This Article is From Mar 26, 2020

করোনার সঙ্গে লড়াইয়ে সময়ের আগেই জিতবে ভারত, সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিয়ে দাবি চিনের

চিনের মুখপাত্র জানান, মানব সভ্যতার কল্যাণের জন্য এই বিশ্বব্যাপী চ্যালেঞ্জের বিরুদ্ধে লড়তে নিজেদের জ্ঞান ও শক্তি ভাগ করে নিতে চায় চিন।

করোনার সঙ্গে লড়াইয়ে সময়ের আগেই জিতবে ভারত, সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিয়ে দাবি চিনের

করোনাকে রুখতে দেশব্যাপী সম্পূর্ণ লকডাউন ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

হাইলাইটস

  • করোনার সঙ্গে লড়াইয়ে ভারতকে সাহায্যের আশ্বাস চিনের
  • চিনের মুখপাত্রের দাবি, ভারত এই লড়াইয়ে সময়ের আগেই জিতবে
  • চিনের উহান শহর থেকেই সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ভাইরাস
নয়াদিল্লি:

কোভিড-১৯-এর (Covid-19) সঙ্গে লড়াইয়ে তাদের সাহায্য করার জন্য ভারতকে ধন্যবাদ জানাল চিন (China)। পাশাপাশি এই মহামারীর (pandemic) সঙ্গে লড়তে ভারতকে সর্বতোভাবে সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিল তারা। নয়াদিল্লিতে চিনা দূতাবাসের মুখপাত্র কাইন্সেলর জি রং জানালেন, ‘‘চিনা সংস্থারা ভারতকে এরই মধ্যে অনুদান দেওয়া শুরু করেছে। আমাদের ক্ষমতা অনুযায়ী ভারতকে সাহায্য করতে পরবর্তী সহায়তার জন্য আমরা প্রস্তুত।'' তিনি আরও জানান, চিন ও ভারত পরস্পরের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রেখে চলেছে এবং পরস্পরকে সাহায্য করে মহামারীর এই কঠিন সময়ের সঙ্গে লড়াই চালাচ্ছে।

এখনও পর্যন্ত চিনে ৮১,০০০ ব্যক্তি আক্রান্ত হয়েছেন করোনা ভাইরাসে। মৃত ৩,২০০ জন। ভারত চিনকে ১৫ টন চিকিৎসা সামগ্রী রফতানি করেছে। এর মধ্যে রয়েছে মাস্ক, গ্লাভস ও অন্যান্য আপৎকালীন সামগ্রী।

দিল্লির করোনা পজিটিভ চিকিৎসকের সংস্পর্শে আসা ৯০০ জন কোয়ারান্টাইনড, বাড়ছে আতঙ্ক!

জি রং আরও বলেন, ‘‘ভারত চিনকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সামগ্রী সরবরাহ করেছে। এই মহামারীর বিরুদ্ধে চিনের লড়াইকে নানা ভাবে সমর্থন করেছেন ভারতীয় জনতা। আমরা এর জন্য তাঁদের প্রশংসা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করি।''

তিনি আরও বলেন, এই মহামারীর শুরু থেকেই এর মোকাবিলায় সাবধানতা, নিয়ন্ত্রণ, শনাক্তকরণ ও চিকিৎসার ব্যাপারে জানিয়ে আসছে চিন।

৩বার করোনা পজিটিভ কণিকার, বন্ধুরা নেগেটিভ! সংস্পর্শে ছড়াচ্ছে না করোনা?

সম্প্রতি চিন এক অনলাইন ভিডিও সম্মেলনে ১৯টি ইউরেশিয়া ও দক্ষিণ এশিয়ার দেশের সঙ্গে এই রোগের মোকাবিলায় তাদের অভিজ্ঞতার কথা ভাগ করে নেয়। এর মধ্যে ভারতও ছিল।

জি রং আরও বলেন, ‘‘আমরা বিশ্বাস করি ভারতের জনতা এই লড়াই সময়ের আগেই জিতে নেবে। চিন ভারত ও অন্য দেশগুলির সঙ্গে এই মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াই চা‌লিয়ে যাবে।''

তিনি জানান, মানব সভ্যতার কল্যাণের জন্য এই বিশ্বব্যাপী চ্যালেঞ্জের বিরুদ্ধে লড়তে নিজেদের জ্ঞান ও শক্তি ভাগ করে নিতে চায় চিন।