This Article is From Apr 28, 2020

চিনের কোভিড-১৯ টেস্ট কিট ভারত বাতিল করায় তারা ‘গভীর উদ্বিগ্ন‌’ জানাল চিন

সরকার জানিয়েচে, ওই চিনা সংস্থার থেকে কিট কেনার কারণে ভারতের কোনও অর্থই খরচ হয়নি। কেননা ওই অর্ডার বাতিল করে দেওয়া হয়েছে এবং আগে কোনও অর্থই দেওয়া হয়নি। 

চিনের কোভিড-১৯ টেস্ট কিট ভারত বাতিল করায় তারা ‘গভীর উদ্বিগ্ন‌’ জানাল চিন

আইসিএমআরের পক্ষে রাজ্যগুলিকে এই কিটগুলি ব্যবহারে নিষেধ করে দেওয়া হয়। (প্রতীকী)

নয়াদিল্লি:

চিনের (China) দু'টি সংস্থার তৈরি কোভিড-১৯ র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি টেস্ট কিট (COVID-19 Test Kit) ব্যবহার না করার ভারতীয় সিদ্ধান্তের ব্যাপারে তারা গভীর ভাবে উদ্গিগ্ন বলে জানাল চিন। তারা আরও জানিয়েছে, তাদের আশা ভারত এই বিষয়টি যুক্তিসঙ্গত ভাবেই সমাধান করবে বলে তাদের বিশ্বাস। সোমবারই সরকারের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়, ওই চিনা সংস্থার থেকে কিট কেনার কারণে ভারতের কোনও অর্থই খরচ হয়নি। কেননা ওই অর্ডার বাতিল করে দেওয়া হয়েছে এবং আগে কোনও অর্থই দেওয়া হয়নি। মঙ্গলবার চিনের দূতাবাসের মুখপাত্র জি রং বলেন, ‘‘আমরা গভীর উদ্বিগ্ন পরীক্ষার ফলাফলে এবং আইসিএমআর-এর সিদ্ধান্তে। রফতানিকৃত চিকিৎসা সামগ্রীর বিষয়ে চিন বিরাট গুরুত্ব দেয়।''

সামান্য করোনা লক্ষণযুক্ত রোগীদের বাড়িতে রাখা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর পথেই কেন্দ্র

দুই চিনা সংস্থা গুয়ানঝাউ ওন্ডফো বায়োটেক ও ঝুহাই লিভজন ডায়াগনস্টিকস-র সরবরাহ করা টেস্ট কিটকে ‘ত্রুটিপূর্ণ' বলে ঘোষণা করেছে আইসিএমআর। সরকার একথা জানিয়েছে। আইসিএমআরের পক্ষে রাজ্যগুলিকে এই কিটগুলি ব্যবহারে নিষেধ করা হয়েছে। সমস্ত কিট ফেরত পাঠানোর কথা জানানো হয়েছে।

এক বিবৃতিতে চিনা দূতাবাসের মুখপাত্র জানিয়েছেন, কোনও কোনও ব্যাক্তির জন্য চিনা সামগ্রীকে সামগ্রিক ভাবে ‘ত্রুটিপূর্ণ' বলে দাগিয়ে দেওয়াটা অন্যায্য ও দায়িত্বজ্ঞানহীনতার পরিচয়। তবে তিনি ব্যক্তিগত বলে কাদের কথা বলতে চেয়েছেন সেকথা পরিষ্কার করেননি তিনি।

খুব সামান্য করোনা লক্ষণ যুক্ত রোগীদের বাড়িতেই পর্যবেক্ষণে রাখা যেতে পারে, পরামর্শ স্বাস্থ্যমন্ত্রকের

এমাসের গোড়া থেকেই ৫ লক্ষেরও বেশি র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি টেস্ট কিট ভারতে রফতানি করে ওই দুই চিনা সংস্থা। পরে সরকার তা রাজ্যগুলির মধ্যে সরবরাহ করে। আইসিএমআর ঘোষণা করেছিল, করোনা হটস্পটের মধ্যে বাস করা সমস্ত ব্যক্তির উপরেই এই পরীক্ষা করা হবে।

চিন জানিয়েছে, তারা করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে ভারতের লড়াইকে সমর্থন করছে। যত দ্রুত সম্ভব দুই দেশের মানুষকে করোনা মুক্ত করা যায় সে ব্যাপারে তারা ভারতের সঙ্গে হাত মিলিয়ে কাজ করবে বলেও জানিয়েছে তারা।

নতুন টেস্ট কিট সম্পর্কে অভিযোগ জানিয়েছিল রাজস্থান ও পশ্চিমবঙ্গের মতো কিছু রাজ্য। তাদের দাবি, এই কিটের সঠিক ফল দেওয়ার পরিমাণ ৫.৪ শতাংশ। বিরোধী দলগুলি এমন কিট কেনার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের সমালোচনায় মুখর হয়েছে।

(তথ্য সহায়তা পিটিআই)