আগামী বছর মহালয়ার ৩৫ দিন পরে দুর্গাপুজো, ভাবুন একবার!

Kolkata's Durgapuja 2019:আজ ষষ্ঠী, দেবী দুর্গার বোধন, ষষ্ঠী থেকে দশমী চুটিয়ে শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপুজো উপভোগ করবেন বাঙালিরা

আগামী বছর মহালয়ার ৩৫ দিন পরে দুর্গাপুজো, ভাবুন একবার!

দুর্গাপুজোর আনন্দে মেতেছে রাজ্য তথা দেশবাসী, মণ্ডপে মণ্ডপে প্রতিমা দর্শনের ভিড় (ফাইল ছবি)

কলকাতা:

শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপুজোর (Durga Puja) আনন্দে এখন মাতোয়ারা শহর কলকাতা তথা গোটা রাজ্য এমনকি সমগ্র দেশও। বছরভর প্রতীক্ষার পরে মা আবার এসেছেন, ঘরে ঘরে তাই খুশির জোয়ার। আজ (শুক্রবার) ষষ্ঠী, মায়ের বোধন। এরপর সপ্তমী থেকে দশমীর আনন্দ দু'হাত ভরে লুটেপুটে নিতে চান বাঙালিরা, প্রতিমা দর্শন আর খাওয়া দাওয়ায় এখন তাই মশগুল আট থেকে আশি, সব্বাই। তবে কলকাতার বিখ্যাত (Kolkata's Durga Puja 2019) পান্ডেলগুলিতে তো চতুর্থী থেকেই জনজোয়ার। ষষ্ঠী, সপ্তমী, অষ্টমী, নবমী এবং দশমীতে যে সেখানে জনপ্লাবন দেখা দেবে তা আশাই করা যায়। সব গৃহস্থই চাইছেন মায়ের বাপের বাড়ি আগমনের এই কটা দিন পুরোদস্তুর উপভোগ করতে। তবে আনন্দ শুরু হতে হতেই সময়ের সঙ্গে সঙ্গে মায়ের বিদায়ের ক্ষণও ঘনিয়ে আসে। আসলে আসা আর যাওয়া তো প্রকৃতিরই নিয়ম। উঁহু, ভাববেন না যেন, বোধনের দিনেই (Durga Puja 2019) বিসর্জনের বাজনা বাজাচ্ছি। বরং আপানাদের জানিয়ে রাখি, আগামী বছর মা কবে আসছেন তাঁর বাপের বাড়িতে। আজ থেকেই শুরু করে দিন, তার কাউন্ট ডাউনও।

পুজোয় শহরে কড়া নিরাপত্তা, থাকছে সিসিটিভি, ড্রোনের নজরদারি

আগামী বছর (দুর্গাপুজো ২০২০) মহালয়া পড়েছে ১৭ সেপ্টেম্বর। কিন্তু আপনি যদি ভেবে থাকেন যে সামনের বছর দেবী দুর্গা তাড়াতাড়ি আসছেন মর্ত্যে, তাহলে সে গুড়ে বালি। আগামী বছর আশ্বিনে নয়, মা আসছেন কার্তিকে। হ্যাঁ, একদম ঠিকই পড়েছেন। আগামী বছর মহালয়া ১৭ সেপ্টেম্বর হলেও দেবী দুর্গার বোধন অর্থাৎ ষষ্ঠী পড়েছে তার ৩৫ দিন পরে, অর্থাৎ আশ্বিন পেরিয়ে কার্তিক মাসে। 

আসলে আগামী বছর দুটো অমবস্যা একমাসে পড়ায় আশ্বিন মাস মল মাস। ফলে পুজো পিছিয়ে কার্তিক মাসে চলে গেছে। সামনের বছর মহালয়া ১৭ সেপ্টেম্বর হলেও, ষষ্ঠী পড়েছে ২২ অক্টোবর। বিশুদ্ধ সিদ্ধান্ত এবং গুপ্ত প্রেস, দুই পঞ্জিকা মতেই এটা ঘটতে চলেছে।

Durga Puja 2019: রাত জেগেও ফ্রেশ! কীভাবে? জানাচ্ছেন রূপ বিশেষজ্ঞ শর্মিলা সিং ফ্লোরা

আপনি ভাবছেন, এমন কথা আগে কখনও শোনেন নি! না না, আপনাকে জানিয়ে রাখি, ঠিক এমন ঘটনাই ঘটেছিল ২০০১ সালেও। সুতরাং, মায়ের আগমনীবার্তা বেজে যাওয়ার পরেও মায়ের মর্ত্যে আগমনে দেরির ঘটনা এই প্রথম নয়। তবে ওই যে বলে না, ঘরের মেয়ের জন্যে বছর ভরের প্রতীক্ষা কখনো শেষ হয় নাকি? তাই আগামী বছর না হয় ধৈর্য্য ধরে কটা দিন অপেক্ষাই করলেন দেবী দুর্গার আগমনের পথের দিকে তাকিয়ে...। তবে এসব ভেবে এবারের পুজোর আনন্দ কম করবেন না যেন, সবাই খুব আনন্দে করে কাটান এবারের দুর্গাপুজো।

কীভাবে দুর্গাপুজোয় নিজেকে সুস্থ রাখবেন, জেনে নিন:

More News