This Article is From Jul 30, 2020

ভূপেন হাজারিকার গানে বেহালা বাজিয়ে কোভিড ওয়ার্ডকে মোহিত করলেন এক রোগী

গানের কথার অর্থ হল, "আরও মানবিক হয়ে মানবজাতির সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করা।" কোভিড হাসপাতাল তরফেই সেই ভিডিও টুইটারে আপলোড করা হয়েছে

ভূপেন হাজারিকার গানে বেহালা বাজিয়ে কোভিড ওয়ার্ডকে মোহিত করলেন এক রোগী

ভূপেন হাজারিকার গানে বেহালা বাজিয়ে ভাইরাল হলেন অসমের এক করোনা রোগী।

গুয়াহাটি:

করোনা সংকটের আবহে কোভিড বেডে বসে বেহালা বাজিয়ে অনুপ্রেরণার নজির গড়লেন এক ব্যক্তি (Violin Playing in Covid ward)। ৫৫ সেকেন্ডের এই টুইটার ভিডিওতে দেখা গিয়েছে ভূপেন হাজারিকার গানে বেহালায় সুরের মূর্চ্ছনা তুলছেন সত্যেন্দ্র চৌধুরি। আর সেই গানে অভিবাদন জানাচ্ছেন কোভিড ওয়ার্ডের চিকিৎসক-সহ অন্য রোগীরা। পেশায় চিকিৎসক ওই ব্যক্তি হাজারিকার (Bhupen Hazarika) মানুহে মানুহর বাবে গানে সুর তোলেন। বর্তমানে তিনি কালাপাহাড় কোভিড হাসপাতালে ভর্তি। হাসপাতাল সূত্রে খবর, ১৯৬৪ সালে এই গানে সুর দিয়েছিলেন ভূপেন হাজারিকা। গানের কথার অর্থ হল, "আরও মানবিক হয়ে মানবজাতির সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করা।" কোভিড হাসপাতাল (Covid-19 in Assam) তরফেই সেই ভিডিও টুইটারে আপলোড করা হয়েছে।

জানা গিয়েছে, নিজে করোনা সংক্রমিত হলেও পেশার তাগিদে ওয়ার্ডের অন্যদের চিকিৎসায় সাহায্য করছেন সত্যেন্দ্র চৌধুরি। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাঁর এই উদ্যোগকেও কুর্নিশ জানিয়েছে।

এদিকে, দেশব্যাপী করোনার সবচেয়ে বেশি দংশন জুলাই মাসে চোখে পড়েছে চিকিৎসকদের। মোট সংক্রমণের ৬১% ও মোট মৃত্যুর ৫০% এই মাসে পরিলক্ষিত হয়েছে। চলতি মাসে এখনও পর্যন্ত ৯.৬ লক্ষ সংক্রমিত হয়েছেন। যদিও স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দাবি, নমুনা পরীক্ষা বেড়েছে, তাই সংক্রমিতের সংখ্যাও বেড়েছে। এদিকে, বিশেষজ্ঞ মহল মাস দুয়েক আগেই পূর্বাভাস দিয়েছিলেন, জুলাই মাসে ২০ লক্ষ ছোঁবে দেশের সংক্রমণ। সূত্রের খবর, এই সংক্রমণ বৃদ্ধির নেপথ্যে অবশ্যই আনলক পর্ব। লকডাউন শেষে দেশে যখন আনলক প্রক্রিয়া শুরু হয়, তখন মানুষে মানুষে মেলামেশা ও যাতায়াত বেড়েছে। এতেই বৃদ্ধি পেয়েছে সংক্রমণ হার।

জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় মোট সংক্রমিত ৫২ হাজার। এই সংক্রমণ ধরে দেশে মোট সংক্রমিত ১৫, ৮৩, ৭৯২। গত দু'সপ্তাহে প্রায় দশ লক্ষ সংক্রমিত ধরা পড়েছে দেশে।
অপরদিকে, বুধবার দেশব্যাপী আনলক-৩ লাগু করতে গাইডলাইন জারি করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। এই পর্বে খোলা যাবে জিম ও যোগচর্চা কেন্দ্র। থাকবে না নাইট লকডাউন। তবে, আগের মতোই গণজমায়েতস্থল, শপিং মল, সিনেমা হল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বিনোদন পার্ক বন্ধ রাখা হবে।

৩০ জানুয়ারি দেশে প্রথম করোনা রোগীর খোঁজ মেলে কেরলে। তারপর থেকে সংক্রমণের বিচারে ১৫ লক্ষ ছুঁতে প্রায় পাঁচ মাস সময় লাগল। গত ১৯ মে এক লক্ষ পেরিয়েছিল ভারতের সংক্রমণ।