দয়া করে রাজ্যে বিভেদের রাজনীতি করতে আসবেন না: অমিতকে আক্রমণ মুখ্যমন্ত্রী মমতার

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “সকলকেই আমাদের রাজ্যে স্বাগত এবং আমাদের রাজ্যবাসীর আতিথেয়তা উপভোগ করুন। তবে দয়া করে কোনও বিভাজনমূলক রাজনীতি শুরু করবেন না... এসব বাংলায় কার্যকরী হবে না।”

দয়া করে রাজ্যে বিভেদের রাজনীতি করতে আসবেন না: অমিতকে আক্রমণ মুখ্যমন্ত্রী মমতার

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গত মাসেই দিল্লিতে অমিত শাহের সাথে দেখা করেছিলেন এবং নাগরিকপঞ্জি বিষয়ে কথা বলেছিলেন

কলকাতা:

পশ্চিমবাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) তাঁর ভোটার সংখ্যা বাড়াতে রাজ্যে অনুপ্রবেশকারীদের রাখতে আগ্রহী! মঙ্গলবার এই ভাষাতেই মুখ্যমন্ত্রীকে এনআরসি বিষয়ে আক্রমণ করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী (Union Home Minister) এবং বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ (BJP President Amit Shah)। পালটা উত্তরও দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতা বলেন যে, পশ্চিমবঙ্গে বিভাজনমূলক রাজনীতি কোনও কাজ করবে না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “সকলকেই আমাদের রাজ্যে স্বাগত এবং আমাদের রাজ্যবাসীর আতিথেয়তা উপভোগ করুন। তবে দয়া করে কোনও বিভাজনমূলক রাজনীতি শুরু করবেন না... এসব বাংলায় কার্যকরী হবে না।” দক্ষিণ কলকাতায় একটি পুজোর উদ্বোধন করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “দয়া করে বিভাজনমূলক রাজনীতির ধর্ম ছড়িয়ে দেবেন না। দয়া করে মানুষের মধ্যে ফাটল সৃষ্টি করবেন না। যুগে যুগেই বিভিন্ন আদর্শের নেতাদের সম্মান করে এসেছে বাংলা…এই ঐতিহ্য কখনই লুণ্ঠিত হতে পারে না।” 

তৃণমূল যতই বিরোধিতা করুক, নাগরিকত্ব আইন আনবই: কলকাতায় অমিত শাহ

অমিত শাহ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তার দল তৃণমূল কংগ্রেসকে আক্রমণের নিশানায় রেখেছেন সকাল থেকেই। কলকাতায় এসে অমিত শাহ ঘোষণা করেছেন যে, কেন্দ্র সরকার সারা দেশেই জাতীয় নাগরিক পঞ্জি তৈরি করবে এবং “তৃণমূল কংগ্রেস যতই বিরোধিতা করুক না কেন, বিজেপি এটা করবেই।” “যখন কম্যুনিস্টদের মানুষ ভোট দিয়েছিল তখনও দিদি এই একই মানুষদের বিরোধিতা করতেন। এখন যেহেতু ওই লোকজন তাঁকে ভোট দিচ্ছেন, তাই তিনি তাদের ধরে রাখতে চান,” বলেন অমিত শাহ। তৃণমূল সুপ্রিমো যে তাঁর দলের স্বার্থকেই সবার আগে রাখেন সেই অভিযোগ তুলে অমিত বলেন, “আমরা জাতীয় স্বার্থের আগে কোনও দলীয় স্বার্থকে এগিয়ে আসতে দিতে পারি না।”

“এনআরসি সম্পর্কে বাংলার মানুষকে বিভ্রান্ত করা হচ্ছে... আমি হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ, জৈন শরণার্থীদের আশ্বাস দিয়েছি যে তাদের দেশ ছেড়ে যেতে হবে না... তারা ভারতীয় নাগরিকত্ব পাবেন এবং নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল সংসদে পাস হলে তাঁরা যে কোনও ভারতীয়ের মতোই সমস্ত অধিকার ভোগ করবেন,” অমিত শাহ বলেন।

পুজো নিয়ে রাজনীতি বাঙালির অপছন্দ, অমিত শাহকে বিঁধে বললেন ফিরহাদ হাকিম

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গত মাসেই দিল্লিতে অমিত শাহের সাথে দেখা করেছিলেন এবং নাগরিকপঞ্জি বিষয়ে কথা বলেছিলেন। আসামের নাগরিকপঞ্জিতে ১৯ লক্ষ মানুষ যারা তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন তাঁদের মধ্যে অনেকেই ‘আসল ভোটার' ছিলেন বলে উল্লেখ করে তিনি অমিত শাহকে বলেছিলেন যে বাংলায় এনআরসির দরকার নেই।

আসামে নাগরিকদের তালিকা বাস্তবায়নের প্রেক্ষিতে ব্যাপক সমালোচনা হয়েছে। এমনকি আসামের বিজেপি নেতাদের একাংশও এই নাগরিক পঞ্জি নিয়ে সমালোচনা করেছিলেন। তাঁরা দাবি করেছেন যে, এই তালিকায় দলের মূল ভোটার গোষ্ঠীর মধ্যে থাকা বেশ কয়েকজন বাঙালি হিন্দুও রয়েছেন।

More News