This Article is From Jan 01, 2020

চন্দ্রযান ৩ সম্ভবত ২০২০ সালেই: কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

চন্দ্রযান ২ প্রসঙ্গে তাঁর বক্তব্য, ‘‘এটাকে ব্যর্থতা বলে বর্ণনা করা আমাদের উচিত নয়। কেননা সারা বিশ্বের মহাকাশ অভিযানের ইতিহাসে এমন কোনও দেশ নেই যারা অন্তত দু’বারের চেষ্টার আগে চাঁদে সফট ল্যান্ডিং করতে সক্ষম হয়েছে।’’

চন্দ্রযান ৩ সম্ভবত ২০২০ সালেই: কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জানালেন, চন্দ্রযান ৩-এর কাজ শীঘ্রই শুরু হবে। (ফাইল)

নয়াদিল্লি:

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জিতেন্দ্র সিংহ (Jitendra Singh) মঙ্গলবার জানালেন, চন্দ্রযান ৩ (Chandrayaan 3) অভিযান সম্ভবত ২০২০-তেই হবে। এবং এই চন্দ্রাভিযান হবে আরও সাশ্রয়ী। তিনি জানান, চন্দ্রযান ৩-এর কাজ শীঘ্রই শুরু হবে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, ‘‘আগামী চন্দ্রযান মিশনের খরচ আরও কম হবে। খুব সম্ভবত ২০২০ সালেই। রোভার ও ল্যান্ডার এরই মধ্যে রয়েছে। আমরা খরচ কমাব।'' পাশাপাশি চন্দ্রযান ২ প্রসঙ্গে তাঁর বক্তব্য, ‘‘এটাকে ব্যর্থতা বলে বর্ণনা করা আমাদের উচিত নয়। কেননা সারা বিশ্বের মহাকাশ অভিযানের ইতিহাসে এমন কোনও দেশ নেই যারা অন্তত দু'বারের চেষ্টার আগে চাঁদে সফট ল্যান্ডিং করতে সক্ষম হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এটা করতে পেরেছিল সপ্তম প্রচেষ্টায়। তবে আমাদের অতদূর অপেক্ষা করতে হবে না।''

নতুন বছরের প্রথম সকালে সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে টুইট প্রধানমন্ত্রীর

তিনি আরও বলেন, ‘‘আমরা অন্য দেশের অভিজ্ঞতার থেকে শিখেছি। ভারতের মহাকাশ যাত্রা শুরু হয়েছে দেরিতে।''

গত বছরের সেপ্টেম্বরে চন্দ্রযান ২-এর ল্যান্ডার বিক্রম চন্দ্রপৃষ্ঠের একেবারে সামনে চলে আসার পর ইসরোর সঙ্গে তার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে সফট ল্যান্ডিং করতে ব্যর্থ হয় সেটি।

হ্যাশট্যাগ দশক: বেকারত্ব,ইন্টারনেটে নিষেধাজ্ঞা নিয়ে তোপ কংগ্রেসের

চন্দ্রযানের কথা বলার পাশাপাশি তিনি জানান, রাজধানী দিল্লির কাছাকাছি একটি পারমাণবিক চুল্লি নির্মিত হবে। এক সাংবাদিক সম্মেলনে একথা জানিয়ে তিনি বলেন, দিল্লি থেকে ১৫০ কিলোমিটার দূরে হরিয়ানার গোরক্ষপুরে একটি পারমাণবিক চুল্লি নির্মিত হবে। এমন চুল্লি উত্তর ভারতে এই প্রথম।

তিনি বলেন, ‘‘নরেন্দ্র মোদি সরকারের অন্যতম শ্রেষ্ঠ অর্জন হল আমরা সীমিত ক্ষমতার মধ্যেও পামাণবিক শক্তি ও মহাকাশ অভিযানে সাফল্য পেয়েছি। পারমাণবিক শক্তি মূলত তামিলনাডু ও অন্ধ্রপ্রদেশে আবদ্ধয় আর মহাকাশচর্চা আবদ্ধ কেরল, আমেদাবাদ ও বেঙ্গালুরুতে। এই দু'টির কোনওচিরি সদর দফতর দি‌ল্লিতে নয়। এবার তাই আমরা উত্তর-পূর্ব ও উত্তরেও শুরু করব।''