প্রধানমন্ত্রীর জাতির উদ্দেশে ভাষণের আগে তাঁকে তীব্র আক্রমণ রাহুল গান্ধির

Coronavirus Lockdown: "পুরো দেশে লকডাউন জারি রাখায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন কোটি কোটি কৃষক, অভিবাসী শ্রমিক, দিনমজুর এবং ব্যবসায়ীরা", বলেন রাহুল গান্ধি

প্রধানমন্ত্রীর জাতির উদ্দেশে ভাষণের আগে তাঁকে তীব্র আক্রমণ রাহুল গান্ধির

Coronavirus: প্রধানমন্ত্রী মোদির তীব্র সমালোচনা করলেন রাহুল গান্ধি (ফাইল চিত্র)

হাইলাইটস

  • করোনা সংক্রমণ রুখতে দেশে লকডাউন চলছে
  • দেশে এই লকডাউনের মেয়াদ আরও বৃদ্ধির ঘোষণা করতে পারেন প্রধানমন্ত্রী
  • তাঁর ভাষণের আগে লকডাউন নিয়ে তাঁর মোদির তীব্র সমালোচনা করলেন রাহুল গান্ধি
নয়া দিল্লি:

মঙ্গলবার সকাল ১০টায় ফের একবার জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। করোনা (Coronavirus) সঙ্কট মোকাবিলায় ঠিক কী ধরণের পদক্ষেপ করা হবে বা হচ্ছে তা নিয়েই দেশের মানুষের প্রতি বার্তা দেবেন তিনি (PM Modi)। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর ওই ভাষণের আগেই তাঁকে তীক্ষ্ণ সমালোচনার তিরে বিদ্ধ করলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি। করোনা সংক্রমণের বাড়বাড়ন্ত রুখতে গত ২৫ মার্চ থেকে ১৪ এপ্রিল, এই ২১ দিন টানা দেশ জুড়ে লকডাউন (Coronavirus Lockdown) চলেছে। এই লকডাউনের মেয়াদ আরও দু'সপ্তাহের জন্যে বাড়ানোর ইঙ্গিত আগেই দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী, আজ হয়তো তারই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করতে চলেছেন মোদি। কিন্তু এই লকডাউন নিয়েই এবার নমোকে দুষলেন কংগ্রেস সাংসদ (Rahul Gandhi)। "পুরো দেশে লকডাউন জারি রাখায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন কোটি কোটি কৃষক, অভিবাসী শ্রমিক, দিনমজুর এবং ব্যবসায়ীরা", এমনটাই বলেন রাহুল গান্ধি।

"শত অসুবিধাকে জয় করে যেভাবে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করছেন ": স্যালুট জানালেন সনিয়া গান্ধি

তিনি আরও বলেন যে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ যে যে অঞ্চলগুলোতে বেশি হয়েছে সেই সংক্রমণ প্রবণ এলাকাগুলো বাদ দিয়ে অন্য অঞ্চলগুলিতে ধীরে ধীরে ব্যবসা-বাণিজ্য শুরু করা উচিত। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি লকডাউন ও দেশ জুড়ে যেভাবে করোনা সংকট বেড়েই চলেছে তা নিয়ে মঙ্গলবার সকালে দেশবাসীকে সম্বোধন করার আগেই এমন দাবি তুললেন সনিয়া পুত্র। 

দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১০,০০০ পেরলো, ৩৩৯ জনের মৃত্যু

রাহুল গান্ধি টুইটে লেখেন, "পুরো দেশে এই লকডাউন জারি থাকায় দেশের কোটি কোটি কৃষক, অভিবাসী শ্রমিক, দিনমজুর এবং ব্যবসায়ীরা যেভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন তা বলার নয়"। এই পরিস্থিতিতে বিশেষ বিবেচনার সঙ্গে পদক্ষেপ করা উচিত, একথাও বলেন তিনি।কংগ্রেস সাংসদের পরামর্শ, "কোন কোন অঞ্চল এই ভাইরাসের কবলে তা আগে ভালো করে চিহ্নিত করে তাদেরই বিচ্ছিন্ন করে রাখা উচিত। অন্যান্য অঞ্চলে ব্যবসায়ীদের ধীরে ধীরে দোকান-বাজার খোলার অনুমতি দেওয়া উচিত"।

সম্প্রতি কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধি একথাও বলেন যে, "করোনা সংক্রমণের জেরে মন্দার মুখে পড়বে দেশীয় সংস্থাগুলো। ফলে সেই ফাঁকে বাড়বাড়ন্ত ,হবে বিদেশি সংস্থাগুলোর। অধিগ্রহণ করা হতে পারে কিছু দেশীয় সংস্থা। এই অধিগ্রহণের হাত থেকে বাঁচাতে হবে দেশীয় সংস্থাগুলোকে।"

ইতিমধ্যেই চলতি করোনা সঙ্কটের মধ্যেই এইচডিএফসি ব্যাঙ্কের ১.০১% শেয়ার কিনে নিয়েছে পিপলস ব্যাঙ্ক অফ চিন। এই ঘটনা দেখার পরেই ওই মন্তব্য করেন রাহুল গান্ধি।