বিজেপির ''চা চক্র'' কি TMC "Didi Ke Bolo" ক্যাম্পেনিংয়ের পাল্টা জবাব!

"আমরা জনগণের কাছে পৌঁছাতে বিশ্বাস করি। সেপ্টেম্বর থেকে এই Cha Chakra চালু করব, গণ প্রচারের কর্মসূচি হিসাবে এক কাপ চায়ে একত্রিত হব" জানালেন Dilip Ghosh।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
বিজেপির ''চা চক্র'' কি TMC

আগে শুধু আমি এটা করতাম, এখন অন্যান্য নেতারাও এটা করবেন: Dilip Ghosh


কলকাতা: 

২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে ততই জমে উঠছে ঘাসফুল ও পদ্মের একে অপরকে টেক্কা দেওয়ার লড়াই।  রাজ্যের শাসক দল TMC "Didi Ke Bolo" Campaign বিরুদ্ধে লড়াইয়ের উদ্দেশ্যে এবার BJP "Cha Chakra"। রাজ্যের সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছাতে এবং আগামী বিধানসভা নির্বাচনের দিকে লক্ষ্য রেখে গেরুয়া দলের বার্তা ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য এক কাপ চায়ে একত্রিত হওয়ার ডাক রাজ্য বিজেপির। যদিও রাজ্য বিজেপি সভাপতি Dilip Ghosh অস্বীকার করেছেন যে সেপ্টেম্বর থেকে  শুরু হতে চলা এই চা চক্রের উদ্যোগটি জনসাধারণের জন্য তৃণমূল কংগ্রেসের ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম "দিদিকে বলো"-কে পাল্লা দেওয়ার উদ্দেশ্যেই করা হয়েছে। তিনি বলেন যে এই চা চক্রের মাধ্যমে আসলে আরও বেশি করে জনগণের কাছে পৌঁছতে চায় গেরুয়া দল।

"আমরা জনগণের কাছে পৌঁছাতে বিশ্বাস করি। সুতরাং সেপ্টেম্বর থেকে এই চা চক্র চালু করব, গণ প্রচারের কর্মসূচি হিসাবে এক কাপ চায়ে একত্রিত হব। আগে শুধু আমি এটা করতাম, এখন অন্যান্য নেতারাও এটা করবেন" জানালেন দিলীপ ঘোষ।

Didi Ke Bolo: অস্বস্তিকর প্রশ্নের মুখে পড়তে হচ্ছে তৃণমূল নেতাদের

নির্বাচনী কৌশলবিদ প্রশান্ত কিশোরের পরামর্শে তৃণমূল কংগ্রেসের জন কর্মসূচি প্রকল্পের পাল্টা হিসাবেই এই প্রস্তাবিত কর্মসূচিটি কিনা তা জানতে চাওয়া হলে নেতিবাচক জবাব দেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, "বিজেপির মতো একটি ক্যাডার ভিত্তিক দলের মানুষের কাছে পৌঁছানোর জন্য ভাড়াটে পেশাদারদের সাহায্যের দরকার নেই"।

"সাধারণত প্রতিদিন সকালে আমি প্রাতঃভ্রমণে যাই এবং ফিরে আসার সময় স্থানীয় একটি দোকানে বসে চা খাই এবং স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলি। গত বেশ কয়েক বছর ধরে আমি প্রতিদিন এটা করে থাকি । আমি উত্তরবঙ্গের কোচবিহারে বা দক্ষিণবঙ্গের কাকদ্বীপে গেলেও আমার রুটিন একই রকম থাকে। তাই এখন দলটি এই বিষয়টিকেই কর্মসূচি বানানোর এবং আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে" বলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি ।

বিজেপির এই চা চক্রের বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন যে জনগণের সঙ্গে আরও ভাল যোগাযোগ রক্ষার জন্যে তৃণমূল কংগ্রেসের নতুন উদ্যোগেরই নকল করার চেষ্টা করছে বিজেপি। এই প্রসঙ্গে তিনি পদ্মের দলকে কটাক্ষও করেন।

পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, "ওঁরা আমাদের নকল করার চেষ্টা করছে। ঠিক আছে করুক ওঁরা। আমরা এ নিয়ে উদ্বিগ্ন নই। তবে বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো আর কোনও জননেতা না থাকায় ওঁদের এ সবে কোনও ফল হবে না"।

নির্বাচনী কৌশলবিদ প্রশান্ত কিশোরের পরামর্শ অনুযায়ীই আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে জয়ের লক্ষ্যে এগোচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস। শুরু করা হয়েছে নতুন কর্মসূচি "দিদিকে বলো", যার মাধ্যমে সাধারণ মানুষ নিজের সুবিধা অসুবিধার কথা সরাসরি জানাতে পারবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। দেওয়া হয়েছে 9137091370 এই হেল্প লাইন নম্বরটিও।

Mamata in Digha:নিজের হাতে চা বানিয়ে নিজে খেয়ে সহকর্মীদের খাওয়ালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা

পাশাপাশি তৃণমূল নেত্রী এও ঘোষণা করেন যে, আগামী ১০০ দিন ধরে তৃণমূল কংগ্রেসের এক হাজারেরও বেশি নেতা-কর্মী ১০ হাজারেরও বেশি গ্রামে যাবেন ও দলের বিভিন্ন কর্মসূচির কথা মানুষের সামনে তুলে ধরবেন, মানুষের সমস্যা শুনে তার সমাধানেরও চেষ্টা করবেন তাঁরা।

গত লোকসভা নির্বাচনের ফলাফলের পর দেখা যায় পশ্চিমবঙ্গে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে বিজেপি। তৃণমূল যেখানে ২২টি লোকসভা আসনে জয়লাভ করেছে সেখানে বিরোধী দল বিজেপি পেয়েছে ১৮ টি আসন। তাই এবার ২০২১-এর লোকসভা নির্বাচনে নিজেদের ক্ষমতা ধরে রাখতে সার্বিক ভাবে ঝাঁপাতে চাইছে তৃণমূল কংগ্রেস। পাল্টা বঙ্গজমিতে পদ্মের ডাঁটি শক্ত করতে ঝাঁপাচ্ছে বিজেপিও।



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................