Cyclone Bulbul: সাইক্লোন বুলবুলে বাংলাদেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩: রিপোর্ট

Cyclone Bulbul : সাইক্লোন বাংলাদেশে আছড়ে পড়ায় ভেঙে পড়ে বহু ঘরবাড়ি, উপড়ে পড়েছে বহু গাছ এবং বহু মানুষ ঘরছাড়া হয়েছেন বলে সংবাদমাধ্যমে খবর

Cyclone Bulbul: সাইক্লোন বুলবুলে বাংলাদেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩: রিপোর্ট

Cyclone Bulbul: রবিবার ঘন্টায় ১২০ কিলোমিটার বেগে সাইক্লোন বুলবুল আছড়ে পড়ে বাংলাদেশে।

ঢাকা:

সাইক্লোন বুলবুলের (Cyclone Bulbul) প্রভাবে তছনছ বাংলাদেশ (Bangladesh), অন্তত ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং ২০ জন আহত হয়েছেন। শক্তিশালী সাইক্লোন বাংলাদেশে আছড়ে পড়ায় ভেঙে পড়ে বহু ঘরবাড়ি, উপড়ে পড়েছে বহু গাছ এবং বহু মানুষ ঘরছাড়া হয়েছেন বলে সংবাদমাধ্যমের খবরে জানা গিয়েছে। রবিবার ঘন্টায় ১২০ কিলোমিটার বেগে সাইক্লোন বুলবুল আছড়ে পড়ে বাংলাদেশে। bdnews24.com এর রিপোর্টে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলবর্তী এলাকার প্রায় ৫,০০০ ঘর ভেঙে পড়েছে। সরকারের কর্তৃপক্ষকে উদ্ধৃত করে জানানো হয়েছে, “এখনও পর্যন্ত ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে”। দক্ষিণ বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় প্রাণহানি হয়েছে, তারমধ্যে রয়েছে, খুলনা, বারগুনা, এবং গোপালগঞ্জসহ অন্যান্য এলাকা।

ঘূর্ণিঝড় "বুলবুল" আছড়ে পড়ায় কতটা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বাংলার, খতিয়ে দেখবেন মুখ্যমন্ত্রী

ঢাকা ট্রিবিউনের খবরে জানানো হয়েছে, শরিয়াতপুরে ৬৫ বছরের এক বৃদ্ধ ঘুমাচ্ছিলেন, সেই সময় তাঁর ঘরে গাছ ভেঙে পড়ে ওই বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। ঝড়ের সময় গাছ পড়ে গোপালগঞ্জের দুটি জায়গায় এক মহিলাসহ দুজনের মৃত্যু হয়েছে। বাংলাদেশের বিপর্যয় মোকাবিলা এবং ত্রাণের রাষ্ট্রমন্ত্রী এনামুর রহমানকে উদ্ধৃত করে জানানো হয়েছে, “দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলবর্তী এলাকায় প্রায় ৫,০০০ ঘর ভেঙে পড়েছে সাইক্লোনের প্রভাবে”।

অন্তবর্তী নদী উপূলবর্তী অংশে বোট এবং ফেরি সার্ভিস বন্ধ রেখেছে কর্তৃপক্ষ এবং উপকূলবর্তী বন্দরের এয়ার ট্রাফিক অপারেশনও বন্ধ রাখা হয়েছে ২৪ ঘন্টার জন্য। ক্ষতিগ্রস্তদের আশ্রয় দিতে নিরাপদ ব্যবস্থা করেছে বাংলাদেশ সরকার। মন্ত্রী এনামুর রহমান বলেন, “ ৫,৭৮৭টি আশ্রয়স্থলে প্রায় ২.১ মিলিয়ন মানুষকে আশ্রয় দেওয়া হয়েছে সাইক্লোনের সময়”। সাইক্লোনের প্রভাবে শীতের ফসলও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানান তিনি। তাঁর কথায়, “ক্ষতিগ্রস্ত ফসলের পরিমাপ করবে কৃষিমন্ত্রক, তারপরেই যথাযথ সাহায্য করা হবে”।

'বুলবুল'-কে ঘিরে "কুম্ভিরাশ্রু বিসর্জন" কেন্দ্রের: বললেন মন্ত্রী জাভেদ খান

শনিবার ১৩টি উপকূলবর্তী জেলার সরকারি আধিকারিকদের ছুটি বাতিল করে দেয় সরকার। সাইক্লোনের মোকাবিলায় সেনাবাহিনীও নামানো হয় বলে রিপোর্টে জানানো হয়েছে। দেশের সমুদ্রের বন্দরে সমস্ত কাজ সাময়িক বন্ধ রেখেছে সরকার, তারমধ্যে রয়েছে চট্টোগ্রাম বন্দরও, বাংলাদেশের রফতানির প্রায় ৮০ শতাংশই হয় এই বন্দর থেকে।  

আটলান্টিক অঞ্চলের হ্যারিকেট ১, বা ২ এর সমান এই ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। 

বাংলাদেশ উপকূলবর্তী এলাকায় প্রায়ই আছড়ে পড়ে সাইক্লোন, তবে প্রাকৃতিক বিপর্যয় মোকাবিলা করতে ব্যবস্থা নিয়েছে বাংলাদেশ, ফলে সম্প্রতি কয়েকবছরে সেদেশে ঘূর্ণিঝড়ে মৃতের সংখ্যা কমেছে।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)
More News