This Article is From May 11, 2020

পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরানোর ব্যাপারে উদাসীন রাজ্য সরকার: অধীর চৌধুরী

Coronavirus Lockdown: কংগ্রেস নেতা বলেন, কেন্দ্র বলেছে যে, আটকে পড়া শ্রমিকদের নিজেদের রাজ্যে ফেরাতে প্রতিদিন দেশে ৩০০টি "শ্রমিক স্পেশাল" ট্রেন চালাবে

পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরানোর ব্যাপারে উদাসীন রাজ্য সরকার: অধীর চৌধুরী

Adhir Ranjan Chowdhury: কংগ্রেস সাংসদ জানান, বর্তমানে ভারতীয় রেলের ১২,৬১৭ টি ট্রেন বন্ধ রয়েছে (ফাইল চিত্র)

হাইলাইটস

  • রাজ্যের শ্রমিকদের ট্রেনের মাধ্যমে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করুক রাজ্য সরকার
  • ফের একবার মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে এই বার্তা দিলেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী
  • পরিযায়ীদের ব্যাপারে উদাসীন রাজ্য সরকার, এমন অভিযোগ করেন ওই কংগ্রেস নেতা
কলকাতা:

লকডাউনের (Coronavirus Lockdown) কারণে দেশের বিভিন্ন জায়গায় পশ্চিমবঙ্গের (West Bengal) অসংখ্য পরিযায়ী শ্রমিক আটকে রয়েছেন এবং অত্যন্ত দুর্দশার মধ্যে রয়েছেন, অথচ তাঁদের ব্যাপারে খুবই উদাসীন রাজ্য সরকার, অভিযোগ করলেন কংগ্রেস নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী। রাজ্যের এই শ্রমিকদের (Migrants) ফিরিয়ে আনতে ক'টি ট্রেনের প্রয়োজন হতে পারে, রবিবার সেব্যাপারেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে জানতে চেয়েছেন ওই কংগ্রেস নেতা (Adhir Ranjan Chowdhury)। অধীর রঞ্জন চৌধুরী একটি ভিডিও বার্তায় জানান যে, কেন্দ্র ইতিমধ্যেই ঘোষণা করেছে যে আটকে পড়া শ্রমিকদের তাঁদের নিজেদের রাজ্যে পৌঁছে দেওয়ার জন্য প্রতিদিন দেশে ৩০০ টি করে "শ্রমিক স্পেশাল" ট্রেন চালানো হবে। "এখন, আপনি আমাকে বলুন যে লকডাউনের কারণে রাজ্যের যে লক্ষ লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিক এবং পর্যটক ও শিক্ষার্থীরা ভিনরাজ্যে আটকে রয়েছেন তাঁদের ফেরাতে আপনার জেলা ভিত্তিক কতগুলো ট্রেনের প্রয়োজন?", ভিডিও বার্তায় মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছেন ওই কংগ্রেস সাংসদ।

দিল্লি থেকে যাত্রী ট্রেন পরিষেবা শুরু মঙ্গলবার! সোমবার বিকেল থেকে টিকিট বুকিং

"দয়া করে ট্রেনের অপ্রতুলতা সম্পর্কে কোনও অজুহাত দেবেন না। দয়া করে তালিকাটি দিন I আমি আপনাকে চ্যালেঞ্জ নিয়ে বলছি, আপনি যদি তাঁদের ফেরানোর উদ্যোগ নিতে অক্ষম হন তবে আমাকে বলুন, আমরা প্রয়োজনীয় সমস্ত ট্রেনের বন্দোবস্ত করে যাঁরা ফিরে আসতে চান তাঁদের ফিরিয়ে আনবো", বলেন অধীর চৌধুরী।

কংগ্রেস সাংসদ জানান, ভারতীয় রেলের অধীনে ১২,৬১৭ টি ট্রেন চলাচল করে। 

দেশের বিভিন্ন স্থানে আটকা পড়ে রয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন শ্রমিক-পর্যটক ও শিক্ষার্থীরা, অথচ রাজ্য সরকার কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না, অমন অভিযোগ করে শনিবারই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি লেখেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তারপরেই কেন্দ্রের অভিযোগ অস্বীকার রাজ্য সরকারের তরফ থেকে পাল্টা তোপ দাগা হয়। এই চাপানউতোরের রেশ কাটতে না কাটতেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের বিরুদ্ধে ফের একই অভিযোগ করলেন কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী।

পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরাতে পর্যাপ্ত ট্রেনের ব্যবস্থা না করে "অবিচার" করছেন মমতা: অমিত শাহ 

এদিকে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র বলেছেন, যেখানে বিভিন্ন রাজ্যে লক্ষ লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিক আটকে রয়েছে, সেখানে রাজ্য সরকার কেন্দ্রের কাছে মাত্র আটটি ট্রেনের বন্দোবস্ত করতে বলেছে। তাঁরও মতে, রাজ্য সরকারের উচিত পরিযায়ীদের দুর্দশার বিষয়টি সহানুভূতির সঙ্গে বিবেচনা করা।

রাজ্য কংগ্রেসের তরফে মুখ্যমন্ত্রীকে একটি চিঠিও দেওয়া হয়েছে যাতে আবেদন করা হয়েছে, আটকে পড়া পরিযায়ী শ্রমিকদের সমস্যা এবং পশ্চিমবঙ্গের কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করে আলোচনা করার জন্য সময় চান ওই দলের নেতারা।