"লাভ জিহাদ": মেয়ে ঘর ছাড়ার পর বিরোধী পক্ষকে কাঠগড়ায় তুললেন বিজেপি নেতা

Surendra Nath Singh তাঁর মেয়ে মানসিক ভারসাম্যহীনতায় ভুগছেন এই দাবি করেন, কিন্তু তা অস্বীকার করে হাইকোর্টের কাছে নিজের নিরাপত্তা চান মেয়ে ভারতী সিং

ভোপালের প্রাক্তন বিধায়ক সুরেন্দ্র নাথ সিং তাঁর মেয়ের অন্তর্ধান রহস্যের সঙ্গে "Love Jihad"-এর গল্প জুড়েছেন

ভোপাল:

মেয়ে বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার পরেই "লাভ জিহাদ" (Love Jihad)-এর গল্প ফাঁদলেন মধ্যপ্রদেশের এক বিজেপি নেতা।  সুরেন্দ্র নাথ সিং নামে ওই বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ যে তিনি (Surendra Nath Singh's Daughter Missing) তাঁর মেয়ের নিখোঁজ হওয়ার ঘটনার সঙ্গে "লাভ জিহাদ"-এর বিষয়টি জড়াচ্ছেন  এবং দাবি করছেন যে এই ঘটনায় ভোপাল বিধায়ক এবং কংগ্রেস নেতা আরিফ মাসুদের ভূমিকা রয়েছে। এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় থানায় ভোপালের প্রাক্তন ওই বিধায়কের (Surendra Nath Singh) বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছিল। সোমবার, একটি ভিডিওতে বিজেপি নেতা সুরেন্দ্র নাথ সিংয়ের মেয়ে ভারতী সিং দাবি করেন যে তাঁর উপর অত্যাচার করেছে তাঁর পরিবার। এরপরেই নিজের মেয়ে ভারতীর অভিযোগ খণ্ডন করে তিনি পাল্টা অভিযোগ করেন যে মেয়েকে "লাভ জিহাদ"-এর ফাঁদে আটকে দেওয়া হয়েছে। সুরেন্দ্র নাথ সিং সাংবাদিকদের সামনে বলেন যে, "লাভ জিহাদ মানে হিন্দু মেয়েদের মুসলমান হিসাবে ধর্মান্তরিত করার চেষ্টা করা, যা আমার মেয়ের সঙ্গেও ঘটেছে। যদি এই রকম ঘটনা অব্যাহত থাকে তবে কাতাল-এ-আম (গণহত্যা) হবে"। 

তিনি এই মামলায় বিরোধী দলের নেতা মাসুদের জড়িত থাকার অভিযোগ করে বলেন, "আমি খুব ভালো করেই জানি যে এর পিছনে কারা রয়েছেন।  তবে তাঁরা সুরেন্দ্র নাথ সিং কে চেনেন না। আমি খুব তাড়াতাড়ি তাঁদের বুঝিয়ে দেবো যে আমি কে"।

ভিডিও দেখুন: "এত হিন্দু থাকতে মুসলমানের সঙ্গে প্রেম কেন"? বলে মারল পুলিশ

আরিফ মাসুদ, ২০১৮ সালে বিধানসভা নির্বাচনে সুরেন্দ্র নাথ সিংকে পরাজিত করেছিলেন।  তবে ওই কংগ্রেস নেতা এই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি। তিনি বলেন: "সিংয়ের মেয়ে আমার মেয়ের মতো এবং এটা পুরোটাই ওঁদের পারিবারিক বিষয়, তাই আমি এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করব না।"

মেয়ে ভারতী সিং নিখোঁজ এই অভিযোগ দায়েরের পর মঙ্গলবার ভোপালে নিয়ে আসা হয় সুরেন্দ্রনাথ সিংয়ের মেয়েকে।  গত ১৫ অক্টোবর ভারতী নিখোঁজ হয়ে গেছেন বলে অভিযোগ করা হয়। তাঁর বাবা এও দাবি করেন যে তাঁর মেয়ে "মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন"।

একটি ভিডিওতে, ভারতী সিং নিজের বাবার দাবিগুলি প্রত্যাখ্যান করেছেন। "আমি মানসিকভাবে একদম স্বাভাবিক। আমার পরিবার মিথ্যা প্রমাণ তৈরি করছে কারণ তাঁরা তা করার মতো অবস্থানে রয়েছে। আমি কেবল ঘরে ফিরতে চাই না। দয়া করে আমাকে সহায়তা করুন", ভিডিওতে বলেন তিনি।

তিনি মানসিকভাবে একেবারে স্বাভাবিক তা প্রমাণ করতে চেয়ে তিনি জবলপুর হাইকোর্টের কাছে নিজের সুরক্ষাও চেয়েছিলেন। একটি আবেদনে তিনি বলেন যে তাঁর পরিবার তাঁকে অন্য এক রাজনীতিবিদের ছেলের সঙ্গে বিয়ে করার জন্যে চাপ দেয় এবং হেনস্থা করে, এরপরেই বাধ্য হয়ে বাড়ি ছেড়ে চলে যান তিনি।

এই বুঝি মরে গেলাম! মিরাটের রাস্তায় যুবককে ফেলে মার!

তিনি আরও বলেন যে বাড়ি ছাড়ার পরে তিনি "নিরাপদ এবং সুখী" ছিলেন। "আমি কোন খ্রিস্টান বা মুসলিম লোকের সঙ্গে নেই। আমি বাড়ি ছেড়ে চলে গিয়েছিলাম কারণ আমি চলে যেতেই চেয়েছিলাম। দয়া করে এটিকে কোনও বর্ণ বা ধর্মের বিষয় হিসাবে তৈরি করার চেষ্টা করবেন  না। আমি শান্তিপূর্ণভাবেই ঘর ছাড়তে চেয়েছি । আমার পরিবার আমার উপর নির্যাতন করাতেই ... আমি ঘর ছেড়ে চলে যেতে বাধ্য হই", ভিডিওতে বলতে শোনা যায় বিজেপি নেতার মেয়েকে।

মঙ্গলবার তাঁকে আদালতের সামনে হাজির করার আগে কাউন্সেলিং করা হয়। পরে তিনি নিজের বয়ানও নথিভুক্ত করেন।

"উনি পুলিশকে বলেন যে উনি নিজের বাবা-মায়ের কাছে ফিরে যেতে চান, তারপরেই তাঁকে তাঁর বাবা-মায়ের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে", জানান উর্ধ্বতন পুলিশ আধিকারিক উমেশ তিওয়ারি ।

More News