This Article is From Sep 04, 2018

Majerhat Bridge Collapse: 1 জনের মৃত্যু, আহত 19

আচমকাই মঙ্গলবার বিকেল পৌনে পাঁচটা নাগাদ ভেঙে পড়ল মাঝেরহাট ব্রিজের একাংশ।  বেশ কয়েকজনের মৃত্যুর আশঙ্কা। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন পুলিশ ও দমকলের আধিকারিকরা।  

হাইলাইটস

  • ফিরল বিবেকানন্দ উড়ালপুল ভাঙার স্মৃতি
  • আচমকাই মঙ্গলবার বিকেল পৌনে পাঁচটা নাগাদ ভেঙে পড়ল মাঝেরহাট ব্রিজের একাংশ
  • বেশ কয়েকজনের মৃত্যুর আশঙ্কা
কলকাতা:

ফিরল বিবেকানন্দ উড়ালপুল ভাঙার স্মৃতি। আচমকাই মঙ্গলবার বিকেল পৌনে পাঁচটা নাগাদ ভেঙে পড়ল মাঝেরহাট ব্রিজের একাংশ।  একজনের  মৃত্যু হয়েছে। আহতের সংখ্যা 19 । তবে ভেতরে আটকে  থাকা সবাইকে উদ্ধার করে সম্ভব হয়েছে জানালেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। উদ্ধার কাজ শুরু হয়েছে।  উদ্ধার কাজে হাত লাগিয়েছেন সেনা বাহিনী। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন পুলিশ ও দমকলের আধিকারিকরা।  পৌঁছে গিয়েছেন কলকাতার নগরপাল রাজীব কুমার এবং মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় । স্থানীয়দের দাবি এই সংখ্যা বাড়তে পারে। এদিকে ঘটনায় শোক জ্ঞাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। টুইটারে  তিনি লিখেছেন, যাঁরা আহত হয়েছেন তাঁদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করি।   ঘটনার পরপরই টুইট করেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েন। তিনিও জানান সমস্ত বিপর্যয়  মোকাবিলা করতে প্রশাসন সমস্ত রকম ব্যবস্থা নিয়েছে।                

এখন উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। দার্জিলিং থেকেই প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন, এমন একটা ঘটনা শুনে কলকাতায় ফিরে যেতে ইচ্ছা করছে। কিন্তু এখন কলকাতায় ফেরার কোনও বিমান নেই। তাই এখন থেকেই নির্দেশ দিচ্ছি। পাশাপাশি তিনি জানান, উদ্ধার কাজ শেষ হলেই শুরু হবে তদন্তের কাজ। যাঁদের উদ্ধার করা গিয়েছে তাঁদের সকলকেই  এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

বছর দুয়েক আগে মাসে উত্তর কলকাতার পোস্তায় ভেঙে পড়ে বিবেকানন্দ  উড়ালপুল। দুপুরের দিকে এমন একটা ঘটনায় ছাব্বিশ জনের মৃত্যু হয়। বেশ কয়েকদিন ধরে চলে উদ্ধারের কাজ। ওই ঘটনায় সাত ইঞ্জিনিয়ারকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। 

এদিকে মাঝেরহাট ব্রিজের ঘটনার প্রভাব পড়ল রেল চলাচলে। পূর্ব রেল জানিয়েছে যাত্রী নিরাপত্তার কারণে বিকেল পৌনে পাঁচটা থেকে শিয়ালদা- বজবজ শাখায় ট্রেন চলাচল ব্যহত হয়। তবে অন্য দিকে ট্রেন চলাচলে কোনও প্রভাব পড়েনি বলে দাবি রেলের। এই ঘটনার জেরে সিগন্যাল ভেঙে পড়ায় বন্ধ হয়ে গিয়েছে    চক্ররেলও। এমনিতে এই ব্রিজের একটা অংশ ট্রেন লাইনের উপর দিয়ে গিয়েছে। তাই কোনও রকম সমস্যা এড়াতে পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে। ট্রেন বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সমস্যায় পড়েছেন  নিত্য  যাত্রীরা। সব মিলিয়ে এই ঘটনার জেরে   শহরের অন্য অংশ থেকে  দক্ষিণ কলকাতা  ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনায় যেতে তীব্র সমস্যায় পড়তে হচ্ছে যাত্রীদের।