This Article is From Mar 16, 2020

"আমাকে 'হে হুজুর,' বা 'ইওর লর্ডশিপ' বলে ডাকবেন না: কেন বললেন বিচারপতি এস মুরলিধর

গত ৬ মার্চ পঞ্জাব এবং হরিয়ানা হাইকোর্টের বিচারপতি হিসেবে শপথ নেন বিচারপতি মুরলিধর (S Murlidhar)।

বিচারপতি এস মুরলিধর

হাইলাইটস

  • পঞ্জাব এবং হরিয়ানা হাইকোর্টে বদলি হয়েছেন বিচারপতি এস মুরলিধর
  • আইনজীবীদের কাছে একটি অনুরোধ রেখেছেন তিনি
  • যেসমস্ত মামলা উঠবে তার সঙ্গে একটি নোট জুড়ে দেওয়া হয়

সদ্য দিল্লি হাইকোর্ট থেকে পঞ্জাব এবং হরিয়ানা হাইকোর্টে বদলি হয়েছেন বিচারপতি এস মুরলিধর (S Murlidhar) । আর সেখানে আইনজীবিদের কাছে একটি অনুরোধ করেছেন তিনি। তিনি বলেন আদালত কক্ষে তাঁকে সম্ভাষণ করার সময় যেন মাই লর্ড (My Lord) বা 'হে হুজুর' অথবা 'ইয়োর লর্ডশিপ' (Your Lordship) কেউ না বলেন। সোমবার পঞ্জাব এবং হরিয়ানা হাইকোর্টে (Punjab and Haryana High Court) যে সমস্ত মামলা উঠবে তার সঙ্গে একটি নোট জুড়ে দেওয়া হয়। যাতে বলা হয়েছে, "বার অ্যাসোসিয়েশনের শ্রদ্ধেয় সদস্যদের জন্য জানানো হচ্ছে যে সম্মানীয় বিচারপতি এস মুরলিধর একটি অনুরোধ করেছেন, তা হল তাঁকে যখন সম্ভাষণ করে কোন বক্তব্য রাখা হবে সে সময় যেন কেউ তাঁকে 'মাই লর্ড' বা 'হে হুজুর' না বলেন"।

উল্লেখ্য, কয়েক বছর আগেও চন্ডিগড় হাইকোর্টের বার অ্যাসোসিয়েশন তার সদস্যদের জানিয়েছিল যে সম্ভাষণ করার সময় যেন, 'মহাশয়', 'ইয়োর অনার' বলে সম্ভাষণ করা হয়। যদিও দেখা যায় যে প্রচুর আইনজীবী, ইওর লর্ডশিপের মতো শব্দই ব্যবহার করেন। গত ৬ মার্চ পঞ্জাব এবং হরিয়ানা হাইকোর্টের বিচারপতি হিসেবে শপথ নেন বিচারপতি মুরলিধর (Justice Murlidhar)।

২৬ শে ফেব্রুয়ারি দিল্লি হিংসার সময় দিল্লি হাইকোর্টের তরফ থেকে পুলিশের ভূমিকা সম্পর্কে প্রশ্ন তোলেন তিনি । পাশাপাশি উস্কানি মূলক ভাষণ দেওয়ার অভিযোগে তিন জন বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়েরের নির্দেশ দেন। তারপরেই তাঁকে পঞ্জাব এবং হরিয়ানা হাইকোর্টে বদলি করা হয়।

তাঁর ফেয়ারওয়েলের দিন বিচারপতি মুরলীধর (S Murlidhar) চলতে থাকা বিতর্ক সম্পর্কে মুখ খোলেন। তিনি বলেন, ভারতের প্রধান বিচারপতি এস এফ বোবদেকে উত্তর দিয়েছেন তিনি। জানিয়েছেন যে তিনি ঠিক আছেন এবং যে প্রস্তাব তাঁকে দেওয়া হয়েছে তাতে তাঁর কোনও আপত্তি নেই।