একদিনে রেকর্ড ২২ জনের মৃত্যুর ঘটনা পশ্চিমবঙ্গে, মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৭৭৯ জনে

শিলিগুড়ি কর্পোরেশনের মেয়র এবং সিপিআই (এম)-এর প্রবীণ নেতা অশোক ভট্টাচার্য, যিনি কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত ছিলেন সোমবারই এই রোগকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন।

একদিনে রেকর্ড ২২ জনের মৃত্যুর ঘটনা পশ্চিমবঙ্গে, মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৭৭৯ জনে
কলকাতা:

পশ্চিমবঙ্গে কোভিড -১৯ এর কারণে মৃতের সংখ্যা সোমবার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৭৯ জনে। একদিনে রেকর্ড ২২ জনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে বলে স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৬১ জন মানুষের দেহে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়েছে এবং রাজ্যে সংক্রমণের মোট সংখ্যা এখন ২২,৯৮৭, জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, “কোমর্বিডির কারণে এই ২২ জনের মৃত্যু হয়েছিল এবং এই ক্ষেত্রে ঘটনাচক্রে কোভিডি-১৯ও ধরা পড়েছে।”

তাঁদের মধ্যে ১০ জনই কলকাতার, সাতজন উত্তর চব্বিশ পরগনার, তিনজন নদিয়ার, এবং দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা ও পূর্ব বর্ধমান জেলা থেকে রয়েছেন একজন করে।

রাজ্যে সক্রিয় সংক্রমণের সংখ্যা এখন ৬,৯৭৩। রবিবার সন্ধ্যা থেকে শুরু করে ৫২৪ জন রোগীকে হাসপাতাল থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর মোট সংখ্যা ১৫,২৩৫ জন।

রবিবার সন্ধ্যা থেকে মহানগরে সর্বোচ্চ ২৮১ টি সংক্রমণ দেখা গিয়েছে, উত্তর ২৪ পরগনাতে ১৮১ টি, হাওড়ায় ৯৭ ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার ৮৪ টি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে। বাকি ২১৮ টি অন্যান্য কয়েকটি জেলায়। একই সময়কালে, COVID-19 এর ১০,৯১৯ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

শিলিগুড়ি কর্পোরেশনের মেয়র এবং সিপিআই (এম)-এর প্রবীণ নেতা অশোক ভট্টাচার্য, যিনি কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত ছিলেন সোমবারই এই রোগকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন।

অশোক ভট্টাচার্য বলেন, “আমি ঘরে ফিরে এসে খুশি। আমার সঙ্গে এত ভাল ব্যবহারের জন্য আমি চিকিত্সক এবং নার্সদের ধন্যবাদ জানাই।"

অন্যদিকে, কলকাতার নীল রতন সরকার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ১০ জন স্বাস্থ্যকর্মীর দেহে কোভিড-১৯ পজিটিভ ধরা পড়েছে এবং তাদের আলাদা করে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য দফতর সূত্র।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)