লকডাউন আবহে বিহারে ভোট দামামা। অনলাইন প্রচারে জোর শাসক-বিরোধীর

ইতিমধ্যে মুখ্যমন্ত্রী গত আড়াই মাসে একটাও সাংবাদিক বৈঠক করেননি। কিন্তু রবিবার থেকে কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে অনলাইন আলাপ শুরু করেছেন

লকডাউন আবহে বিহারে ভোট দামামা। অনলাইন প্রচারে জোর শাসক-বিরোধীর

বিহারের শাসক-বিরোধী উভয়পক্ষ ভোট চাইতে ময়দানে।

নয়াদিল্লি:

লকডাউন ৫-এর (Lockdown 5.0) আবহেই বিহারে ভোটপ্রচার শুরু করল রাজনৈতিক দলগুলো। শাসক জোট জেডিইউ-বিজেপি'র (JDU-BJP) পাশাপাশি বিরোধী আরজেডিও নেমেছিল পথে। ফলে রবিবার বেজে গেল বিহারে আসন্ন বিধানসভা ভোটের (Bihar Vidhansabha election) দামামা। জানা গেছে, এই পরিবেশেই ডিজিটাল পদ্ধতিতে জনসভা করবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)। রাজ্যের ২৪৩টি বিধানসভার প্রায় এক লক্ষ কর্মী-সমর্থক সেই জনসভা লাইভ দেখবেন। নরেন্দ্র মোদি সরকারের ছ'বছরের সাফল্য তুলে ধরা হবে সেই জনসভায়। শাসক জোট সূত্রে খবর, অক্টোবর কিংবা নভেম্বরে মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের নেতৃত্বে এই নির্বাচন লড়াই হবে। জানা গিয়েছে, রবিবার সন্ধ্যা ছ'টায় এত শাহ এই জনসভা করলেও, এদিন দুপুরে অনলাইনে প্রতিবাদে সরব হয়েছিলেন আরজেডি (RJD) নেতা তেজস্বী যাদব। তিনি ও জেডিইউ সমর্থকরা থালা-বাসন বাজিয়ে শাক দলের অপশাসনের প্রতিবাদ করেছেন। এই প্রতিবাদসভায় নেতৃত্ব দিয়েছেন তেজস্বী যাদব; রাবড়ি দেবী আর তেজপ্রতাষ যাদব  পরিযায়ী শ্রমিকদের সমস্যা ও রাজ্যে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারের ব্যর্থতা তুলে ধরা হয়েছিল।

শনিবার তেজস্বী যাদব আরজেডি'র রাজ্য দফতরে গিয়েছিলেন। সেখানে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে করা প্রশ্নাবলি সম্পর্কিত পোস্টার লাগিয়ে এসেছেন। 

u7hsdiপটনায় তেজস্বী যাদব, তেজপ্রতাপ যাদব আর রাবড়ি দেবীকে থালা বাসন বাজাতে দেখা গিয়েছে।  

ইতিমধ্যে মুখ্যমন্ত্রী গত আড়াই মাসে একটাও সাংবাদিক বৈঠক করেননি। কিন্তু রবিবার থেকে কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে অনলাইন আলাপ শুরু করেছেন। রাজ্যের সাত জেলার তৃণমূল স্তরের কর্মীদর কাছে সরকারি সুযোগ-সুবিধার প্রসঙ্গ তুলে ধরতে এই উদ্যোগ।