"নোটবন্দি ২": সরকারকে সিএএ এবং এনআরসি নিয়ে আক্রমণ করলেন রাহুল গান্ধি

CAA Protests: বৃহস্পতিবারও মোদি সরকারকে শরণার্থী শিবির নিয়ে আক্রমণ করেন রাহুল গান্ধি, কেন্দ্র দেশের মানুষকে ভুল বোঝাচ্ছে এমন অভিযোগও করেন কংগ্রেস নেতা

Assam Detention Centre: দেশবাসীকে ভুল বোঝাচ্ছে মোদি সরকার, অভিযোগ করেন রাহুল গান্ধি

হাইলাইটস

  • শনিবার অসম সফরে যাচ্ছেন রাহুল গান্ধি
  • তার আগে তীব্র আক্রমণ করেন মোদি সরকারকে
  • সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের জন্যে নোটবন্দির মতো বিপর্যয় তৈরি হবে, বলেন রাহুল
নয়া দিল্লি:

দেশ জুড়ে চলছে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ (Citizenship Amendment Act Protests) আন্দোলন। বিতর্কিত এই আইনের প্রতিবাদে সর্বপ্রথম গর্জে ওঠে অসম। সেখানে বিক্ষোভের ঝড় (CAA Protests) আছড়ে পড়ার পর এই প্রথম অসম সফরে যাচ্ছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি। সেই সফরের কয়েক ঘণ্টা আগে কেন্দ্রের মোদি সরকারকে নিশানা করলেন তিনি (Rahul Gandhi)। জাতীয় নাগরিক নিবন্ধীকরণ এবং সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের পদক্ষেপ ২০১৬ সালে বিজেপি সরকারের 'ডিমনিটাইজেশন' বা নোটবন্দি পদক্ষেপের থেকেও বিপর্যয়কারী হিসাবে দেখা দেবে, বলেন কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি। অসমের ডিটেনশন সেন্টার বা আটক কেন্দ্রগুলি সম্পর্কে কেন্দ্রকে মিথ্যা দোষারোপ করেছেন তিনি, এমন অভিযোগ করে শাসক দল বিজেপি। সেই অভিযোগেরই পাল্টা জবাব দেন রাহুল। তিনি বলেন, "আপনারা সবাই আমার টুইট দেখেছেন? আমি নরেন্দ্র মোদির ভাষণও শেয়ার করেছিলাম ওই টুইটে যেখানে তিনি বলছেন ভারতে কোনও ডিটেনশন সেন্টার নেই, অথচ একই ভিডিওতে একটি ডিটেনশন সেন্টারের ছবি রয়েছে। আপনারাই এবার সিদ্ধান্ত নিন কে মিথ্যাচার করছে"। দিল্লিতে কংগ্রেসের ১৩৫ তম প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এভাবেই প্রধানমন্ত্রী মোদি তথা বিজেপি সরকারকে আক্রমণ করেন রাহুল গান্ধি।

রাহুল গান্ধিকে ‘‘২০১৯-এর বৃহত্তম মিথ্যাবাদী'' বলল বিজেপি

নতুন নাগরিকত্ব আইন নিয়ে রাহুল গান্ধিকে প্রশ্ন করা হলে তিনি নোটবন্দির সঙ্গে এর তুলনা করেন। "এই পদক্ষেপকে (সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং এনআরসি) নোটবন্দি ২ বলতে পারি। এটি নোট বাতিলের পদক্ষেপের থেকেও আরও বিপর্যয় সৃষ্টিকারী পদক্ষেপ হবে। সমস্ত দরিদ্র মানুষকে নিজেদের নাগরিকত্বের প্রমাণ দিতে হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এর ফলে তাঁরাই সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হবেন", বলেন তিনি। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে যোগ দিয়ে যাঁরা মারা গেছেন তাঁদের পরিবারের পাশে থাকতে এবং নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে তিনি শনিবার অসম সফরে যাবেন।

রবিবার দিল্লির রামলীলা ময়দানে এক জন সমাবেশ থেকে প্রধানমন্ত্রী মোদি দাবি করেন যে, দেশের সব জায়গায় এনআরসি প্রয়োগ করা নিয়ে আলোচনা হয়নি। তাছাড়া ভারতে কোনও শরণার্থী শিবির (Detention Centres) তৈরি করা হচ্ছে না বলেই দাবি করেন তিনি (Narendra Modi)।  প্রধানমন্ত্রী মোদির রবিবারের বক্তব্যের ওই ক্লিপ এবং অসমে এক শরণার্থী শিবির তৈরি সংক্রান্ত সংবাদমাধ্যমের একটি প্রতিবেদনের প্রতিলিপি দিয়ে হিন্দিতে টুইট করেন রাহুল গান্ধি। তিনি বলেন, "আরএসএসের প্রধানমন্ত্রী ভারত মাতাকে নিয়ে মিথ্যে কথা বলছেন।" কংগ্রেস সাংসদ #ঝুটঝুটঝুট (মিথ্যে, মিথ্যে, মিথ্যে) বলে একটি হ্যাশট্যাগও দেন।

#ঝুটঝুটঝুট: প্রধানমন্ত্রীর "কোনও শরণার্থী শিবির নয়" দাবিকে মিথ্যে বললেন রাহুল গান্ধি

এরপরেই রাহুল গান্ধিকে পাল্টা আক্রমণ করে বিজেপি। রাহুলকে ‘‘২০১৯ সালের বৃহত্তম মিথ্যাবাদী'' বলে উল্লেখ করে গেরুয়া শিবির। তিনি নিজের পরিবার ও দলকে বিড়ম্বনায় ফেলেছেন, কটাক্ষ কেন্দ্রের শাসক দলের।

কংগ্রেস সাংসদকে "ঝুটো কা সর্দার" (মিথ্যাবাদীদের নেতা) বলে অভিহিত করেন বিজেপি মুখপাত্র সম্বিত পাত্র। তিনি বলেন, "রাহুল গান্ধি কিছু টুইট করেছেন এবং তিনি যে জাতীয় ভাষা ব্যবহার করেছেন তা অত্যন্ত আপত্তিজনক। তিনি বলেন যে আরএসএসের প্রধানমন্ত্রী ভারত মাতাকে নিয়ে মিথ্যা কথা বলছেন। আমি মনে করি রাহুল গান্ধির কাছ থেকে শালীনতা এবং ভাল ভাষা আশা করা ভুল"।

"রাহুল গান্ধি ঝুটো কা সর্দার। তিনি যে তিনটি ডিটেনশন সেন্টার বা আটক কেন্দ্রের কথা বলেছেন (যার নাম রাহুল গান্ধি উল্লেখ করেছেন) সেগুলি তাঁর দলই অসমে প্রতিষ্ঠা করেছিল যখন তাঁরা কেন্দ্র এবং রাজ্য দু'জায়গাতেই ক্ষমতায় ছিল", বলেন তিনি।

১১ ডিসেম্বর সংসদে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন পাস হওয়ার পর থেকেই এর বিরুদ্ধে দেশ জুড়ে বিক্ষোভ-প্রতিবাদ শুরু হয়েছে। এই আইনের ফলে আফগানিস্তান, পাকিস্তান ও বাংলাদেশের হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈন, শিখ খ্রিস্টান, পার্সি ও জৈন শরণার্থীদের এ দেশের নাগরিকত্ব দেওয়ার পথ প্রশস্ত হয়েছে। তবে এই তালিকা থেকে বাদ রাখা হয়েছে মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষদের। তা নিয়েই প্রতিবাদে মুখর গোটা দেশ।

দেখে নিন এই ভিডিও:

More News