This Article is From Jun 27, 2019

বাচ্চাকে গাড়ির মধ্যে বন্ধ করে রেখে দিঘার সমুদ্রে স্নান করতে গেল বাবা-মা

বদ্ধ গাড়িতে শ্বাসরুদ্ধ হয়ে মৃতপ্রায় শিশুটি,পুলিশ এসে জানলার কাঁচ ভেঙে উদ্ধার করল তাঁকে

বাচ্চাকে গাড়ির মধ্যে বন্ধ করে রেখে দিঘার সমুদ্রে স্নান করতে গেল বাবা-মা

দিঘায গাড়ির মধ্য়ে আটকে দমবন্ধ অবস্থা শিশুর,উদ্ধার করল পুলিশ

কলকাতা:

দিঘায় সমুদ্র স্নানের হাতছানি না এড়াতে পেরে নিজের সন্তানের জীবন বিপন্ন করতেও পিছপা হলেন না অভিভাবক। জানা গেছে, দক্ষিণ ২৪ পরগনার সোনারপুরের বাসিন্দা সালিম এবং নাজমা বিবি তাঁদের সন্তানকে নিয়ে দিঘা ( Digha)বেড়াতে যান। সেখানে গিয়ে নিজেদের গাড়িতে রেখে দিয়ে সমুদ্র স্নানে মত্ত হয়ে পড়েন বাবা-মা, এদিকে শিশুটি বদ্ধ গাড়িতে আটকে থাকায় তাঁর প্রাণ যায়-যায় অবস্থা। শিশুটি গাড়ির মধ্যে কাঁদছিল ও সাহায্যের জন্যে চিৎকার করছিল, সেসময়ই বিষয়টি নজরে আসে স্থানীয় লোকজনের।তাঁরাই পুলিশকে ঘটনার কথা জানালে পুলিশ কর্মীরা এসে গাড়ির জানলা ভেঙে উদ্ধার করে শিশুটিকে। বদ্ধ গাড়ির মধ্যে আটকে থাকায় শিশুটির দমবন্ধ  অবস্থা হয়ে গেছিল, যদিও উদ্ধারের পর জল খাইয়ে শিশুটিকে সুস্থ করে তোলা হয় বলে জানিয়েছেন এক পুলিশ আধিকারিক।

"দক্ষিণ ২৪ পরগনার সোনারপুরের বাসিন্দা সালিম এবং নাজমা বিবি তাঁদের সন্তানকে(child) নিয়ে দিঘা বেড়াতে এসেছিলেন। খবর পেয়ে তাঁরা গাড়ির কাছাকাছি আসতেই স্থানীয় জনতার রোষ গিয়ে পড়ে তাঁদের উপর। কোনোক্রমে তাঁদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়”, জানান ওই পুলিশ কর্মী।

পরে অভিভাবকদের কাছ থেকে জানা যায়, শিশুটিকে সঙ্গে নিয়ে গভীর সমু্দ্রে ( Digha) স্নান করতে যাওয়া সম্ভব নয় বুঝতে পেরেই গাড়ির চালকের কাছে তাঁকে রেখে যান তাঁরা।কিন্তু তাঁরা সমুদ্রের দিকে রওনা হওয়ার পরেই শিশুটি কাঁদতে শুরু করলে গাড়ির চালক শিশুটিকে গাড়ির মধ্যে বন্ধ করে রেখেই অভিভাবকদের খোঁজে যান। সেইসময়েই ওই ঘটনা ঘটে।