This Article is From Jun 15, 2020

দিল্লি ও এনসিআর-এর সংক্রমণ নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠকে অমিত শাহ

শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টে উত্তরপ্রদেশ জানিয়েছে, তারা সফর নিয়ন্ত্রণে জোর দেবে। কারণ নয়ডা, গাজিয়াবাদের চেয়ে ৪০% বেশী সংক্রমণ দিল্লিতে

দিল্লি ও এনসিআর-এর সংক্রমণ নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠকে অমিত শাহ

ভারতে করোনা ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ৩,২০,৯২২ জন

নয়াদিল্লি:

দিল্লি ও এনসিআর এলাকায় সংক্রমণ (Corona cases in Delhi and NCR) পরিস্থিতি পর্যালোচনায় নর্থ ব্লকে বৈঠকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সর্বদলীয় এই বৈঠকে দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ আর হরিয়ানার কিছু অংশ নিয়ে আলোচনা চলছে বলে খবর। সুপ্রিম কোর্টের সাম্প্রতিক পর্যবেক্ষণের পর সোমবার চলা এই বৈঠকে আমন্ত্রিত আম আদমি পার্টির, সমাজবাদী পার্টি, বহুজন সমাজ পার্টি-সহ কংগ্রেস ও বিজেপি। ইতিমধ্যে দিল্লির সঙ্গে সীমান্ত সিল করেছে উত্তরপ্রদেশ, হরিয়ানা। সেই রাজ্যের সরকারি তরফে দাবি, আন্তঃরাজ্য গতিবিধি আটকানো না গেলে আরও বাড়বে সংক্রমণ। এদিকে, শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টে (Supreme Court) উত্তরপ্রদেশ জানিয়েছে, তারা সফর নিয়ন্ত্রণে জোর দেবে। কারণ নয়ডা, গাজিয়াবাদের চেয়ে ৪০% বেশী সংক্রমণ দিল্লিতে। তবে হরিয়ানা বলেছিল, তারা সফরে কোনও নিয়ন্ত্রণ রাখবে না। যে কেউ আন্তঃরাজ্য সফর করতে পারবে। এদিকে, সোমবার সকালে দিল্লির নিরিখে একাধিক ঘোষণা করেন অমিত শাহ (All party meet with Amit Shah) সেই বৈঠকে ছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন আর রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা দল।

দিল্লি কংগ্রেসের প্রধান অনিল কুমার টুইট করেন, “আমি কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের থেকে আমি একটি বার্তা পেয়েছি যে, তিনি আগামিকাল দিল্লি এবং সারাদেশে করোনা নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠক ডেকেছেন”।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ কমার তো কোনও লক্ষণই নেই, বরং দিনে দিনে সেই সংখ্য়া বেড়েই চলেছে। সোমবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্য়ান অনুসারে গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে ওই রোগে আক্রান্ত হয়েছেন ১১,৫০২ জন। এর ফলে দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের মোট সংখ্যা বেড়ে ৩,৩২,৪২৪ এ গিয়ে দাঁড়িয়েছে। গত একদিনের মধ্যে আরও ৩২৫ জন মারা গেছে। ফলে এখনও পর্যন্ত এদেশে করোনা প্রাণ কাড়ল ৯,৫২০ জনের। দেশের বিভিন্ন রাজ্যে যে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়েছে তার মধ্যে শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র, সেখানে মোট আক্রান্ত ১,০৭,৯৫৮ জন। এর পরেই রয়েছে তামিলনাড়ু, দিল্লি এবং গুজরাট।