রাজ্যসভায় নাগরিকত্ব বিল নিয়ে ভোটাভুটি এড়াল শিবসেনা

Citizenship (Amendment) Bill: শিবসেনার তিনজন সদস্যের ওয়াকআউট সংখ্যা কমিয়ে দেয়, ফলে সরকারের সুবিধা হয়, রাজ্যসভায় সংখ্যালঘু সরকার পক্ষ

রাজ্যসভায় নাগরিকত্ব বিল নিয়ে ভোটাভুটি এড়াল শিবসেনা

Citizenship Bill: শিবসেনার অভিযোগ, “ভোটব্যাঙ্কের রাজনীতি করছে” সরকার

মুম্বই:

বুধবার রাজ্যসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (Citizenship Amendment Bill) নিয়ে ভোটাভুটি থেকে বিরত থাকল শিবসেনা (Shiv Sena), দুদিন আগে সেটিকে জাতীয় স্বার্থের কথা চিন্তা করে এই মন্তব্য করে বিলের পক্ষে ভোট দেয় তারা। সংসদের একটি কক্ষ থেকে অন্যটিতে তাদের এই উল্টো পথে হাঁটা, লোকসভায় তাদের অবস্থান নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে কংগ্রেস। শিবসেনার তিনজন সদস্যের ওয়াকআউট সংখ্যা কমিয়ে দেয়, ফলে সরকারের সুবিধা হয়, রাজ্যসভায় সংখ্যালঘু সরকার পক্ষ। রাজ্যসভায় বিলের পক্ষে পড়ে ১২৫টি ভোট এবং বিপক্ষে ১০৫টি ভোট। শিবসেনা একাধিকবার জানিয়েছে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের বিবৃতি সন্তোষজনক না হলে তাদের ভোট অন্যদিকে যেতে পারে। রাজ্যসভায় বিতর্কে শিবসেনার সঞ্জয় রাউত বলেন, “আমি গতকাল থেকে শুনে আসছি, যারা এই বিলে সমর্থন করবে না, তারা দেশদ্রোহী, আর যারা করবে তারা দেশপ্রেমী। আমাদের হিন্দুত্ব ও জাতীয়তাবাদ নিয়ে কোনও শংসাপত্রের প্রয়োজন নেই”।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস, শীঘ্রই পরিণত হবে আইনে

তিনি বলেন, “আমরা একজন শক্তিশালী প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বপ্ন দেখেছিলাম। বিল পাস হয়ে গেলে কি আপনারা অনুপ্রবেশকারীদের বের করে দেবেন? আমরা শরণার্থীদের আশ্রয় দিই, এটা নিয়ে কোনও রাজনীতি দরকার নেই। তারা কি ভোটাধিকার পাবেন”।

সোমবার বিলটিতে শিবসেনার সমর্থনে কংগ্রেসের তরফে তাদের ওপর চাপ এসেছে। আদর্শগতভাবে ভিন্ন দলের জোট নিয়ে পরিস্থিতি খারাপ হয়, মঙ্গলবার রাহুল গান্ধি ট্যুইট করেন, “নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ভারতীয় সংবিধানের ওপর আক্রমণ। যারা সমর্থন করছে, তাদের তরফেও আমাদের দেশের ভিত নষ্ট করার পদক্ষেপ”।

নাগরিকত্ব বিল নিয়ে তারা নিজেদের অবস্থান পাল্টানোয়, দলের প্রধান তথা মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের থেকে সবুজ সঙ্কেত পেয়েছেন শিবসেনা নেতারা। মঙ্গলবার উদ্ধব ঠাকরে বলেন, “বিষয় স্পষ্ট না হলে আমরা বিলটিকে রাজ্যসভায় সমর্থন দেব না। রাজ্যসভায় বিলটি আনার সময়ে, তাদের (সরকার) কিছু পরিবর্তন করতে হবে”। রাহুল গান্ধির ট্যুইটের পরেই, এই মন্তব্য করেন তিনি। খবর পাওয়া গিয়েছে, শিবসেনার মতো একটি হিন্দুত্ববাদী দলের সঙ্গে জোট গড়ার ব্যাপারে প্রথমে অরাজি ছিল কংগ্রেস।

নাগরিকত্ব বিলের প্রতিবাদে উত্তপ্ত অসমে জারি কারফিউ, মোতায়েন সেনা

এদিন সকালে, বিলটি নিয়ে রাজ্যসভায় বিতর্কের আগে, সরকারের বিরুদ্ধে “ভোটব্যাঙ্কের রাজনীতি করা” এবং হিন্দু-মুসলিম বিভাজন সৃষ্টির অভিযোগ তোলে শিবসেনা। দলের সাংসদ সঞ্জয় রাউত বলেন, “বিলটি নিয়ে আমাদের ধন্দ দুর হতে হবে, যদি আমরা সন্তোষজনক উত্তর না পাই, তাহলে, লোকসভায় আমরা করেছিলাম, তার থেকে অবস্থান পৃথক হতে পারে”।

আজকের গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি দেখতে ক্লিক করুন: 

এই বিলে ২০১৫ এর আগে পাকিস্তান, আফগানিস্তান এবং বাংলাদেশ থেকে যে সমস্ত অ-মুসলিম  শরণর্থী এদেশে এসেছেন, তাঁদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।  সোমবার লোকসভা বিলটির পক্ষে পড়ে  ৩৩৪টি ভোট এবং বিপক্ষে ১০৬টি ভোট পড়ে।

More News