হাইকোর্টে জোর ধাক্কা খেলেন মেয়র পত্নী রত্না

হাইকোর্ট জানিয়ে দিল সবার আগে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলাই শুনতে হবে আলিপুর আদালতকে।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
হাইকোর্টে জোর ধাক্কা খেলেন মেয়র পত্নী রত্না

মামলা চালানোর খরচ এবং সন্তান প্রতিপালনের  জন্য অর্থ চেয়ে  আবেদন করেছেন রত্না

কলকাতা হাইকোর্টে ধাক্কা খেলেন মেয়র ও মন্ত্রী  শোভন চট্টোপাধ্যায়ের স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়। আদালত জানিয়ে দিল সবার আগে  বিবাহ বিচ্ছেদের মামলাই শুনতে হবে  আলিপুর আদালতকে। মামলা চালানোর খরচ এবং সন্তান প্রতিপালনের  জন্য অর্থ চেয়ে  আবেদন করেছেন রত্না । তাঁর দাবি  আগে এই দুটি আবেদনের শুনানি হোক। কিন্তু আলিপুর আদালত জানিয়ে দেয় তেমনটা হবে না। সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে মামলা করেন রত্না। কিন্তু এখানেও হারতে হল তাঁকে। কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্য আলিপুর আদালতকে  নির্দেশ দেন যত তাড়াতড়ি সম্ভব  বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা শুনতে হবে।                      

 জুন মাসের শেষে আলিপুর আদালত জানায় এই দুটি আবেদন এবং মূল মামলার শুনানি হবে একসঙ্গে। কিন্তু তাতে আপত্তি করেন রত্না। দ্বারস্থ হন হাইকোর্টের। শুনানির সময় মেয়র তথা মন্ত্রীর আইনজীবী জানান,  বিবাহ বিচ্ছেদের মামলাকে পিছিয়ে দিতেই এ ধরনের  আবেদন করা হয়েছে। দুপক্ষের সওয়াল শুনে বিচারপতি জানান অন্য সমস্ত আবেদন বাদ রেখে  মূল মামলা শোনাই বিচার ব্যবস্থার রীতি।                                    

এই  দুজনের মধ্যে সম্পর্কের টানাপড়েন এখন  আর নতুন কোনও বিষয় নয়। দীর্ঘ দিন তাঁরা একসঙ্গে থাকেন না। বিবাহ বিচ্ছেদ চেয়ে মামলা করেছেন মেয়র। তার আগে পুলিশের দ্বারস্থ হন মহানাগরিক।  তখন বিদেশে ছিলেন রত্না। পরে ফিরে আসেন তিনি। শুরু হয় আইনি প্রক্রিয়া।  অন্যদিকে, একটি ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে  কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা ইডির মুখে পড়েন মেয়র।  গোয়েন্দাদের তিনি বলেন আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত বিষয় দেখেন তাঁর স্ত্রী। সে অভিযোগ অস্বীকার করেন রত্না। এরকমই আবহের মধ্যে দায়ের হয়েছে মামলা।            

 

 

  



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর, আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................