করোনা সংক্রমণ ছড়ানোর অভিযোগে টার্গেট করা হচ্ছে মুসলিমদের! "অপপ্রচার", বলল ভারত

বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব জানান, উপসাগরীয় দেশগুলির সঙ্গে ভারতের যথেষ্ট বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ও তা এখনও বজায় রাখতে চায় ভারত সরকার

করোনা সংক্রমণ ছড়ানোর অভিযোগে টার্গেট করা হচ্ছে মুসলিমদের!

৫৭ টি দেশের জোট ওআইসি সম্প্রতি ভারতে "ইসলামফোবিয়া" সৃষ্টির অভিযোগ করেছে (ফাইল চিত্র)

হাইলাইটস

  • ভারতে করোনা ভাইরাস ছড়াচ্ছে মুসলিমরাই, এই অভিযোগে নাকি আক্রান্ত তাঁরা
  • দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে আক্রমণের লক্ষ্য করা হচ্ছে, অভিযোগ করছে আরব
  • সমস্ত অপপ্রচার উড়িয়ে কড়া ভাষায় উপসাগরীয় দেশকে জবাব দিল ভারত
নয়া দিল্লি:

করোনা পরিস্থিতি ভারত জুড়ে ক্রমেই ছড়িয়ে পড়ছে মুসলিম বিদ্বেষ (Islamophobic) , আতঙ্কে ভুগছেন দেশের মুসলিম সম্প্রদায়ের (Muslims) মানুষজন, আরব দুনিয়ায় এখন নাকি এই বিষয়টিই চর্চার তুঙ্গে। টুইটারে সেদেশের তরফ থেকে এমন অভিযোগ করা হয়েছে যে, ভারতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে দিচ্ছে মুসলিমরা এই অজুহাতে দেশের বেশ কয়েকটি জায়গায় আক্রমণ করা হচ্ছে ওই সম্প্রদায়ের মানুষজনকে। এই অভিযোগের তীব্র সমালোচনা করে ভারতের তরফে জানানো হয়েছে যে এগুলো পুরোপুরিই অপপ্রচার। কেন্দ্রীয় বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব (Anurag Srivastava) কড়া ভাষায় জানিয়েছেন, উপসাগরীয় দেশগুলির সঙ্গে ভারতের যথেষ্ট বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক এবং এই সম্পর্ক বজায় রাখার ব্যাপারে গভীরভাবে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ভারত সরকার। তাই আশা করা হচ্ছে তারা এই দেশের কোনও অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করবে না তারা, আর যদি হস্তক্ষেপের কেউ চেষ্টা করে তবে তা মেনে নেওয়া হবে না। আরবের সঙ্গে ভারতের ঘনিষ্ঠ এবং ঐতিহ্যবাহী সম্পর্কের কথা মনে করিয়ে দিয়ে ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র আরও বলেন, নয়া দিল্লি রমজানের সময় ওই দেশের সঙ্গে গভীর বন্ধুত্ব বজায় রাখতে সেদেশে নিরবচ্ছিন্নভাবে খাদ্য এবং প্রয়োজনীয় পণ্য সরবরাহ করে যাবে।

সুখবর! গত ২ সপ্তাহে করোনা হটস্পটের এলাকা ক্রমশই কমছে, জানাল সরকার

অনুরাগ শ্রীবাস্তব একথাও বলেন যে, বলেন, বেশ কয়েকটি উপসাগরীয় দেশ করোনা ভাইরাসের পরবর্তী অর্থনৈতিক দৈনতা থেকে ঘুরে দাঁড়াতে ভারতের সঙ্গে আলোচনা করতে চাইছে। "এটা ভেবে দেখতে হবে, যে দেশগুলির সঙ্গে আমাদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক রয়েছে সেই দেশগুলোর তরফে যদি স্ট্রে ট্যুইট ব্যবহার করা হয় তাহলে তা বরদাস্ত করা যায় না" ।

পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরাতে প্রথম ট্রেন, তেলেঙ্গানা থেকে ঝাড়খণ্ড রওনা হল সেটি

ভারতের বেশ কয়েকটি অংশে COVID- 19 ছড়িয়ে দেওয়ার দায় চাপানো হচ্ছে মুসলমানদের উপর এই অভিযোগে বিভিন্ন আরব দেশ থেকে সমাজকর্মী ও অন্যান্য নাগরিকরা টুইটারে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। ৫৭ টি দেশের জোট ওআইসি সম্প্রতি ভারতে "ইসলামফোবিয়া" সৃষ্টির অভিযোগ করেছে । যদিও ভারতের পক্ষ থেকে এই সমস্ত অভিযোগকে অপপ্রচার বলে উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

"আমরা এই দেশগুলিতে রমজানের সময়ে তাঁদের যে বিপুল পরিমাণ খাদ্য এবং প্রয়োজনীয় পণ্যের প্রয়োজন হয় সেসবের নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্যে বিশেষ প্রচেষ্টা করছি। এই পরিস্থিতিতেও আমাদের এই প্রচেষ্টা সর্বস্তরে প্রশংসিত হয়েছে। করোনা পরিস্থিতি থেকে ঘুরে দাঁড়াতে এই দেশগুলিও ভারতের সঙ্গে আলোচনা করতে চায়", বলেন বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর, দু'জনেই করোনা ভাইরাসের মহামারীর পরিস্থিতিতে আরব উপসাগরীয় দেশগুলোর পাশে দাঁড়িয়েছেন এবং সেখানকার পরিস্থিতির দিকে নিয়মিত নজর রাখছেন।

"ওই দেশগুলো ভারতকে ওষুধ ও চিকিৎসা দল পাঠানোর জন্য অনুরোধ করেছে। আমরা ইতিমধ্যেই কুয়েতে একটি র‌্যাপিড রেসপন্স টিম পাঠিয়েছি। এরপরেও তারা ভারত থেকে চিকিৎসক ও নার্স পাঠানোর অনুরোধ করেছে", বলেন শ্রীবাস্তব।

ভারত ওই দেশগুলোর সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখতে বদ্ধপরিকর। তাই এবার ওই দেশের তরফ থেকেও এই বিষয়ে কড়া নজর রাখা হোক যাতে ভারত সম্পর্কে কোনও ধরণের অপপ্রচার সেদেশের টুইটার ব্যবহারকারীরা না চালায়। সমস্ত রকম অপপ্রচার বন্ধ হোক এটাই চায় ভারত, স্পষ্ট করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে বিদেশমন্ত্রকের তরফে।