"ভোটের জন্যই এয়ার স্ট্রাইক করা হয়েছে", কেন্দ্রকে তোপ ফারুক আবদুল্লার

এখন কাশ্মীরে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যুদ্ধের জিগির তুলে দেশবাসীর কাছে নরেন্দ্র মোদী এমন এক 'অবতার' সাজতে চাইছেন, যাঁকে ছাড়া ভারত বাঁচতে পারবে না। বলেন ফারুক আবদুল্লা।

যুদ্ধবিমান ভেঙে যাওয়ায় ভারতের কত কোটি টাকা ক্ষতি হল, তাও মনে করিয়ে দেন ফারুক আবদুল্লা।

নিউ দিল্লি:

বালাকোটে (Balakot) জইশ-ই-মহম্মদের (Jaish-e Mohammad) ঘাঁটিতে ভারতীয় বায়ুসেনার (Indian Air Force) এয়ার স্ট্রাইক (Air Strike) নিয়ে সোমবার এক রাজনৈতিক কলহে জড়িয়ে পড়লেন ন্যাশনাল কনফারেন্সের নেতা ফারুক আবদুল্লা। তিনি বললেন, বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার লোকসভা নির্বাচনে জয়ের লক্ষ্য নিয়ে এই এয়ার স্ট্রাইক (Air Strike) করিয়েছে। গত ২৬ ফেব্রুয়ারি হওয়া এয়ার স্ট্রাইক নিয়ে ইতিমধ্যেই বহু রাজনৈতিক বিবাদ ও একে অপরের দিকে কাদা ছোঁড়াছুঁড়ির সাক্ষী থেকেছে দেশ। সেখানে ফারুক আবদুল্লার নামটি নবতম সংযোজন। এর আগে বহু বিরোধী দলই প্রায় একই সুরে কথা বলেছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ যে একাধিক বিরোধী নেতা-নেত্রীরা কেন্দ্রের কাছে এয়ার স্ট্রাইকের (Air Strike) প্রমাণ চেয়েছেন, তাঁদের উদ্দেশে সাম্প্রতিক কয়েকটি সভায় তোপও দেগেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

বিজেপিতে যোগ ২ কংগ্রেস, ১ তৃণমূল নেতার, 'লাইনে আরও আছে', বললেন মুকুল রায়

ফারুক আবদুল্লা আজ বলেন, "নির্বাচনের কথা মাথায় রেখেই এই সার্জিক্যাল স্ট্রাইক (এয়ার স্ট্রাইক) করা হয়েছে। পুরোপুরি নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে। আমরা এই কারণে কয়েক কোটি টাকার যুদ্ধবিমান খুইয়ে ফেলেছি। তবু ধন্যবাদ জানাই ভারতীয় বায়ুসেনার সেই উইং কম্যান্ডার (অভিনন্দন বর্তমান)-কে, যিনি বেঁচে গিয়েছেন এবং পাকিস্তান থেকে সম্মানের সঙ্গে মাথা উঁচু করে ফিরতে পেরেছেন"।

সংবাদসংস্থা পিটিআই-এর কাছে কাশ্মীরের এই বর্ষীয়ান নেতা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে রীতিমত তোপ দেগে বলেন, বিজেপি সরকারে আসার পর একের পর এক বিষয়ে কেবল ব্যর্থ হয়েছে। এখন কাশ্মীরে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যুদ্ধের জিগির তুলে দেশবাসীর কাছে নরেন্দ্র মোদী এমন এক 'অবতার' সাজতে চাইছেন, যাঁকে ছাড়া ভারত বাঁচতে পারবে না।

"তাঁকে আমি মনে করিয়ে দিতে চাই, তিনি বা আমি যে-ই বেঁচে থাকুক না কেন, তাতে কিছু যায় আসে না। ভারত বেঁচে থাকবে এবং সামনের দিকেই এগোবে", বলেন জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী।

 

More News