P Chidambaram -এর সমর্থনে কংগ্রেস ও গান্ধি পরিবার, কেন্দ্রকে তীব্র আক্রমণ

INX Media Case: ২০০৭ সালে অর্থমন্ত্রী থাকাকালীন ছেলে কার্তিকের অনুরোধে আইএনএক্স মিডিয়া সংস্থাকে বিদেশি বিনিয়োগের বরাত পাওয়ার অনুমতি দেন চিদাম্বরম

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
P Chidambaram -এর সমর্থনে কংগ্রেস ও গান্ধি পরিবার, কেন্দ্রকে তীব্র আক্রমণ

INX Media case:পি চিদাম্বরমের আইনজীবীরা বুধবার সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন


নয়া দিল্লি: 

দলের প্রবীণ নেতা তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পি চিদাম্বরমের (P Chidambram) পাশে দাঁড়িয়ে তাঁর সমর্থনে  কংগ্রেস (Congress on Chidambaram) প্রতিবাদ সমাবেশ করে। দুর্নীতির মামলায় দু'টি তদন্তকারী সংস্থার ওয়ান্টেড তালিকায় রয়েছেন চিদাম্বরম । গত সন্ধ্যা থেকেই সিবিআই এবং এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট তাঁর নাগাল না পাওয়ায় প্রাক্তন মন্ত্রীর বিরুদ্ধে লুক আউট নোটিস জারি করা হয়। রাহুল গান্ধি (Rahul Gandhi) এই ঘটনায় কেন্দ্রকে আক্রমণ করে বিষয়টিকে "ক্ষমতার অপব্যবহার" হিসাবে অভিহিত করেছেন, ওদিকে তাঁর বোন প্রিয়াঙ্কা গান্ধি (Priyanka Gandhi) বলেছেন যে প্রাক্তন মন্ত্রী "লজ্জাজনকভাবে শিকার হয়েছেন" রাজনৈতিক প্রতিহিংসার।.

চিদাম্বরমের বিরুদ্ধে লুকআউট, হতে হবে গ্রেফতারির সম্মুখীন, এখনই সুরক্ষা নয় আদালতের

মঙ্গলবার দিল্লি হাইকোর্টের বিচারপতি সুনীল গৌর বলেন, এই মামলার মূল ষড়যন্ত্রকারী হলেন পি চিদাম্বরমই, তাই তাঁর আগাম জামিনের আবেদন নাকচ করে দেওয়া হল । "মামলার প্রধান বিষয়গুলি প্রমাণ করে যে আবেদনকারী (চিদাম্বরম), এই মামলার মূল ষড়যন্ত্রকারী,"  বলেন বিচারপতি গৌর।

মঙ্গলবারই দিল্লি হাইকোর্টে গ্রেফতারি (P Chidambaram arrest) এড়াতে পি চিদাম্বরমের করা আগাম জামিনের আবেদন খারিজ হয়ে যায়। আদালতের বিচারপতি সুনীল গৌর বলেন, এই মামলার মূল ষড়যন্ত্রকারী হলেন পি চিদাম্বরমই, তাই তাঁর আগাম জামিনের আবেদন নাকচ করে দেওয়া হল । "মামলার প্রধান বিষয়গুলি প্রমাণ করে যে আবেদনকারী (চিদাম্বরম), এই মামলার মূল ষড়যন্ত্রকারী,"  বলেন বিচারপতি গৌর।

এটিকে কৌশলী অর্থ পাচারের একটি মামলা হিসাবে অভিহিত করে বিচারপতি সুনীল গৌর বলেন: "এটা যথাযথভাবে পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে যে এই ধরণের বড় মাপের অর্থনৈতিক অপরাধ চূড়ান্তভাবে পরিকল্পনা করেই করা হয়েছে। এই মামলায় আগাম জামিনের আবেদন মঞ্জুর করা হলে সমাজের কাছে একটি ভুল বার্তা যাবে । "

‘চিদাম্বরম অত্যাচারিত', প্রাক্তন মন্ত্রীকে সমর্থন রাহুল, প্রিয়াঙ্কা গান্ধি

আদালতের এই আদেশের অল্প সময়ের মধ্যেই, তদন্ত সংস্থা সিবিআইয়ের ৬ জনের একটি দল দক্ষিণ দিল্লির জোড় বাগে মিঃ চিদাম্বরমের বাড়িতে হানা দেয়। কিন্তু সেখানে গিয়েও নাগাল মেলেনি চিদাম্বরমের। এর কয়েক ঘন্টা পরে, এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেক্টেরও একটি দল সেখানে উপস্থিত হয়। যদিও প্রবীণ কংগ্রেস নেতার দেখা পাননি তাঁরাও।

বুধবার সকালে চিদাম্বরমের বিরুদ্ধে লুক আউট নোটিস জারির খবর প্রকাশ্যে আসার পরেই কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধি (Sonia Gandhi), রাহুল গান্ধি এবং মেয়ে প্রিয়াঙ্কা গান্ধি কেন্দ্রীয় সরকারের এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ করেছিলেন। দলের অফিসিয়াল হ্যান্ডেল থেকে একটি টুইট করা হয়:

রাহুল গান্ধি টুইট করেন, "মোদি সরকার পি চিদাম্বরমকে কালিমালিপ্ত করার জন্য ইডি, সিবিআই এবং মেরুদণ্ডহীন গণমাধ্যমের কিছু অংশ ব্যবহার করছে। ক্ষমতার এই অপব্যবহারের আমি তীব্র নিন্দা করছি।"

তাঁর বোন তথা কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধি ভঢ়রা টুইট করেন: "রাজ্যসভার একজন অত্যন্ত যোগ্য ও সম্মানিত সদস্য, @ পি চিদাম্বরম জি অর্থমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সহ কয়েক দশক ধরে আমাদের বিশ্বস্ততার সঙ্গে সেবা করেছেন। তিনি নির্দ্বিধায় ক্ষমতাসীন সরকার প্রসঙ্গে সত্যি কথা বলেছেন এবং এর ব্যর্থতাও প্রকাশ করেছেন। তবে সত্যি সবসময়েই কাপুরুষদের পক্ষে অসুবিধাজনক তাই তাঁকে (চিদাম্বরম) লজ্জাজনকভাবে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হতে হচ্ছে। আমরা তাঁর পাশে দাঁড়িয়েছি এবং পরিণতি যা-ই হোক না কেন সত্যের পক্ষে লড়াই চালিয়ে যাব"।

যদিও বিষয়টি নিয়ে এখনও সেভাবে কোনও প্রতিক্রিয়া দেয়নি ভারতীয় জনতা পার্টি।

চিদাম্বরমের বিরুদ্ধে ইউপিএ সরকারের অর্থমন্ত্রী থাকাকালীন ছেলে কার্তির অনুরোধে একটি মিডিয়া সংস্থায় বিদেশি বিনিয়োগ আনার অভিযোগ ওঠে। জানা গেছে, ওই মিডিয়া সংস্থাকে বিদেশি বিনিয়োগ পেতে সরকারি ছাড়পত্র দেওয়ার নাম করে বিরাট অঙ্কের ঘুষও নেন তৎকালীন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী চিদাম্বরমের ছেলে কার্তি চিদাম্বরম।

তবে তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে পি চিদাম্বরম বিষয়টিকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত পদক্ষেপ বলে উল্লেখ করেন।



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................