রাজস্থানের বিধানসভা নির্বাচনে উন্নয়নকে হাতিয়ার করেই লড়বে বিজেপিঃ জাওরেকর

রাজস্থানের বিধানসভা নির্বাচনে উন্নয়নকে হাতিয়ার  করেই লড়বে  বিজেপি। কেন্দ্রীয়  মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী তথা রাজস্থানে বিজেপির হয়ে নির্বাচনের দায়িত্ব সামলে আসা প্রকাশ জাওরেকর মঙ্গলবার এ কথা  জানালেন।

রাজস্থানের বিধানসভা নির্বাচনে উন্নয়নকে হাতিয়ার  করেই লড়বে  বিজেপিঃ জাওরেকর

মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থীর নাম ঘোষণা না করার প্রসঙ্গকে হাতিয়ার করে আক্রমণ করেন মন্ত্রী।

হাইলাইটস

  • রাজস্থানের বিধানসভা নির্বাচনে উন্নয়নকে হাতিয়ার করেই লড়বে বিজেপি
  • মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়াকে সামনে রেখেই লড়বে বিজেপি
  • পরিবারতন্ত্রের কথা বলে কংগ্রেসকে কড়া আক্রমণ করলেন জাওরেকর
জয়পুর:

রাজস্থানের বিধানসভা নির্বাচনে উন্নয়নকে হাতিয়ার  করেই লড়বে  বিজেপি। কেন্দ্রীয়  মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী তথা রাজস্থানে বিজেপির হয়ে নির্বাচনের দায়িত্ব সামলে আসা প্রকাশ জাওরেকর মঙ্গলবার এ কথা  জানালেন। তিনি  বলেন,  মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়াকে সামনে রেখেই লড়বে  বিজেপি।  গত কয়েকটি ভোটে  দেখা  গিয়েছে পর পর কেউ  দুবার রাজস্থানে নির্বাচনে জেতেনি। কিন্তু এবার সেই প্রথার অবসান ঘটবে বলে মনে করেন মন্ত্রী। তিনি বলেন,  ভোটারদের কাছে  গিয়ে আমরা বলছি এবার আবার ক্ষমতায় ফিরবে  বিজেপি। কারণ আমরা জানি  সেটাই হতে চলেছে। পরিবারতন্ত্রকে সামনে রেখে কংগ্রেসকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন প্রকাশ। বলেন, ‘ কংগ্রেস একটা পরিবারের দল আর আমাদের দল একটা পরিবার।'

 কংগ্রেসের তরফে  মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থীর নাম ঘোষণা না করার প্রসঙ্গকে হাতিয়ার করে আক্রমণ করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তাঁর কথায়, ‘ কেন্দ্র বা  রাজ্য দু' জায়গাতেই কংগ্রেসে নেতৃত্বের অভাব রয়েছে। ওরা এখনও মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থীর নাম  ঘোষণা করতে পারেনি। রাহুল গান্ধি শচীন পাইলটকে চান। কিন্তু তাঁর নাম ঘোষণা করে দেওয়ার সাহস রাহুলের নেই।'

অন্য একটি প্রসঙ্গে জাওরেকর  বলেন, ‘আমরা মুখ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বেই নির্বাচনে লড়ছি। তাঁর হাত  ধরেই আমাদের রাজস্থান উন্নয়নের সরণিতে পৌঁছেছে।

অন্যদিকে কংগ্রেসকে আক্রমণ করে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, এখনকার কংগ্রেস মহাত্মা গান্ধির দেখানো পথে চলে না। আরেক বার তাঁকে বলতে শোনা  যায় অপ্রাসঙ্গিক হয়ে  গিয়েছে কংগ্রেস। আর তাই  নিজেদের সময় চালু করা  ইভিএমের স্বচ্ছতা নিয়ে  প্রশ্ন তুলছে। তাঁর মতে গত চার বছরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে দেশে উন্নয়বনের জোয়ার  এসেছে। আর তাই  কংগ্রেসের হাতে  থাকা  রাজ্যের সংখ্যা 16 থেকে  কমে 4 হয়েছে,  বিজেপি 6 থেকে বেড়ে  19  হয়েছে। এই তথ্য  তুলে ধরে  মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী বলেন,  দেশের নিয়ন্ত্রণ আর শুধু একটি পরিবারের হাতে  থাকবে না। গরিব  মানুষও স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে। আমাদের প্রধানমন্ত্রীও  সেটা চান।