‘‘রামনাম জপ করুন, দুষ্ট আত্মার প্রভাব দূর হবে’’: মমতাকে বললেন বিজেপি নেতা

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশে দিল্লির বিজেপি নেতা প্রবীণশঙ্কর কাপুর রবিবার বক্রোক্তি করে তাঁকে রামনাম জপ করার পরামর্শ দিলেন।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
‘‘রামনাম জপ করুন, দুষ্ট আত্মার প্রভাব দূর হবে’’: মমতাকে বললেন বিজেপি নেতা

বিজেপির দাবি, সারা দেশের বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের পক্ষ থেকে প্রায় ২৫ লক্ষ পোস্টকার্ড পাঠানো হয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।


কলকাতা: 

হাইলাইটস

  1. মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে রামনাম জপ করার পরামর্শ প্রবীণশঙ্করের।
  2. মমতা বলেন, বিজেপি ধর্ম ও রাজনীতি মিশিয়ে ফেলছে।
  3. ‘জয় শ্রী রাম’ লেখা পোস্টকার্ড পাঠানো হচ্ছে মমতাকে।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) উদ্দেশে দিল্লির বিজেপি (BJP) নেতা প্রবীণশঙ্কর কাপুর রবিবার বক্রোক্তি করে তাঁকে রামনাম জপ করার পরামর্শ দিলেন। জানালেন, তাতে দুষ্ট আত্মার প্রভাব থেকে মুক্ত হতে পারবেন মুখ্যমন্ত্রী। মমতাকে লেখা চিঠিতে প্রবীণশঙ্কর জানান, তিনি তৃণমূ‌ল (TMC) প্রধানকে একটি ‘ভগবান শ্রী রাম নাম মন্ত্র' পাঠিয়েছেন ও তাঁর টেবিলে রাখতে বলেছেন। তাঁর মতে, ‘‘দুষ্ট আত্মার প্রভাব এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে আপনার সামনে ‘জয় শ্রী রাম' বললেই আপনি চিৎকার করছেন।'' প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার উত্তর ২৪ পরগনায় মুখ্যমন্ত্রীর সামনে স্লোগান দিলে তিনি একদল যুবকের উপরে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। বিজেপি নেতার ইঙ্গিত ছিল সেদিকেই। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রবিবার বিজেপিকে অভিযুক্ত করে রাজনীতির সঙ্গে ধর্মকে মিশিয়ে ফেলতেই বারবার ‘জয় শ্রী রাম' শব্দবন্ধের ব্যবহার করছে। প্রবীণশঙ্করের সহকর্মী তেজেন্দর পাল সিংহ বাগ্গা এবং বিজেপি সাংসদ বাংলার অর্জুন সিংহ মুখ্যমন্ত্রীকে ‘জয় শ্রী রাম' লেখা চিঠি পাঠানোর প্রচারকার্য শুরু করেছেন।

“জয় শ্রীরাম” স্লোগান ভাল, কিন্তু বিজেপি যেভাবে ব্যবহার করছে সেটা নয়: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

বিজেপির দিল্লি সংগঠনের মুখপাত্র প্রবীণশঙ্কর দাবি করেন, রামায়ণে পরিষ্কার বলা আছে, কারও মনে কোনও খারাপ প্রভাব পড়লে রাম নাম জপ করলে তা দূরীভূত হবে। তিনি বলেন, ‘‘দয়া করে আমার উপহার ‘ভগবান শ্রী রাম নাম মন্ত্র' গ্রহণ করুন, যা আমাজনের মাধ্যমে পাঠিয়েছি। আমি অনুরোধ করব ওটা আপনার কাজের টেবিলে রাখুন। দ্রুতই আপনার উপরে দুষ্ট আত্মার যে প্রভাব রয়েছে, তাকে দূরীভূত করবে। এবং আপনাকে সাহায্য করবে জনসেবার মাধ্যমে রামরাজ্য স্থাপন করতে।''

বাগ্গা, ৪ মে রাতে যাঁকে আটক করেছিল কলকাতা পুলিশ, তিনি দাবি করেছেন সারা দেশের বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের পক্ষ থেকে প্রায় ২৫ লক্ষ পোস্টকার্ড পাঠানো হয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

কলেজের ফর্মে ধর্মের জায়গায় ‘মানবতা' লেখার সুযোগ বাংলার ছাত্রছাত্রীদের

বিজেপির মুখপাত্র বলেন, ভগবান রামের নাম যাঁরা জপ করছেন, তাঁদের প্রতি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আচরণ কোটি কোটি ভারতীয়কে মর্মাহত করেছে।

রবিবার একটি ফেসবুক পোস্টে মমতা লেখেন, ‘‘জয় সিয়া রাম, জয় রাম কি, রাম নাম সত্য হ্যায় ইত্যাদির ধর্মীয় ও সামাজিক দ্যোৎনা রয়েছে। আমরা এই আবেগকে সম্মান করি। কিন্তু বিজেপি এই ধর্মীয় স্লোগান জয় শ্রী রাম-কে ব্যবহার করছে তাদের দলীয় স্লোগান হিসেবে। খুবই ভুল ভাবে রাজনীতি ও ধর্মকে মিশিয়ে।'' গত বৃহস্পতিবার মমতা রেগে যান যখন এক দল যুবক তাঁর গাড়ির সামনে এসে ‘জয় শ্রী রাম' বলে চিৎকার করা শুরু করে। সেই সময় মুখ্যমন্ত্রী উত্তর ২৪ পরগনার ভাটপাড়া অঞ্চল দিয়ে যাচ্ছিলেন। ওই এলাকা অর্জুন সিংহের শক্ত ঘাঁটি বলে পরিচিত, যিনি তৃমমূল ছেড়ে গেরুয়া দলে যোগ দেন লোকসভা নির্বাচন‌ের আগে।

অর্জুন সিংহ তৃণমূলের দীনেশ ত্রিবেদীকে হারিয়ে দিয়েছেন। গত কয়েক সপ্তাহের মধ্যে ভাটপাড়ার ঘটনা দ্বিতীয়। এর আগে আরও একবার মমতা মেজাজ হারিয়েছিলেন তাঁর গাড়ির সামনে ‘জয় শ্রী রাম' বলার কারণে। তৃণমূল ও এবারের লোকসভায় ১৮টি আসনে জয়লাভ করা বিজেপি এই মুহূর্তে কথার লড়াইয়ে জড়িয়ে পড়েছে।



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................