মাতৃত্বকালীন ছুটিতে থাকলে কর্মরতা নারীর বেতনের ৫০ শতাংশ দেবে কেন্দ্র সরকার

আমরা অনেক ক্ষেত্রেই দেখেছি যেখানে মহিলাদের মাতৃত্বের কারণে অফিস ছাড়তে বা ছেড়ে যাওয়ার পর অফিসে ফিরে আসার সমস্যাগুলির মুখোমুখি হতে হয়েছে।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
মাতৃত্বকালীন ছুটিতে থাকলে কর্মরতা নারীর বেতনের ৫০ শতাংশ দেবে কেন্দ্র সরকার

যে মহিলাদের বেতন মাসে ১৫ হাজার টাকা, তাঁরাই এই সুবিধা পাবেন


নিউ দিল্লি: 

মাতৃত্বকালীন ছুটি বৃদ্ধির কারণে মহিলাদের কর্মক্ষেত্রে কম নিয়োগের বেশ কয়েকটি ঘটনার কথা সামনে আসতেই মাতৃত্বকালীন ছুটিতে থাকা নারীকে ১৪ সপ্তাহের বেতনের ৫০ শতাংশ প্রদান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

এর আগে, ম্যাটারনিটি বেনিফিট অ্যাক্টের অধীনে, মহিলাদের ১২ সপ্তাহের জন্য প্রদত্ত ছুটির কথা ঘোষণা করা হয়। যা ২০১৭ সালের মার্চ মাসে একটি সংশোধনের পরে ২৬ সপ্তাহের জন্য বাড়িয়ে দেওয়া হয়। নিয়োগকর্তাদের কাছ থেকে কিছু পরিমাণ আর্থিক বোঝা ভাগাভাগি করে নিতে চলেছে সরকার। সরকার ১৪ সপ্তাহের ছুটিতে থাকা প্রসূতি মহিলার ৫০ শতাংশ বেতন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রক সূত্রের খবর, বুধবার শ্রম মন্ত্রকের সঙ্গে একটি সরকারি স্তরের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় যেখানে মাতৃত্বকালীন সুবিধা দিতে অব্যবহৃত সেস ব্যবহার করা হবে বলে প্রস্তাব দেওয়া হয়।

"সেস ফান্ড এবং শ্রমিকদের কল্যাণে তার ব্যবহার" সম্পর্কিত লেবার স্ট্যান্ডিং কমিটির ২৮ তম প্রতিবেদন অনুযায়ী, ৩২,৬৩২.৯৫ কোটি টাকা সেস হিসাবে সংগ্রহ করা হয়েছে যার মধ্যে ৩১ মার্চ, ২০১৭ সালের মধ্যে ৭,৫১৬.৫২ কোটি টাকা ব্যবহার করা হয়েছে।

"বাকি পরিমাণ টাকা মাতৃত্ব সুবিধার স্কীমের জন্য ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। শ্রম মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে টাকার পরিমাণের বণ্টন করবে রাজ্য সরকার” জানান এক নারী ও শিশু কল্যাণ কর্মকর্তা । যে মহিলার বেতন মাসে ১৫ হাজার টাকা, তাঁরাই এই সুবিধা পাবেন।

সূত্রের খবর, নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রী মেনকা গান্ধীর কাছে এই বিষয়ে নানা রিপোর্ট জমা পড়ে। সেই রিপোর্টে দেখা যায় মাতৃত্বকালীন ছুটি বৃদ্ধির ফলে অফিসে, বিশেষত কর্পোরেট সেক্টরে নারীদের মধ্যে শ্রমের অংশগ্রহণের হার হ্রাস পেয়েছে।

"আমরা অনেক ক্ষেত্রেই দেখেছি যেখানে মহিলাদের মাতৃত্বের কারণে অফিস ছাড়তে বা ছেড়ে যাওয়ার পর অফিসে ফিরে আসার সমস্যাগুলির মুখোমুখি হতে হয়েছে। এই সব বিষয়গুলি মাথায় রেখেই নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রী মেনকা গান্ধী শ্রম মন্ত্রকের কাছে গিয়েছিলেন। তাঁরা এই বিষয়ে সম্মত হন এবং অব্যবহৃত সেস ফান্ড ব্যবহার করার পরামর্শও দেন” বলেন এক সরকারি কর্মকর্তা।

WCD অনুযায়ী, সরকারি পর্যায়ে একটি বিজ্ঞপ্তি শীঘ্রই প্রকাশ করা হবে, যা সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা উভয়ই অনুসরণ করবে।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদিত করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে.)


পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................