প্রধানমন্ত্রীর পর দেবেন্দ্র ফড়নবিশ-এর কাছে এলো প্রাণনাশের হুমকি চিঠি

গাদচিরোলিতে 39 জন মাওবাদীকে হত্যা করার ঘটনা উল্লেখ করেই হুমকি চিঠি দুটি পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে মহারাষ্ট্র সরকারের কাছ থেকে।

প্রধানমন্ত্রীর পর দেবেন্দ্র ফড়নবিশ-এর কাছে এলো প্রাণনাশের হুমকি চিঠি

দু দুটি প্রাণনাশের হুমকি চিঠি পেলেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশ

মুম্বাই: বিতর্ক থেকে জানা যাচ্ছে যে প্রধান মন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পর এবার মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশ-এর কাছে মাওবাদী সংস্থা থেকে এলো মৃত্যুর হুমকি চিঠি যা মহারাষ্ট্র পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর অফিসে চিঠিটি এসেছে এক সপ্তাহ আগে বলে জানানো হয়েছে রাজ্য স্বরাষ্ট্র বিভাগ থেকে।

সূত্র থেকে জানা গেছে গাদচিরোলিতে নক্সাল বিরোধী যে কার্যকলাপ টি হয়েছিল যেখানে 39 জন মাওবাদীকে হত্যা করা হয়েছিল তার পরবর্তী সময়েই এই হুমকির চিঠি গুলি পাঠানো হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে যেগুলি পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে সম্পূর্ণ তদন্তের জন্য।

মন্ত্রনালয়ের সূত্র থেকে জানা গেছে যে দুটি চিঠিতেই গাদচিরোলির ঘটনার উল্লেখ করে ফাদনাভিস এবং তার পরিবারকে মৃত্যুর হুমকি দেওয়া হয়েছে।

পুনে পুলিশ বৃহস্পতিবার কোর্টে জানিয়েছে যে মাওবাদীদের পাঠানো চিঠির মধ্যে একটি সন্দেহভাজন চিঠিতে রাজীব গান্ধীকে হত্যা করার মতো প্রধান মন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকেও হত্যা করার পরিকল্পনা প্রকাশিত হয়েছে।

নিষিদ্ধ সিপিআই-মাওবাদী-দালিত কর্মী সুধীর ধাওয়ালে,আইনজীবী সুরেন্দ্র গালদিং,সক্রিয় কর্মী মহেশ রায়ট,শোভা সেন ও রোনা উইলসনের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে বুধবার পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ কর্তৃক বর্ণিত হয়েছে যে ভীমা-কোরেগাঁও জাতিগত সংঘর্ষের সঙ্গে জড়িত "নগরবাদী মাওবাদীদের শীর্ষস্থানীয় নেতা"-দের গ্রেফতার করা হয়েছে জানুয়ারিতে। প্রাপ্ত তথ্য থেকে জানা গেছে যে দিল্লি ভিত্তিক কর্মী রোনা উইলসনের বাড়ি থেকে চিঠি পাওয়া গেছে বলে পুলিশ সেশন কোর্টে দায়ের করেছে।

রোনা উইলসন পলিটিক্যাল প্রিজনার্স রিলিজ  কমিটির একজন সদস্য।

চিঠিতে 8 কোটি টাকা চাওয়া হয়েছে এম-4 রাইফেল কেনার জন্য। এছাড়া চার লাখ রাউন্ড কেনার কোথাও বলা হয়েছে। পাশাপাশি  রাজীব গান্ধী হত্যার মতো আরো একটি ঘটনা ঘটতে পারে তা চিঠি টি পাঠ করে কোর্টে জানিয়েছেন এক আইনজীবী।

এএনআই নিউজ এজেন্সি দ্বারা মুক্তিপ্রাপ্ত চিঠির একটি কপি থেকে জানা যায় যে চিঠিতে যা উদ্ধৃত আছে তা হলো ,"বিহার ও পশ্চিমবঙ্গের মত জায়গায় বড় পরাজয় সত্ত্বেও মোদী 15 টিরও বেশি রাজ্যে বিজেপি সরকারকে সফলভাবে প্রতিষ্ঠিত করেছে।যদি এই গতি অব্যাহত থাকে তবে এটি সব ফ্রন্টে দলের জন্য প্রবল সমস্যার কারণ হবে। কমরেড কিষাণ এবং কয়েকজন অন্য সিনিয়র কমরেডরা মোদির যুগের সমাপ্তির জন্য দৃঢ় পদক্ষেপের প্রস্তাব গ্রহণ করেছে"।

বিরোধিপক্ষের আইনজীবীদের মতে চিঠিগুলো সম্পূর্ণভাবে সাজানো।