This Article is From Jun 13, 2019

রোগীদের ভোগান্তি হচ্ছে, চিকিৎসকদের ধর্মঘটে প্ররোচনা দিচ্ছে রাজনৈতিক দলগুলি: মমতা

মুখ্যমন্ত্রী (Mamata Banerjee) বলেন, “ক্যান্সার রোগী, কিনডির রোগী, দুর্ঘটনায় আহতএমনকী, শিশুদেরও বহুদূর থেকে চিকিৎসার জন্য আনা হয়েছে, তারা চিকিৎসা পাচ্ছে না”।

রোগীদের ভোগান্তি হচ্ছে, চিকিৎসকদের ধর্মঘটে প্ররোচনা দিচ্ছে রাজনৈতিক দলগুলি: মমতা
কলকাতা:

এনআরএস কাণ্ডের জেরে কর্মবিরতি (Doctors Strike) পালন করছেন রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা। আর তার জেরে সমস্যায় পড়েছে এই পরিস্থিতিতে মুখ্যমন্ত্রীর (Mamata Banerjee) অভিযোগ, বিষয়টিতে “ইন্ধন জোগাচ্ছে” কয়েকটি রাজনৈতিক দল।বিক্ষোভরত চিকিৎসকদের কর্মবিরতি (Doctors Strike) নিয়ে প্রথমে ৪ ঘন্টা এবং পরে দুপুর ২টো পর্যন্ত সময়সীমা বেঁধে দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee)। পরে ফেসবুকে মুখ্যমন্ত্রী, আহত চিকিৎসক এবং হাসপাতালের পরিস্থিতিতে “দুর্ভাগ্যজনক” বলে আখ্যা দেন। চিকিৎসাধীন এক রোগীর মৃত্যুকে হওয়ায়, দুই চিকিৎসককে মারধরের অভিযোগ ওঠে মৃতের পরিবারের বিরুদ্ধে। মুখ্যমন্ত্রী(Mamata Banerjee) বলেন, ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে, পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, রোগী মৃত্যুতে, চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ খতিয়ে দেখতে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

হেলমেট পরে চিকিৎসা করে বাংলার সমর্থনে AIIMS চিকিৎসকরা, কাল বয়কটের ডাক

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “ক্যান্সার রোগী, কিনডির রোগী, দুর্ঘটনায় আহতএমনকী, শিশুদেরও বহুদূর থেকে চিকিৎসার জন্য আনা হয়েছে, তারা চিকিৎসা পাচ্ছে না”। তাঁর কথায়, “পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে, তাদের জামিন খারিজ করেছে আদালত। জখম চিকিৎসকদের পূর্ণ যত্ন নিয়েছে আমাদের সরকার। আমাদের প্রার্থনা, উনি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠুন। খবর পাওয়া যাচ্ছে, তিনি স্থিতিশীল এবং তাঁর উন্নতি হচ্ছে”। সরকার সম্পূর্ণভাবে সহযোগিতা করছে এবং সমস্ত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করছে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী (Mamata Banerjee)। তাঁর অভিযোগ, “তা সত্ত্বেও, অন্য রাজনৈচিক দল থেকে প্ররোচনা আসছে, যে ফাঁদে কারও পড়া উচিত নয়”। তিনি অভিযোগ, করেন, হাসপাতালে গিয়ে দেখতে পান, “বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের বহিরাগতরা” হাসপাতালে ঢুকে স্লোগান দিচ্ছে, এবং জরুরি পরিষেবা বন্ধ করে দিয়েছে।

মমতার বিরুদ্ধে তোপ, স্বাস্থ্যমন্ত্রী থেকে পদত্যাগের দাবি বিরোধীদের

মুখ্যমন্ত্রী(Mamata Banerjee) বলেন, “রোগীরা কাঁদছে এবং আউটডোর পরিষেবা বন্ধ। জরুরি চিকিৎসার জন্য আমি কয়েকজন রোগীকে বেসরকারি হাসপাতালে পাঠিয়েছি। যে সমস্ত সিনিয়র চিকিৎসক এবং অধ্যাপক মানুষকে পূর্ণ সহযোগিতায় রাজি হয়েছেন, তাঁদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ”।

ফেসবুকে তিনি লেখেন, “তাঁদের সহযোগিতার জন্য আমি তাঁদের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞ।কিছু রাজনৈতিক দলের মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়ায় যে সমস্ত ভূল তথ্য ছড়ানো হয়েছে, সেগুলি মিথ্যা”। এর আগে চিকিৎসকদের একটি প্রতিনিধি দল রাজভবনে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর সঙ্গে দেখা করে তাঁদের পরিস্থিতি জানান এবং মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিক্রিয়াকে অপ্রত্যাশিত বলে মন্তব্য করেন। মুখ্যমন্ত্রী(Mamata Banerjee) বলেন, “কোনও দেরী না করে, আমি সবার কাছে আবেদন জানাচ্ছি, কোনও দেরী না করে যাতে দ্রুত রোগীদের চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া শুরু হোক”।