‘বিদ্বানকেও শিক্ষিত হতে হবে’’: সত্য নাদেল্লাকে বিঁধলেন বিজেপি সাংসদ

মাইক্রোসফটের চিফ এগজিকিউটিভ সত্য নাদেল্লা সিএএ এবং এনআরসি নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করার পর তাঁকে আক্রমণ করলেন বিজেপি সাংসদ মীনাক্ষী লেখি।

‘বিদ্বানকেও শিক্ষিত হতে হবে’’: সত্য নাদেল্লাকে বিঁধলেন বিজেপি সাংসদ

সত্য নাদেল্লাকে বিঁধলেন বিজেপি সাংসদ মীনাক্ষী লেখি।

নয়াদিল্লি:

মাইক্রোসফটের চিফ এগজিকিউটিভ সত্য নাদেল্লা (Satya Nadella) সিএএ (CAA) এবং এনআরসি নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করার পর তাঁকে আক্রমণ করলেন বিজেপি সাংসদ মীনাক্ষী লেখি (Meenakshi Lekhi)। তিনি টুইট করে জানালেন, এটাই নিখুঁত উদাহরণ যে কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্যোগে বিদ্বান ব্যক্তিকেও শিক্ষিত করে তোলার প্রয়োজন রয়েছে। তিনি টুইট করে জানান, ‘‘কীভাবে বিদ্বানকে শিক্ষিত করে তুলতে হবে। নিখুঁত উদাহরণ। সিএএ করার নির্দিষ্ট কারণ ছিল বাংলাদেশ, পাকিস্তান‌ ও আফগান‌িস্তান থেকে আসা ধর্মীয় নিগ্রহের শিকার সংখ্যালঘুদের নাগরিকত্ব দেওয়া।''

আমার বক্তব্য পরিষ্কার করে বলা, CAA নিয়ে মন্তব্য প্রসঙ্গে সত্য নাদেল্লা

ওই টুইটেই তিনি বিস্ময় প্রকাশ করে জানান, আমেরিকা— যেখানে মাইক্রোসফট অবস্থিত, সেখানে কেন একই অনুমতি দেওয়া হয় না সিরিয়ার মুসলিমদের, ইয়েজিদিদের পরিবর্তে।

প্রসঙ্গত, ইয়েজিদিরা হল ইরাক, সিরিয়া ও তুরস্ক থেকে আগত। তারা আইসিসের দ্বারা নিগৃহীত।

সোমবার সত্য নাদেল্লা বলেন, ‘‘আমি মনে করি এটা খারাপ। আমি দেখতে পছন্দ করব একজন বাংলাদেশি শরণার্থী ভারতে এসে ধনী শিল্পপতি হচ্ছেন কিংবা ইনফোসিসের সিইও হচ্ছেন। এটা প্রেরণা হতে পারে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আমার সঙ্গে যেমনটা হয়েছে, চাইব ভারতেও কারও সঙ্গে ঠিক তেমনটাই হোক।'' তাঁর এমন মন্তব্যের প্রশংসা করেছেন অনেকেই।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনে আফগানিস্তান, পাকিস্তান, বাংলাদেশ থেকে ২০১৫ সালের আগে আগত অমুসলিম শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। সমালোচকদের মতে, এই আইন বৈষম্যমূলক এবং সংবিধানে বর্ণিত দেশের ধর্মনিরপেক্ষ ভাবমূর্তির পরিপন্থী।

গত মাসে বিজেপির সাংসদ তেজস্বী সূর্য বিতর্ক সৃষ্টি করেন সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে মন্তব্য করে। তিনি বলেন, একমাত্র ‘‘অশিক্ষিত ও পাংচার-ওয়ালারাই'' সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদ করছে। 

More News