জম্মু ও কাশ্মীরের চাকরিতে সংরক্ষণ নিয়ে তুমুল বিতর্কের পর পিছু হঠল কেন্দ্র

J&K Job Rules: চাকরির ক্ষেত্রে স্থানীয়দের জন্যে জুনিয়র সহকারী এবং পিয়নের মতো শুধুমাত্র কম বেতনের পদই সংরক্ষিত থাকবে এমন ঘোষণা করা হয়

Jammu And Kashmir: সংশোধনীতে বলা হয়েছে, সমস্ত চাকরিই এখন কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের স্থায়ী বাসিন্দাদের জন্য সংরক্ষিত থাকবে

হাইলাইটস

  • জম্মু ও কাশ্মীরে চাকরিতে সংরক্ষণ সংক্রান্ত নিয়মে সংশোধনী
  • এবার ওই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের সমস্ত চাকরিই সংরক্ষিত স্থানীয়দের জন্যে
  • এর আগে বলা হয় যে স্থানীয়দের জন্যে কেবল কম বেতনের চাকরির পদ সংরক্ষিত থাকবে
নয়া দিল্লি:

জম্মু ও কাশ্মীরের চাকরিতে সংরক্ষণ (J&K Job Rules) সংক্রান্ত তুমুল বিতর্কের পর শেষপর্যন্ত পিছু হঠতে বাধ্য হল কেন্দ্রীয় সরকার। শুধু বিরোধীরাই নয়, ওই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের চাকরির সংরক্ষণ নিয়ম নিয়ে সেখানকার (Jammu And Kashmir) সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলির পাশাপাশি স্থানীয় বিজেপি নেতাদেরও সমালোচনার মুখোমুখি হয় সরকার। এরপরেই সংরক্ষণজনিত নিয়মে নয়া সংশোধনী আনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। মাত্র দু'দিন আগে ঘোষিত নিয়ম বদলে নয়া নিয়মে বলা হয় যে এখন থেকে সমস্ত চাকরিই শুধু এখানকার স্থানীয় বাসিন্দারা যাঁরা অন্তত ১৫ বছর এই অঞ্চলে বসবাস করছেন (Jammu and Kashmir Domicile Law) তাঁদের জন্যেই সংরক্ষিত থাকবে। ১ এপ্রিল ঘোষণা করা হয়, জম্মু ও কাশ্মীরের বাসিন্দাদের জন্যে চাকরি ক্ষেত্রে সংরক্ষণ থাকবে কেবল মাত্র জুনিয়র অ্যাসিস্ট্যান্ট ও পিওনের মতো পদের জন্যে। বাকি সমস্ত পদের জন্য আলাদা করে কোনও সংরক্ষণ নেই। দেশের যে কোনও ন‌াগরিকই সেই সমস্ত পদের জন্য আবেদন করতে পারবেন। কেন্দ্রের এই ঘোষণার পরেই তুমুল বিতর্ক তৈরি হয়। কেননা এতদিন পর্যন্ত ভূস্বর্গের সমস্ত চাকরিই সংরক্ষিত ছিল স্থায়ী বাসিন্দাদের জন্যেই।

ঘরে-বাইরে চাপের মুখে পড়ে শুক্রবার চাকরি সংক্রান্ত নিয়মে সংশোধনী আনার পর এক সরকারি আধিকারিক এই বিষয়ে NDTV-কে জানিয়েছেন যে, "মনে করা হচ্ছে এই সংশোধনীটি নিশ্চয়ই সকলকে সন্তুষ্ট করবে। যেহেতু এটি সব পক্ষেরই দাবি মেনে করা হয়েছে"। গত বছরের অগাস্ট মাসে জম্মু ও কাশ্মীর থেকে সংবিধানের ৩৭০ ধারা বিলোপ করে সেখানকার বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা তুলে নেওয়া হয়। শুধু তাইই নয়, ওই রাজ্যকে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলেও বিভক্ত করা হয়।

জম্মু ও কাশ্মীরের চাকরির সংরক্ষণ নিয়ে নয়া বিতর্ক, ‘অপমান' বললেন ওমর আবদুল্লাহ

এর আগে যখন সরকারের তরফ থেকে ঘোষণা করা হয় যে জম্মু ও কাশ্মীরের স্থানীয় বাসিন্দাদের জন্যে কেবলমাত্র কম বেতনের পদগুলোই সংরক্ষিত থাকবে, তখনই সেখানে তুমুল বিতর্ক শুরু হয়। একে তো প্রশ্ন ওঠে যে, ঠিক কতদিন ওই এলাকায় থাকলে স্থানীয় বাসিন্দা হিসাবে ধরা হবে। দ্বিতীয়ত একথাও বলা হয় যে, শুধুমাত্র কম বেতনের পদগুলোই স্থানীয়দের জন্যে সংরক্ষিত থাকবে এটা বলা মানে আসলে সেখানকার বাসিন্দাদেরই অপমান করা। বিজেপির স্থানীয় নেতাদের পাশাপাশি সংরক্ষণ জনিত এই নিয়ম নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে দলের আদর্শগত পরামর্শদাতা রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ বা আরএসএসও, তাঁরা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং জাতীয় নেতৃত্বের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে এ বিষয়ে কথাও বলে।

ভারতে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৬২, ২৪ ঘন্টায় আক্রন্তের সংখ্যা ৪৭৮ জন: ১০টি তথ্য

জম্মু ও কাশ্মীরের চাকরি সংক্রান্ত ওই সংরক্ষণ ঘোষণার পর কেন্দ্রের তীব্র সমালোচনা করেন সদ্য মুক্তি পাওয়া ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ওমর আবদুল্লাও। তিনি টুইট করেন, ‘‘যখন আমাদের সবার মনোযোগ রয়েছে করোনা সংক্রমণের মোকাবিলার দিকে, তখনই সরকার একটি নতুন অধিবাসী আইন নিয়ে এল জম্মু ও কাশ্মীরের জন্যে।'' তাঁর মতে, এটা ‘অপমান', কেননা প্রতিশ্রুত কোনও নিরাপত্তাই দিচ্ছে না এই নয়া আইন। 

ঘরে বাইরে তুমুল সমালোচিত হতে হয় সরকারকে আর তারপরেই কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে এই ভোলবদল। নতুন সংশোধনী এনে ঘোষণা করা হল, এখন থেকে জম্মু ও কাশ্মীরের সমস্ত চাকরিই শুধু এখানকার স্থানীয় বাসিন্দারা যাঁরা অন্তত ১৫ বছর এই অঞ্চলে বসবাস করছেন তাঁদের  জন্যেই সংরক্ষিত থাকবে। 

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com