানা গিয়েছে, রাজ্যের সংক্রমণের মাত্রা বিচার করে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী। মঙ্গলবারও তিনি লক ডাউন চলাকালীন রাজ্যবাসীকে ঘরে থাকার আবেদন করেছেন। পাশাপাশি এদিন তিনি প্রচেষ্টা প্রকল্পের উদ্বোধন করেন। সেই প্রকল্পে করোনা মহামারীর জেরে ক্ষতিগ্রস্ত অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকদের এক হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়া হবে। ১৫-৩০ এপ্রিলের মধ্যে আবেদন করতে হবে প্রচেষ্টা প্রকল্পে। নবান্ন সূত্রে এমনটাই খবর। এই অনুদান প্রসঙ্গ সোমবার সর্বদলীয় বৈঠকে তুলেছিলেন বিরোধীরা।

কলকাতার করোনা আক্রান্তের মৃত্যুর পর পরীক্ষা হাসপাতালের ১০ কর্মীর, ফলাফল নেগেটিভ

 এদিন লক ডাউনের সীমা বাড়ানো প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, "বুঝতে পারছি মানুষের অসুবিধা হবে। কিন্তু প্রাথমিক এই অসুবিধা একটু মানিয়ে নিতে পারলেই আমাদের সামনে আসা বিপর্যয় দূর করতে পারব।এদিন তিনি আর্থিক সহযোগিতা প্রসঙ্গে কেন্দ্রকে বিঁধেছেন। বারবার বলা সত্ত্বেও মহামারী রোধে কোনও আর্থিক সহায়তা করেনি দিল্লি, এ ভাষাতেই মঙ্গলবার তোপ দাগেন তিনি।

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে ইতিমধ্যে ৩১ মার্চ পর্যন্ত গোটা রাজ্যে লক ডাউন। মঙ্গলবার এই ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আগে সিদ্ধান্ত হয়েছিল ২৭ মার্চ পর্যন্ত শুধু পুর এলাকায় থাকবে লক ডাউন। এদিন আবার এ রাজ্যে নতুন করে দু'জনের দেহে সংক্রমণ পাওয়া গিয়েছে। মিশর ও লন্ডন থেকে শহরে ফেরার ইতিহাস আছে ওই দু'জনের। এনআরএসে চিকিৎসাধীন করোনা সংক্রমণে মৃত দমদমের সেই প্রৌঢ়ের সহকর্মীও। এমনটাই জানিয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। এই পরিস্থিতিতে এদিন শহরের সরকারি হাসপাতালের আইসোলেশন কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করেন মুখ্যমন্ত্রী ।

কথা বলেন স্বাস্থ্যকর্মীদের সঙ্গে। তার সঙ্গে ছিলেন কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা। মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী সপার্ষদ টালিগঞ্জের এমআর বাঙ্গুর, মধ্য কলকাতার মেডিকেল কলেজ, এনআরএস  হাসপাতাল আর উত্তর কলকাতার আরজি কর পরিদর্শন করেন। রাজারহাটের কোয়ারান্টাইন সেন্টারও পরিদর্শন করেছেন তিনি। 



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)