চিনে কান্নায় ভেঙে পড়া সন্তানকে দূর থেকেই আলিঙ্গন নার্স মায়ের, বিহ্বল নেট বিশ্ব

আর্তের সেবায় ব্যস্ত মা। তাই সন্তানকে ছুঁয়ে বা জড়িয়ে ধরে তার কান্না থামানোর পরিবেশ বা অবসর কোনওটাই নেই। ফলে দূর থেকে মেয়েকে আদর ছুঁড়ে দিলেন এক নার্স। চিনের হেনান প্রভিন্সের (Henan Province) এই বেদনাদায়ক ঘটনাতে এখন নেটিজেনদের চোখে জল।

চিনে কান্নায় ভেঙে পড়া সন্তানকে দূর থেকেই আলিঙ্গন নার্স মায়ের, বিহ্বল নেট বিশ্ব

আর্তের সেবায় ব্যস্ত পেশায় নার্স এক মা। তাই সন্তানকে ছুঁয়ে বা জড়িয়ে ধরায় নিষেধ। দূর থেকে মেয়েকে আদর ছুঁড়ে দিলেন এক নার্স। চিনের হেনান প্রভিন্সের এই বেদনাদায়ক ঘটনায় এখন নেটিজেনদের চোখে জল।

হাইলাইটস

  • করোনা আক্রান্তদের সেবায় ব্যস্ত ওই নার্স
  • ফলে বহুদিন মাতৃসঙ্গ পায়নি তাই মেয়ে
  • সেই আবদার ও চোখে জল নিয়ে হাসপাতালে মায়ের কাছে সন্তান
ঝুকৌ, চিন:

আর্তের সেবায় ব্যস্ত মা। তাই সন্তানকে ছুঁয়ে বা জড়িয়ে ধরে তার কান্না থামানোর পরিবেশ বা অবসর কোনওটাই নেই। ফলে দূর থেকে মেয়েকে আদর ছুঁড়ে দিলেন এক নার্স (A Chinese Nurse)। চিনের হেনান প্রভিন্সের (Henan Province) এই বেদনাদায়ক ঘটনাতে এখন নেটিজেনদের চোখে জল। জানা গিয়েছে, করোনাভাইরাসের রোগীদের চিকিৎসার স্বার্থে (bound to treat Coronavirus patents) বাইরের জগতের সঙ্গে এখন যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন চিনের চিকিৎসকও নার্সদের। তাই চিনের জিনহুয়া নিউজের টুইট করা একটা ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, বহুদিন ধরে মাতৃসঙ্গ না পেয়ে অঝোরে কেঁদে চলেছে এক শিশু (Sobbing Daughter)। কিন্তু সন্তানকে স্পর্শ করে বা গলা জড়িয়ে সেই কান্না থামাতে অপারগ তার মা, পেশায় নার্স এক তরুণী। তাই সান্ত্বনা দিতে দূর থেকেই হাত ছড়িয়ে (Air Hug) তাকে আদর করছেন ওই নার্স। এমনকি, সেই মাকে বলতে শোনা গিয়েছে, "তোমার মা দৈত্যের সঙ্গে লড়াই করছে। সেই দৈত্যকে মেরেই মা বাড়ি ফিরবে।" এদিকে আর পাঁচজন চাকুরীজীবী মায়ের মতোই সেই নার্স তাঁর মেয়েকে পরামর্শ দিয়েছে ভাল ও সুস্থ হয়ে থাকার জন্য। পাশাপাশি অনেক দিন পর মাকে দেখতে আসবে, তাই সঙ্গে কিছু খাবার নিয়ে এসেছিল ওই মেয়ে। যেটা মায়ের থেকে কয়েকফুট দূরে রেখেই ফিরে যেতে হয়েছে তাকে। শেষবার হাত নাড়িয়ে হাসপাতাল ছাড়ে ওই কিশোরী। যেহেতু করোনা ভাইরাস নিশ্বাস-প্রশ্বাসের সঙ্গে ছড়াচ্ছে তাই কয়েকফুট দূর থেকেই মা ও মেয়ে ভাগ করে নিয়েছে তাদের বিচ্ছেদ যন্ত্রণা। 

Corona Virus: চিনে মহামারি! করোনা ভাইরাসে মৃত বেড়ে ৮১১, আক্রান্ত ৩৭ হাজার

 মাকে দেখে আলিঙ্গনে উদ্যত সেই মেয়ে। দেখুন ছবিতে। 

mkj6cft

জানা গিয়েছে, এই ভাইরাসে এখনও পর্যন্ত চিনে মৃত্যুর সংখ্যা ৮০০ ছাড়িয়েছে। ২০০২-০৩ সালে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া সার্স ভাইরাসের থেকেও বেশি করোনাতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা। এমনটাই দাবি করেছে সংবাদ সংস্থা  এএফপি। চিনের উহান শহর থেকে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাস সাড়া বিশ্বের প্রায় ২৭ টি দেশে সংক্রমিত।
ছিন্ন গোলাপের পাপড়ি, কলকাতায় বন্ধুদের দ্বারা ধর্ষণের শিকার নাবালিকা!

এই ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল হুবেই প্রদেশে যেন এখন শ্মশানের নিস্তব্ধতা। প্রায় ৫৬ মিলিয়ন মানুষকে ঘরবন্দি করেছে চিন সরকার। গৃহবন্দি অবস্থাতেই তাঁরা পালন করেছে চিনা নববর্ষ। এদিকে, ভারত-সহ জার্মানি, গ্রেট ব্রিটেন, অস্ট্রেলিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, বিশেষ বিমান পাঠিয়ে সে দেশে আটক নাগরিকদের নিজেদের ঘরে ফিরিয়েছে। সন্দেহভাজনদের রাখা হয়েছে বিশেষ পর্যবেক্ষণে। 

(IANS থেকে সংগৃহীত)

More News