This Article is From Apr 30, 2019

ওয়ানাড়ে রাহুলের মনোনয়ন নিয়ে মোদীর তোপ বিধিলঙ্ঘন নয়: নির্বাচন কমিশন

নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহের বিরুদ্ধে অভিযোগ যে, তাঁরা ‘বিদ্বেষমূলক বক্তব্য’ পেশ করছেন একের পর এক এবং সশস্ত্র কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ‘রাজনৈতিক প্রোপাগান্ডা’র কাজে ব্যবহার করছেন।

ওয়ানাড়ে রাহুলের মনোনয়ন নিয়ে মোদীর তোপ বিধিলঙ্ঘন নয়: নির্বাচন কমিশন
নিউ দিল্লি:

কেরালার ওয়ানাড়ে কংগ্রেসের প্রধান সভাপতি রাহুল গান্ধী (Rahul Gandhi) প্রার্থী হওয়ার ফলে তা হিন্দুত্বের মর্যাদা ক্ষুণ্ণ করেছে বলে মহারাষ্ট্রের ওয়ার্ধার জনসভায় যে দাবি করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PM Modi), তা মডেল কোড অব কন্ডাক্ট লঙ্ঘন করেনি বলে মঙ্গলবার জানিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন (Election Commission)। লোকসভা নির্বাচন (Lok Sabha election) চলাকালীন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ তুলেছে বিরোধীরা এবং তা নিয়ে অবগত করেছে নির্বাচন কমিশনকে, এই প্রথমবার তেমন একটি অভিযোগের প্রতিক্রিয়া সরাসরি জানানো হল নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে। মঙ্গলবার সকালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে দাখিল করা কংগ্রেসের পিটিশনের জন্য একটি নোটিশ সুপ্রিম কোর্টকে পাঠাল নির্বাচন কমিশন।

নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহের বিরুদ্ধে অভিযোগ যে, তাঁরা ‘বিদ্বেষমূলক বক্তব্য' পেশ করছেন একের পর এক এবং সশস্ত্র কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ‘রাজনৈতিক প্রোপাগান্ডা'র কাজে ব্যবহার করছেন।

রাফাল কাণ্ডে নতুন হলফনামা দিয়ে ক্ষমা চাইবেন রাহুল

মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ-এর নেতৃত্বাধীন বেঞ্চটি জানাল, এই মামলার শুনানি হবে আগামী বৃহস্পতিবার।

ঘটনার সূত্রপাত গত ১ এপ্রিল। মহারাষ্ট্রের ওয়ার্ধার একটি জনসভা থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী হিন্দুত্বকে অপমান করার জন্য সরাসরি তোপ দাগেন কংগ্রেসের বিরুদ্ধে।

“এখন এমন হয়েছে অবস্থা যে, কংগ্রেসি নেতারা এমন এমন কেন্দ্র থেকে লড়াই করতে ভয় পাচ্ছেন, যেখানে হিন্দু'র সংখ্যা বেশি। সংখ্যাগরিষ্ঠদের মুখোমুখি হতেই ভয় পাচ্ছে ওরা। যে কারণে, ভোটে দাঁড়াতে গেলেও এমন জায়গায় যেতে হচ্ছে ওদের, সেখানে সংখ্যাগুরুরাই সংখ্যালঘু”, বলেছিলেন নরেন্দ্র মোদী।