This Article is From May 13, 2020

অতি ক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পক্ষেত্রে ৩ লক্ষ কোটি টাকা ঋণ দিতে পারে কেন্দ্র

লকডাউনের ধাক্কায় সবচেয়ে বেহাল দশা ছোট ব্যবসার। খনি, নির্মাণ, পরিষেবা ইত্যাদি ক্ষেত্রেপ্রায় ১০ কোটি কর্মী কাজ করেন। তাঁরা কাজ হারিয়েছেন।

বুধবার বিকেল ৪টের সময় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন সাংবাদিক সম্মেলনে এবিষয়ে চূড়ান্ত ঘোষণা করতে পারেন।

নয়াদিল্লি:

করোনা ভাইরাস (Coronavirus) ও ৫০ দিনের লকডাউনের (Lockdown) প্রভাবে অর্থনীতির বেহাল দশা কাটাতে সরকার ছোট ও মাঝারি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের ক্ষেত্রে তিন মাসের বেতন দেওয়ার ব্যাপারে ভাবনাচিন্তা করছে বলে সূত্রানুসারে বুধবার জানা গিয়েছে। পাশাপাশি পরিকল্পনা রয়েছে সর্বোচ্চ ৩ লক্ষ কোটি টাকা ছোট ও মাঝারি ব্যবসার ক্ষেত্রে ঋণ দেওয়ার ক্ষেত্রেও। মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ২০ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজের কথা ঘোষণা করেছেন। কোভিড-১৯ ভাইরাসের সংক্রমণের ধাক্কায় অর্থনীতির বেহাল দশা কাটাতে চেষ্টা করতেই এই প্রয়াস বলে জানান তিনি।

সূত্রানুসারে জানা গিয়েছে, কেন্দ্রীয় অতি ক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উদ্যোগ ক্ষেত্রের কর্মীদের প্রভিডেন্ট ফান্ডের শেয়ারও সরকারের তরফে দিয়ে দেওয়া হবে। অবশ্য সর্বোচ্চ ৩০,০০০ টাকা বেতনভোগীদের ক্ষেত্রেই এটা প্রযোজ্য হবে। বর্তমানে সেই সীমা ১৫,০০০ টাকা। এর কারণে সরকারের অতিরিক্ত ৫,০০০ কোটি টাকা খরচ হবে।

পাশাপাশি সূত্রানুসারে আরও জানা যাচ্ছে, কেন্দ্রীয় অতি ক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উদ্যোগ ক্ষেত্রে কর্মীদের এপ্রিল থেকে জুন মাসের বেতন ‘এমপ্লয়ি স্টেট ইনশিওরান্স কর্পোরেশন'-এর পক্ষ থেকে।

বুধবার বিকেল ৪টের সময় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন সাংবাদিক সম্মেলনে এবিষয়ে চূড়ান্ত ঘোষণা করতে পারেন।

লকডাউনের ধাক্কায় সবচেয়ে বেহাল দশা ছোট ব্যবসার। খনি, নির্মাণ, পরিষেবা ইত্যাদি ক্ষেত্রেপ্রায় ১০ কোটি কর্মী কাজ করেন। তাঁরা কাজ হারিয়েছেন।

বহু রাজ্য সরকারকে চিঠি লিখে আর্জি জানায়, ‘এমপ্লয়ি স্টেট ইনশিওরান্স ফান্ড'-এর তহবিল ব্যবহারের অনুমতি দিতে।