করোনা আবহে মুম্বইয়ে সর্ববৃহৎ গণেশ উৎসব লালবাগের রাজার পুজো বাতিল! অভিনব উদ্যোগ আয়োজকদের

আয়োজকরা জানিয়েছেন যে তারা এইবছর উৎসবের সময়ই পুজোর পরিবর্তে রক্তদান শিবির এবং প্লাজমা থেরাপি ক্যাম্পের ব্যবস্থা করবেন।

Coronavirus: এটি লালবাগের রাজার ৮৪ বছরের ইতিহাসে প্রথম!

মুম্বই:

মুম্বইয়ে ১১ দিনের গণেশ উত্সবের সবচেয়ে বড় এবং জমকালো আয়োজন, ‘লালবাগছা রাজা'র পুজো এবার বন্ধ। লালবাগ উৎসবের আয়োজকরা করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে অনুষ্ঠান বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বুধবার। এটি লালবাগের রাজার ৮৪ বছরের ইতিহাসে প্রথম! লালবাগ গণেশ মণ্ডলের সেক্রেটারি সুধীর সালভী বলেন, “এই বছর আমরা কোনও প্রতিমা রাখব না কারণ মানুষ এটি দেখার জন্য ভিড় করবেন।" মুম্বইয়ের পরেল অঞ্চলের লালবাগের গণেশ প্রতিমার পুজোর আয়োজনে হওয়া বার্ষিক উত্সবে সবচেয়ে বেশি মানুষ ভিড় জমান।

আয়োজকরা জানিয়েছেন যে তারা এইবছর উৎসবের সময়ই পুজোর পরিবর্তে রক্তদান শিবির এবং প্লাজমা থেরাপি ক্যাম্পের ব্যবস্থা করবেন।

মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে সম্প্রতি বেশ কয়েকটি উত্সবের প্রেক্ষিতে লকডাউনের সময় সংযম দেখানোর জন্য সমস্ত ধর্মীয় সম্প্রদায়কে ধন্যবাদ জানিয়েছিলেন।

তিনি জানান যে COVID-19 মোকাবিলায় মহারাষ্ট্রের অগ্রগতি সত্ত্বেও, সঙ্কট এখনও শেষ হয়নি এবং রাজ্যের জনগণকে নিয়ম মেনে চলার এবং লকডাউন যেন ফের জারি করতে না হয় তা নিশ্চিত করার আহ্বানও জানিয়েছেন উদ্বব ঠাকরে।

কিছু দিন আগে, মহামারীর কারণেই মহারাষ্ট্রের ব্যাপক জনপ্রিয় দহি হান্ডি উদযাপনও বাতিল করা হয়েছিল।

“আমি নিজের উদ্যোগেই উত্সব বাতিল করার জন্য দহি হান্ডি মণ্ডলকে ধন্যবাদ জানাতে চাই,” বলেন মুখ্যমন্ত্রী।

তিনি আষাঢ়ি একাদশীর আগে সোলাপুর জেলার পান্ধারপুরে আগত ওয়ারকারি তীর্থযাত্রীদেরও অনুষ্ঠানটি সীমিতভাবে উদযাপন করার জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

বুধবার, মহারাষ্ট্রে করোনাভাইরাস ব্যাপকহারে ছড়িয়ে পড়ার পর গত তিন দিনের মধ্যে প্রথম রাজ্যটিতে ৫ হাজারেরও কম সংক্রমণ দেখা গিয়েছে। মুম্বইতেও এক হাজারের কম সংক্রমণ ঘটেছে।

রাজ্যের করোনা সংক্রমণের মোট সংখ্যা এখন ১,৭৪,৭৬১।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)