আইসিএমআর নিম্নমানের "টেস্টিং কিট" পাঠানোয় রাজ্যে করোনা পরীক্ষায় বিলম্ব!

Coronavirus: বিষয়টি খতিয়ে দেখুক আইসিএমআর, টুইটে অনুরোধ জানানো হল পশ্চিমবঙ্গ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের তরফে

আইসিএমআর নিম্নমানের

Coronavirus: আইসিএমআরের সরবরাহ করা কিটগুলো করোনা পরীক্ষার ঠিকঠাক ফলাফল দিচ্ছে না, অভিযোগ পশ্চিমবঙ্গ সরকারের

হাইলাইটস

  • আইসিএমআর রাজ্যকে যে করোনা টেস্ট কিট পাঠিয়েছে তা উচ্চমানের নয়
  • আইসিএমআরকে টুইট করে অভিযোগ জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার
  • বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে, জানিয়েছে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ
কলকাতা:

কোনও ব্যক্তির শরীরে COVID-19 আক্রমণ করেছে কিনা তা বোঝার জন্যে তৎক্ষণাৎ করোনা টেস্ট করা প্রয়োজন। আর এখানেই রাজ্যে ঘটছে বিপত্তি। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের অভিযোগ, করোনা ( West Bengal Coronavirus) পরীক্ষার জন্যে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর মেডিকেল রিসার্চ (ICMR) যে কিটগুলো পাঠিয়েছে উপযুক্ত মানের নয়, ফলে ওই কিটগুলো (ICMR Faulty Kit) দিয়ে পরীক্ষা করলে ফল সবসময় সঠিক আসছে না। ফলে রাজ্যে করোনা (Coronavirus) টেস্ট করার গতিতে বিলম্ব হচ্ছে। এই করোনা টেস্টের কিটগুলোর মান সংক্রান্ত বিষয়টি খতিয়ে দেখুক আইসিএমআর, টুইটে অনুরোধ জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ। কেননা যেভাবে গোটা দেশের মতো করোনা ভাইরাস এ রাজ্যেও একের পর এক মানুষের দেহে বাসা বাঁধছে তাতে করোনা টেস্ট যত তাড়াতাড়ি সম্ভব করা প্রয়োজন। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, পশ্চিমবঙ্গে এখনওপর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩১০ জন এবং এঁদের মধ্যে ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। বিশেষ করে গত ৩ দিনে রাজ্যে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ।

“কোভিড ১৯ জাতি, ধর্ম, বর্ণ দেখে আসে না”, বললেন প্রধানমন্ত্রী মোদি

কলকাতায় অবস্থিতি আইসিএমআরের নোডাল বডির এক কর্তা জানিয়েছেন যে টেস্টিং কিট সংক্রান্ত বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা হচ্ছে।

"এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক যে কিটগুলি সঠিক ফলাফল দেওয়ার মতো উপযুক্ত মানের নয়। প্রতিটি ডিকেল কলেজে আলাদা করে আগে এই কিটগুলোর মাননির্ণয় করাও এই পরিস্থিতিতে একরকম অসম্ভব। সব কিট সমমানের নয়, ফলে মেডিক্যাল কিটগুলো একেক সময় একেক ফল দেখাচ্ছে", বলেন কলকাতার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ কলেরা এবং এন্টারিক ডিজিজের নির্দেশক ডঃ শান্ত দত্ত।

"আইসিএমআর-এনআইসিইডি যে কিটগুলো সরবরাহ করেছে আপাতদৃষ্টিতে সেগুলো উপযুক্ত মানের নয়, তাতে সমস্যা আছে। এর ফলে আমাদের একই পরীক্ষা বারবার করতে হচ্ছে। যখন আমরা এই ভয়ঙ্কর মহামারীর সঙ্গে লড়াই করছি তখন এইধরণের বিলম্ব আরও বেশি করে সমস্যা সৃষ্টি করছে", একথাও বলা হয় টুইটে।

কিছুতেই মাস্ক পরবে না ছেলে! রেগে গিয়ে খুন করল বাবা, চাঞ্চল্য শোভাবাজারে

রবিবার রাজ্য সরকার এক বিবৃতিতে জানায়, পশ্চিমবঙ্গ সরকার COVID- 19 আক্রান্ত রোগীদের দ্রুত শনাক্ত করতে অ্যান্টিবডি ও পুল পরীক্ষা শুরু করবে। পুল টেস্টের মাধ্যমে করোনা ভাইরাসের জন্যে গণ পরীক্ষা অনেক কম খরচে করা যায়, জানায় ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিকেল রিসার্চ। দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১৬,০০০-ছাড়িয়ে যাওয়ার কারণে গণ পরীক্ষার বিষয়টি আরও বেশি করে গুরুত্ব পেয়েছে।