This Article is From Apr 27, 2020

চিন থেকে আসা করোনা কিটগুলো 'অনেক বেশি দামে' কিনেছে সরকার, আদালতে মামলা

COVID-19 পরীক্ষার এই কিটগুলি সরকারের কাছে অপেক্ষাকৃত চড়া দামে বিক্রি করা হয়েছে বলে অভিযোগ, এই নিয়ে একটি মামলা হয় দিল্লি হাইকোর্টে

Chinese Rapid Antibody Tests: আমদানি সংস্থা ম্যাট্রিক্স প্রতিটি ২৪৫ টাকা দরে এনেছে করোনা কিট (ফাইল চিত্র)

হাইলাইটস

  • চিনের করোনা কিটগুলো অনেক বেশি দামে কিনেছে সরকার
  • এই অভিযোগ ওঠার পর দিল্লি হাইকোর্ট বেঁধে দিল করোনা কিটের দাম
  • ৪০০ টাকার মধ্যেই রাখতে হবে চিন থেকে আমদানি করা কিটের দাম, নির্দেশ আদালতের
নয়া দিল্লি:

রীতিমতো দ্বিগুণেরও বেশি অর্থ দিয়ে চিন থেকে আসা করোনা (Coronavirus) টেস্টের কিটগুলো (Chinese Rapid Antibody Tests) কিনেছে কেন্দ্রীয় সরকার, উঠল এমন অভিযোগ। অথচ এই চাইনিজ র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি টেস্টের কিটগুলো যখন বিভিন্ন রাজ্যে পাঠানো হয় তখন দেখা যায় তার মধ্যে বেশিরভাগ কিটেই নানা সমস্যা রয়েছে, যার জেরে সেগুলো দিয়ে করোনা টেস্টের ফলাফল যথাযথভাবে মিলছে না। অভিযোগ, ভারতে ওই কিটের সরবরাহকারী সংস্থা রিয়েল মেটাবলিকস অনেক বেশি দামে COVID-19 পরীক্ষার এই কিটগুলি সরকারের কাছে বিক্রি করেছে। এরপরেই এই ঘটনা ঘিরে বিরোধ বাঁধে কিটের আমদানিকারক সংস্থা ও সরবরাহকারী সংস্থার মধ্যে। বিরোধের জল গড়ায় আদালত (Delhi High Court) পর্যন্ত, দিল্লি হাইকোর্টে উঠেছে মামলাটি।

কোয়ারান্টাইন সেন্টারের পিছনের গেট দিয়ে দিব্যি চলছে চা-বিস্কুট-জলের কেনাবেচা!

জানা গেছে কেন্দ্রীয় সরকার, ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিকেল রিসার্চ বা আইসিএমআর-এর মাধ্যমে ২৭ মার্চ একটি চিনা ফার্ম ওনডফো থেকে পাঁচ লক্ষ র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি টেস্টের কিট (COVID-19) অর্ডার করে। NDTV-র হাতে এসেছে নোডাল সংস্থা আইসিএমআর এবং আরক ফার্মাসিউটিক্যালসের মধ্যে স্বাক্ষরিত কেনাকাটার আদেশ সম্বলিত পত্রটি। আদেশটি ব্যবহার করেছে ।

pgqibhhg

চিনে থাকা ভারতীয় রাষ্ট্রদূত বিক্রম মিস্রি টুইট করেন যে র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি টেস্ট এবং আরএনএ এক্সট্রাকশন কিটস সহ ৬,৫০,০০০ কিট ভারতে পাঠানো হয়েছে।

স্থগিত পরীক্ষার ব্যাপারে কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের কোনও চিঠি পায়নি রাজ্য: শিক্ষামন্ত্রী

জানা গেছে আমদানি সংস্থা ম্যাট্রিক্স প্রতিটি করোনা কিট ২৪৫ টাকা দরে চিন থেকে এদেশে কিনে এনেছে। অথচ এদেশে সরবরাহকারী সংস্থা রিয়েল মেটাবলিকস ও আর্ক ফার্মাসিউটিক্যালস সেগুলো সরকারের কাছে প্রতিটি ৬০০ টাকা করে বেচেছে। যার অর্থ ৬০ শতাংশ বেশি লাভ করেছে তারা।

ঝামেলা তখনই শুরু হয় যখন তামিলনাড়ু সরকার একই আমদানিকারক ম্যাট্রিক্সের কাছ থেকে অন্য সরবরাহকারী সংস্থা শান বায়োটেকের মাধ্যমে ওই একই দরে করোনা কিট কিনতে যায়। NDTV-র হাতে তামিলনাড়ু এবং শান বায়োটেকের মধ্যে সই হওয়া ক্রয়পত্রটিও এসেছে।

qklrk3fo

এরপরেই রিয়েল মেটাবলিকস সংস্থা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়ে জানায় যে ম্যাট্রিক্সের আমদানি করা সমস্ত কিটের একচেটিয়া সরবরাহকারী সংস্থা তারাই এবং চুক্তি লঙ্ঘন করে তামিলনাড়ু সরকার আরেকটি সংস্থা শান বায়োটেকের থেকে ওই কিট কিনছে। 

মামলার গতিপ্রকৃতি বিচার করে ওই করোনা কিটগুলোর দাম ৪০০ টাকা করার নির্দেশ দিয়েছে দিল্লি হাইকোর্ট। এদিকে কেন আইসিএমআর সরকারের হয়ে অনেক বেশি দামে ওই কিট কিনেছে সে বিষয়ে ওই সরকারি মেডিকেল সংস্থার জবাব চেয়েছে NDTV, যদিও এখনও এবিষয়ে কোনও উত্তর দেয়নি আইসিএমআর।