বিশ্বের বৃহত্তম যুদ্ধবিমানের অর্ডার দিতে ভারতের আরও দু'বছর সময় লাগবে বলে মনে করছে বোয়িং

বিশ্বের বৃহত্তম যুদ্ধবিমান তৈরির বরাত দিতে ভারতের আরও দু'বছরের মতো লাগবে  বলে জানিয়েছেন বোয়িং সংস্থার এক আধিকারিক

বিশ্বের বৃহত্তম যুদ্ধবিমানের অর্ডার দিতে ভারতের আরও দু'বছর সময় লাগবে বলে মনে করছে বোয়িং

বোয়িং ভারতকে এফ/এ- 18  সুপার হর্নেট বেচতে চায়

হাইলাইটস

  • ভারতকে 110টি যুদ্ধবিমান বেচতে চলেছে বোয়িং
  • ভারতীয় নৌ-সেনাকে 57'টা যুদধবিমান দেওয়ার ব্যাপারেও এগিয়ে আছে তারা।
  • 110'টি বিমানের যন্ত্রপাতির 85 শতাংশ এই দেশ থেকে কিনতে হবে।
বিশ্বের বৃহত্তম যুদ্ধবিমান তৈরী করতে ভারতের আরও দু'বছরের মতো লাগবে  বলে জানিয়েছেন বোয়িং সংস্থার এক আধিকারিক।

ভারতীয় বায়ুসেনাকে 110'টা যুদ্ধ বিমান সরবরাহ করা বোয়িং সংস্থার বিশ্ব প্রতিরক্ষা বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট জেনে কানিংহাম সিঙ্গাপুরের একটি সিকিউরিটি ফোরামে দাঁড়িয়ে ব্লুমবার্গ নিউজকে এই কথা বলেন। ভারতীয় নৌ-সেনাকে 57'টি যুদ্ধবিমান সরবরাহ করার জন্য একটি প্রতিযোগিতায় এই সংস্থাটি ফাইনালিস্ট হয়েছে।

"আমরা ভারতের শিল্পমহলকে খুব ভালোভাবে বুঝে গিয়েছি।ভারতীয়দের কাজের ধরন নিয়েও যথেষ্ট ওয়াকিবহাল হয়ে গিয়েছে আমরা"। বলেন কানিংহাম।

110'টি যুদ্ধবিমান বানানোর টেন্ডার ঘোষণার সময় এক বিবৃতি দিয়ে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল যে, যুদ্ধবিমান তৈরির প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের  মোট অর্ডারের অন্তত 85 শতাংশ এই দেশেই দিতে হবে। মোট চুক্তির পরিমাণ কমবেশি 15 বিলিয়ন  মার্কিন ডলার।

এপ্রিল মাসেই বোয়িং সংস্থা জানিয়েছিল যে, তারা হিন্দুস্তান এয়ারোনটিকস লিমিটেড এবং মাহিন্দ্রা ডিফেন্স সিস্টেমস লিমিটেডের সঙ্গে এফ/এ- 18  সুপার হর্নেট ইন্ডিয়া প্রস্তুত করার সময় পার্টনারশিপ করবে। যা শুধু যুদ্ধবিমান হিসাবেই নয়। অন্য অনেক কাজেও ব্যবহার করা যায়। এই দুই সংস্থা ছাড়াও আরও যে যে সংস্থাগুলি দৌড়ে আছে, তারা হল লোকহিদ মার্টিন কর্পোরেশন, সাব এবি এবং বিএই সিস্টেমস।

(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদিত করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে.)