ভারতকে ১ লক্ষ ৭০হাজার পিপিই দান করছে চিন! সিঙ্গাপুর থেকে ভারতে আসবে কিট!

৮০ লক্ষ পিপিই-র অর্ডার সিঙ্গাপুরের একটি কোম্পানিকে দেওয়া হয়েছে। সূত্রের খবর ১১ এপ্রিল থেকে এই পিপিই ভারতে এসে পৌঁছতে শুরু করবে।

ভারতকে ১ লক্ষ ৭০হাজার পিপিই দান করছে চিন! সিঙ্গাপুর থেকে ভারতে আসবে কিট!

ভারত সরকারের ১ লক্ষ ৭০ হাজার PPE দান করেছে চিন। ভারতের কাছে এর আগে মাত্র ২০ হাজার পিপিই ছিল।

নয়াদিল্লি:

ভারতবর্ষে করোনাভাইরাসের সঙ্কট তীব্রতর হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে মানুষকে তথা স্বাস্থ্যকর্মীদের বাঁচাতে ভারতকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে চিন। ভারত সরকারের ১ লক্ষ ৭০ হাজার PPE বা পার্সোনাল প্রোটেক্টিভ ইক্যুইপমেন্ট দান করেছে চিন। ভারতের কাছে এর আগে মাত্র ২০ হাজার পিপিই ছিল। চিন থেকে মেলা এই বিপুল সাহায্যের পরে স্বাভাবিকভাবেই দেশের রাজ্যগুলিতে পিপিইর সংখ্যা বেড়েছে। এই পিপিই হাসপাতাল গুলিতে পৌঁছানো হবে। উল্লেখ্য যে, এর আগে চিন ভারতকে ভেন্টিলেটর দিয়েও সাহায্যের প্রস্তাব দিয়েছে।

এর আগে সরকার ২০ লক্ষেরও বেশি N95 মাস্ক হাসপাতালগুলিকে দিয়েছে। আপাতত ১৬ লক্ষ N95 মাস্ক সরকারের কাছে রয়েছে। তারই সঙ্গে ৮০ লক্ষ পিপিই-র অর্ডার সিঙ্গাপুরের একটি কোম্পানিকে দেওয়া হয়েছে। সূত্রের খবর ১১ এপ্রিল থেকে এই পিপিই ভারতে এসে পৌঁছতে শুরু করবে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, দেশের বহু রাজ্যেই পিপিই-এর পরিমাণ কম জানিয়ে সরকার নিজের উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। চিন থেকে এই পিপিই পাওয়া গেলে আপাতত সেই ঘাটতি দ্রুত পূরণ করা যাবে বলেই আশা।

যদিও ভারতে দ্রুত গতিতে বাড়ছে করোনাভাইরাস সংক্রমণ। কেবল আক্রান্ত নয়, পাল্লা দিয়েই বেড়েছে কোভিড-১৯ মহামারীতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যাও। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া বিবৃতি অনুসারে ভারতবর্ষে করোনা আক্রান্তের সংখ্যে ৪ হাজার ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ১১১ জনের এবং ৪২৮১ জন এই মুহূর্তে সংক্রমণের আওতায়। সুস্থ হয়ে যাওয়া মানুষদের সংখ্যা ৩১৯। গত ২৪ ঘণ্টায় ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ৭০৪ টি নতুন ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে। আপাতত ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত দেশে জারি রয়েছে ২১ দিন ব্যাপী লকডাউন।